বিজ্ঞাপন

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর নির্বাচন স্থগিত

October 27, 2021 | 8:45 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

চাঁপাইনবাবগঞ্জ: উচ্চ আদালতের নির্দেশে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। আগামী ২ নভেম্বর এই নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মোতাওয়াক্কিল রহমান জানান, নির্বাচন স্থগিতের বিষয়টি নির্বাচন কমিশন থেকে ফোন করে জানানো হয়েছে। পরে বুধবার (২৭ অক্টোবর) বিকেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার মোতাওয়াক্কিল রহমান এ সংক্রান্ত একটি গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন।

গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২৯ সেপ্টেম্বরের আদেশের আবেদন না নিষ্পত্তি হওয়া পর্যন্ত চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার পৌরসভা মেয়র, সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর ও সাধারণ আসনের কাউন্সিলর পদে নির্বাচন স্থগিতের সিদ্ধান্ত হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশনা না পাওয়া পর্যন্ত চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা সাধারণ নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করা হলো।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞপ্তিতে রিটার্নিং কর্মকর্তা আরও বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার ভোটার অন্তর্ভুক্ত হওয়া না হওয়া প্রসঙ্গে পিটিশন দাখিলের বিষয়টি নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত হাইকোর্টের আদেশ অনুযায়ী নির্বাচন কমিশন চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করেছে।

এদিকে, নির্বাচনের ভোট নেওয়ার জন্য যেসব কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু হয়েছিল, তা স্থগিত করা হয়েছে। মঙ্গলবারই প্রশিক্ষণের আওতায় থাকা কর্মকর্তাদের এ বিষয়টি মোবাইল ফোনে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এদিকে, নির্বাচন স্থগিত হওয়ার জন্য পৌরসভা মেয়র প্রার্থী, কমিশনার প্রার্থী ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের প্রার্থীরা আর্থিক ক্ষতির আশঙ্কা করছেন। তারা বলছেন, এ পর্যন্ত প্রচার মিছিল, জনসভা, নির্বাচনি পথসভা ও নির্বাচন সংক্রান্ত বিভিন্ন খাতে তারা অনেক টাকা খরচ করেছেন। ভোট স্থগিত হওয়ায় তারা ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়বেন।

পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডে পাঞ্জাবী প্রতীকের কাউন্সিলর প্রার্থী আব্দুল হাকিম (বাবু) বলেন, হঠাৎ করে নির্বাচন স্থগিত হওয়ায় খুব চিন্তায় পড়ে গেছি। নির্বাচনের প্রচারকে কেন্দ্র করে অফিস ঘর ভাড়া নিয়েছি, কর্মী ঠিক করেছি। পোস্টার-ফেস্টুন-ব্যানার ইত্যাদি লাগাতেও খরচ হয়েছে। এখন নির্বাচন স্থগিত হয়ে যাওয়ায় অনেক ক্ষতি হয়ে যাবে। আমার অন্যান্য প্রার্থী ভাইয়েরাও ক্ষতির শিকার হবেন।

বিজ্ঞাপন

আরেক কমিশনার প্রার্থী সালেহ্ উদ্দীন জানান, নির্বাচনকে ঘিরে তারও অনেক খরচ হয়ে গেছে। তিনি বলেন, নির্বাচনকে ঘিরে সময়, শ্রম, টাকা— সবই খরচ হয় প্রতিটি প্রার্থীর। ১৫টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী ও মেয়র প্রার্থীদের নির্বাচনি খরচ মিলিয়ে কোটি টাকা লোকসান হতে পারে। এছাড়া নির্বাচন কমিশনের নিজস্ব প্রশিক্ষণ খরচও রয়েছে।

আগামী ২ নভেম্বর চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভায় নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। এই নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছিলেন চার জন— নৌকা প্রতীকে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মোখলেসুর রহমান, মোবাইল ফোন প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী) সামিউল হক লিটন, নারিকেল গাছ প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. নজরুল ইসলাম ও জগ প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক শিবির নেতা মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল।

বিজ্ঞাপন

এছাড়াও ১৫টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৯৮ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ২১ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন। চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভায় এবার ভোটার রয়েছেন ১ লাখ ৪৫ হাজার ৪৯৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৭১ হাজার ৪৩২ জন এবং নারী ভোটার রয়েছেন ৭৪ হাজার ৬৫ জন।

সারাবাংলা/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন