বিজ্ঞাপন

ডিএসসিসি’র সেই ময়লার গাড়ির মূল চালক হারুন গ্রেফতার

November 26, 2021 | 5:50 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ময়লার গাড়ির মূলক চালক হারুনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ান (র‌্যাব)। এই ময়লার ট্রাকটির ধাক্কাতেই রাজধানীর গুলিস্তান এলাকায় হত্যার শিকার হয় নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকা থেকে চালক হারুনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নাঈমকে ধাক্কা দেওয়ার সময় ট্রাকটি হারুনের বদলে চালাচ্ছিলেন সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতাকর্মী রাসেল। তাকেও আটক করেছে পুলিশ

র‌্যাব-৩-এর অপারেশন কর্মকর্তা সহকারী পুলিশ সুপার ফারজানা হক সারাবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, হারুনকে ভোরে যাত্রাবাড়ী এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছি। তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। বিভিন্ন তথ্য যাচাই-বাছাই চলছে। কিছুক্ষণের মধ্যে আমরা তাকে থানায় হস্তান্তর করব।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন- ডিএসসিসি’র গাড়ির ধাক্কায় নটরডেমের শিক্ষার্থী নিহত

র‌্যাব কর্মকর্তা ফারজানা হক আরও বলেন, চালক হারুন ২০২০ সালে সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ি চালানোর কাজে নিযুক্ত হয়। রাসেল ছিল তার সহকারী। ওই দিন (বুধবার) হারুন অনুপস্থিত থাকায় গাড়িটি নিয়ে বের হয় রাসেল। তবে হারুন ও রাসেল কারওই ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, বুধবার (২৪ নভেম্বর) নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান গুলিস্তানের জিরো পয়েন্ট এলাকায় দক্ষিণ সিটির একটি ময়লার গাড়ির ধাক্কায় হত্যার শিকার হয়। এ ঘটনায় বুধ ও বৃহস্পতিবার রাজধানীর সড়ক অবরোধ করে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ করে শিক্ষার্থীরা।

আরও পড়ুন- আইনজীবী হওয়ার স্বপ্ন রাজপথেই মুছে গেল নাঈমের

বিজ্ঞাপন

এর মধ্যে বুধবার নটর ডেমের শিক্ষার্থীরা মতিঝিল-গুলিস্তান এলাকা অবরোধ করলেও বৃহস্পতিবার গুলিস্তান, মতিঝিল, সায়েন্স ল্যাব, ফার্মগেট, উত্তরা, শান্তিনগরসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা অবরোধ করে স্থানীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার গুলিস্তানে আন্দোলনের সময় উপস্থিত হয়ে শিক্ষার্থীদের দাবির সঙ্গে সংহতি জানান ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। তিনিও ঘাতক ট্রাকের চালকের আসা থাকা রাসেলের সর্বোচ্চ সাজা দাবি করেন।

আরও পড়ুন- ডিএসসিসির ময়লার গাড়ির পরবর্তী ‘শিকার’ কে!

বিজ্ঞাপন

এদিকে, নাঈম হাসানকে ধাক্কা দেওয়ার সময় ময়লার গাড়ির চালকের আসনে থাকা রাসেল খানকে এরই মধ্যে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় দক্ষিণ সিটি করপোরেশন একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। সাত কার্যদিবসের মধ্যে কমিটিকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। অন্যদিকে গাড়ির মূল চালক হারুন মিয়ার পাশাপাশি রাসেলকে অবৈধভাবে গাড়ি চালানোতে সহায়তা করায় পরিচ্ছন্নতাকর্মী মো. আব্দুর রাজ্জাককেও চাকরি থেকে বরখাস্ত করেছে সিটি করপোরেশন।

আরও পড়ুন-

সারাবাংলা/ইউজে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন