বিজ্ঞাপন

তাড়াহুড়ো করে ইসি গঠন আইন করা ঠিক হবে না: আইনমন্ত্রী

November 18, 2021 | 11:05 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য সংবিধানে বিবৃত আইন প্রণয়নের দাবি জানিয়েছেন অনেকেই। এবারে এই আইনের একটি খসড়া প্রণয়ন করেছে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)। খসড়াটি আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হকের কাছে হস্তান্তরও করা হয়েছে। তবে মন্ত্রী বলছেন, তাড়াহুড়ো করে নির্বাচন কমিশন গঠন আইন প্রণয়ন করা সঠিক পদক্ষেপ হবে না।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) রাতে সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদারের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল সুজনের তৈরি করা ‘খসড়া নির্বাচন কমিশন নিয়োগ আইন’-এর একটি কপি আইনমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করেন। এসময় গুলশান কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবেই মন্ত্রী ওই মন্তব্য করেন।

সংবিধানের ১১৮ ধারায় নির্বাচন কমিশন গঠনের বিষয়ে আইন প্রণয়নের কথা বলা আছে। তবে স্বাধীনতার ৫০ বছরেও এই আইন প্রণয়ন করা হয়নি। নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার আগে রাষ্ট্রপতি গঠিত একটি সার্চ কমিটির মাধ্যমেই নতুন কমিশন নির্বাচন করা হয়ে থাকে।

বিজ্ঞাপন

এ পরিস্থিতিতিই নির্বাচন কমিশন নিয়োগের জন্য একটি আইনের খসড়া প্রণয়ন করেছে সুজন। সংগঠনটির সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার অধ্যাদেশ জারি করে ‘নির্বাচন কমিশন গঠন আইন’ প্রণয়নের পরামর্শ দেন এই খসড়া হস্তান্তরের সময়।

এসময় আইনমন্ত্রী বলেন, জাতীয় সংসদকে পাশ কাটিয়ে এ আইন প্রণয়ন করা সঠিক হবে না। আগামী জানুয়ারি মাসে সংসদের পরবর্তী অধিবেশন বসবে। অন্যদিকে ফেব্রুয়ারিতে বর্তমান ইসি’র মেয়াদ শেষ হবে। তাই এই স্বল্প সময়ে ইসি গঠন আইন প্রণয়ন করা সম্ভব নয়।

বিজ্ঞাপন

আনিসুল হক আরও বলেন, ইসি গঠনের জন্য যে সার্চ কমিটি করার নিয়ম চালু আছে, তা আইন না হলেও আইনের কাছাকাছি। কারণ এ সার্চ কমিটি রাষ্ট্রপতি গঠন করে থাকেন।

সুজন প্রতিনিধি দলে আরও ছিলেন সিনিয়র আইনজীবী ড. শাহদীন মালিক, সৈয়দ আবু নাছের বখতিয়ার আহমেদ, অধ্যাপক রুবাইয়াৎ ফেরদৌস, দিলিপ কুমার সরকারসহ অন্যরা।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জিএস/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন