বিজ্ঞাপন

বিশ্বকাপের ফাইনালে নজরে থাকবেন যারা—

November 14, 2021 | 1:56 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

দুবাইয়ে রোববার (১৪ নভেম্বর) অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার ফাইনাল দিয়ে পর্দা নামছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ২০২১—এর। প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠা নিউজিল্যান্ড আর ১১ বছর ফাইনালে ওঠা অস্ট্রেলিয়া উভয় দলই লড়বে নিজেদের প্রথম শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে। ফাইনালে সমানে সমান লড়াই দেখারই আশা দর্শকদের। তবে দুই দলের কিছু ক্রিকেটারদের ওপর নজর থাকবে সবারই।

বিজ্ঞাপন

ব্যাটিংয়ের দিক দিয়ে গোটা টুর্নামেন্ট জুড়েই কিছুটা পিছিয়ে অস্ট্রেলিয়া। ধারাবাহিকভাবে রান তুলতে পারেননি অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ এবং অভিজ্ঞ ব্যাটার ডেভিড ওয়ার্নারও। রান নেই গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ব্যাটেও, এই তালিকায় নাম আছে স্টিভ স্মিথেরও। তবে বল হাতে আলো ছড়িয়েছেন অ্যাডাম জাম্পা, হ্যাজেলউডরা। দেখে নেওয়া যাক ফাইনালে অজিদের হয়ে যারা সেরা পারফরমার হতে পারেন তাদের এক নজরে—

অ্যাডাম জাম্পা:

বিজ্ঞাপন

বল হাতে এবারের বিশ্বকাপে ছড়ি ঘুরিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান লেগ স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা। বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিও তিনিই। সেমিফাইনালসহ ছয় ম্যাচে ২৩ ওভার বল করে ১২টি উইকেট তুলে নিয়েছেন তিনি। বাছাইপর্ব খেলে আসা ওয়াইনিন্দু হাসারাঙ্গা ৮ ম্যাচ খেলে ১৬টি উইকেট নিয়ে আছেন শীর্ষে। জাম্পা এবারের টুর্নামেন্টে ৫.৬৯ ইকোনমি রেটে বল করেছেন টুর্নামেন্ট জুড়ে। ১৯ রানে ৫ উইকেট নিয়ে সেরা বোলিং ফিগার জাম্পার।

ডেভিড ওয়ার্নার:

বিজ্ঞাপন

বিশ্বকাপের আগে ফর্মহীনতায় ভুগছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার। আইপিএলের দল থেকেও বাদ পড়েছিলেন ফর্মহীনতার কারণেই। তবে বিশ্বকাপেই আবার স্বরূপে ফিরেছেন এই ব্যাটার। সুপার টুয়েলভের ছয় ম্যাচ খেলে করেছেন ২৩৬ রান। যেখানে আছে অপরাজিত ৮৯ রানেরও দুর্দান্ত এক ইনিংস। বড় মঞ্চে তাই অস্ট্রেলিয়ার ভরসা থাকবে ওয়ার্নারের কাঁধেই। সেমিফাইনালে পাকিস্তানের বিপক্ষে তার দুর্দান্ত ইনিংসেই জয়ের পথ সুগম হয়েছি অজিদের।

মিচেল স্টার্ক:

বিজ্ঞাপন

বল হাতে অ্যাডাম জাম্পার দুর্দান্ত ঘূর্ণির সঙ্গে গতির ঝড় তুলেছেন মিচেল স্টার্কও। জাম্পার পর অজিদের হয়ে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিও তিনিই। সুপার টুয়েলভের পাঁচ ম্যাচ আর সেমিফাইনালসহ মোট ছয় ম্যাচ শেষে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিদের তালিকার পাঁচ নম্বরে আছেন স্টার্ক। ছয় ম্যাচে ২৩ ওভারে ১৮৮ রান দিয়ে ৯ উইকেট নিয়েছেন তিনি। ৮.১৭ ইকোনোমি রেটে বল করা স্টার্কের সেরা বোলিং ফিগার ২১ রানে ২ উইকেট।

পিছিয়ে নেই নিউজিল্যান্ডও। একক পারফরম্যান্স নয়, কিউইরা নির্ভর করে আছে দলীয় পারফরম্যান্সের ওপর। তবে উদ্বোধনী ব্যাটার মার্টিন গাপটিল কিংবা ড্রায়িল মিচেল যেকোনো সময় জ্বলে উঠতে পারেন বিধ্বংসী ব্যাটিং দিয়ে। আর বল হাতে আগুন ঝরাচ্ছেন ট্রেন্ট বোল্টরা। দেখে নেওয়া যাক কিউইদের সেরা পারফরময়ারদের এক নজরে—

বিজ্ঞাপন

মার্টিন গাপটিল:

এবারের বিশ্বকাপে স্কটল্যান্ড ছাড়া অন্য কোনো দলের বিপক্ষে এখনো জ্বলে উঠতে পারেননি মার্টিন গাপটিল। তবে নিউজিল্যান্ডের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানের সামর্থ্য নিয়ে কোনো সংশয় থাকার কথা নয়। নিজের দিনে কী করতে পারেন, সেটি বারবারই দেখিয়েছেন কিউই ব্যাটসম্যান। এই বিশ্বকাপেই আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ৩ হাজার রানের মাইলফলক ছোঁয়া গাপটিল আটটি ছক্কা মেরেছেন এবার, যার সাতটিই অবশ্য স্কটিশদের বিপক্ষে ৫৬ বলে ৯৩ রান করার পথে। এবারের বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ছয় ম্যাচে ৩০ গড়ে তার রান সংখ্যা ১৮০। যেখানে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানের ইনিংস ৯৩।

ট্রেন্ট বোল্ট:

সেমিফাইনালসহ মোট ছয় ম্যাচ খেলেই ১১ উইকেট পেয়ে গেছেন কিউই পেসার। প্রতিপক্ষকে সুইংয়ে জেরবার করে প্রতি ম্যাচেই উইকেট নেওয়া বোল্টের ওভারে রান নেওয়াই মুশকিল ব্যাটারদের। ৫.৫৪—বোঝার সাধ্যি কার এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বোল্টের ইকোনমি এটি। ভারত ও আফগানিস্তানের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের মহাগুরুত্বপূর্ণ দুই ম্যাচে ৩টি করে উইকেট নিয়েছেন বোল্ট। সেমিফাইনালে যদিও তেমন কিছুই করতে পারেননি তিনি। তবে ১১ উইকেট নিয়ে বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিদের তালিকায় বসে আছেন চারে। তাই তো অজি ব্যাটারদের জন্য মাথা ব্যথার কারণ হতে পারেন যেকোনো সময়ই।

কেন উইলিয়ামসন:

অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন কিউইদের ব্যাটিং স্তম্ভ। দলের প্রয়োজন অনুযায়ী ব্যাট করতে তার জুড়ি মেলা ভার। এবারের বিশ্বকাপে যদিও বিস্ফোরক ব্যাটিং করতে তাকে দেখা যায়নি। তবে দলের প্রয়োজন অনুযায়ী পারফর্ম করেছেন যখন যেখানে যেমন প্রয়োজন ঠিক সেভাবে। পাকিস্তানের বিপক্ষে ২৬ বলে ২৫ রান করে রানআউট হয়ে ফেরেন উইলিয়ামসন। এরপর ভারতের বিপক্ষে ৩১ বলে অপরাজিত ৩৩ রানের ইনিংস খেলেন। নামিবিয়ার বিপক্ষে ২৫ বলে ২৮ ইনিংস খেলেন। এবারের টুর্নামেন্টে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষেই কেবল রান শূন্য অবস্থায় ফিরতে হয়েছে তাকে। এছাড়া শেষ ম্যাচে আফগানদের বিপক্ষে ৪২ বলে ৪০ রানের ইনিংস খেলে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি।

অর্থাৎ দলের প্রয়োজন বুঝেই ব্যাট চালাতে দেখা গেছে কিউই অধিনায়ককে। অজিদের বিপক্ষে তাই তিনিও হয়ে উঠতে পারেন সবচেয়ে বিপজ্জনক ব্যাটার। মিচেল স্টার্ক, জশ হ্যাজেলউড এবং অ্যাডাম জাম্পাদের নজরে তাই থাকবে উইলিয়ামসনের উইকেটটিও।

ভারতের আয়োজনে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ওমানে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ২০২১ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। এবারের বিশ্বকাপের সবকটি ম্যাচ সরাসরি সম্প্রচার করবে দেশের জনপ্রিয় স্যাটেলাইট চ্যানেল জিটিভি। এছাড়াও বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় অনলাইন প্ল্যাটফর্ম র‍্যাবিটহোলের ওয়েবসাইটে দেখা যাবে বিশ্বকাপের খেলা। অনলাইনে র‍্যাবিটহোলে খেলা দেখতে ব্রাউজ করুন— https://www.rabbitholebd.com/

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন