বিজ্ঞাপন

৫-এ পা সারাবাংলার— আমাদের আনন্দের দিন

December 6, 2021 | 8:33 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: চার বছর পেরিয়ে পাঁচ বছরে পা রাখল অনলাইন নিউজ পোর্টাল সারাবাংলা ডটনেট। ‘সারাবাংলা সারাক্ষণ’ স্লোগান নিয়ে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের প্রত্যয় নিয়ে ২০১৭ সালের ৬ ডিসেম্বর আত্মপ্রকাশ করেছিল অনলাইন পোর্টালটি।

বিজ্ঞাপন

চতুর্থ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সোমবার (৬ ডিসেম্বর) ২৫ সেগুনবাগিচায় সারাবাংলা কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এসময় কেক কেটে সারাবাংলা ডটনেটের পঞ্চম বর্ষে পদার্পণের অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের সূচনা করেন গাজী গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী। তার সঙ্গে ছিলেন সারাবাংলার প্রকাশক বদরুল আলম খান, বুয়েটের সহকারী অধ্যাপক সানিয়া বিনতে মাহতাব, সারাবাংলার ব্যবস্থাপনা সম্পাদক এ এস এম রফিকউল্লাহ রোমেল এবং জিটিভির এডিটর ইন চিফ সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা।

৫-এ পা সারাবাংলার— আমাদের আনন্দের দিন

বিজ্ঞাপন

এসময় বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বলেন, সঠিক ও বস্তুনিষ্ঠ খবরটি মানুষের কাছে দ্রুত পৌঁছে দেওয়ার প্রত্যয় নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল সারাবাংলা ডটনেট। আমি আশা করব, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে সেই লক্ষ্য ধরে রেখেই সারাবাংলা তাদের যাত্রা অব্যাহত রাখবে।

সারাবাংলার প্রকাশক বদরুল আলম খান বলেন, সারাবাংলা কখনো দ্রুত সংবাদ পরিবেশনের প্রতিযোগিতা করতে গিয়ে অনির্ভরযোগ্য তথ্য পরিবেশন করেনি। সে কারণেই মানুষের কাছে সারাবাংলা নির্ভরযোগ্য একটি স্থান করে নিয়েছে। পাঠকের কাছে সারাবাংলার যে বিশ্বাসযোগ্যতা, সেটিই আমাদের প্রাপ্তি। এই প্রাপ্তিকে ধরে রেখেই আমরা এগিয়ে যাব।

বিজ্ঞাপন

৫-এ পা সারাবাংলার— আমাদের আনন্দের দিন

সানিয়া বিনতে মাহতাব বলেন, তরুণ সংবাদকর্মীদের নিয়ে গড়ে উঠেছে সারাবাংলা ডটনেট। সারাবাংলা তাই যেমন তরুণ প্রজন্মের প্রতিনিধি হবে, তেমনি সব বয়সের এবং সব শ্রেণিপেশার মানুষের কাছে আস্থার নাম হয়ে থাকবে বলেই আমাদের প্রত্যাশা।

বিজ্ঞাপন

জিটিভির এডিটর ইন চিফ সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা সারাবাংলার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে শুভেচ্ছা জানান। তিনি বলেন, অনলাইনের এই যুগে দ্রুত সংবাদ পরিবেশনের নামে অনির্ভরযোগ্য তথ্য প্রকাশের অসুস্থ প্রতিযোগিতায় না নেমে সারাবাংলা বস্তুনিষ্ঠতা ধরে রাখবে— এটি কেবল সারাবাংলার কাছে প্রত্যাশা নয়, দাবি।

৫-এ পা সারাবাংলার— আমাদের আনন্দের দিন

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলার ব্যবস্থাপনা সম্পাদক রফিকউল্লাহ রোমেল বলেন, একটি গণমাধ্যমের জন্য চার বছর বড় কোনো সময় নয়। এই সময়কে শৈশবকাল বলা চলে। এর মধ্যেও সারাবাংলা মানুষের কাছে সংবাদের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে যতটুকু পৌঁছেছে, সেটি আনন্দের কথা। তবে আমরা এতে আত্মতৃপ্তিতে ভোগার অবকাশ নেই। পাঠকদের এই আস্থাকে আমরা অনুপ্রেরণা হিসেবে নিয়ে সামনে এগিয়ে যাব।

সারাবাংলার পাঁচ বছরে পদার্পণ উপলক্ষে বাহারি বেলুন আর ফুল দিয়ে সজ্জিত করা হয় নিউজ রুম। প্রতিদিন কাজের ভার নিয়ে যে কক্ষটিতে এক হন সারাবাংলার কর্মীরা, সোমবার দিনভর সেখানে ছিল উৎসবের ভিন্ন এক আমেজ। ঝুম বৃষ্টি উপেক্ষা করে সকাল থেকেই জড়ো হতে থাকেন সারাবাংলার সংবাদকর্মীরা। কেক কাটার পর সেলফি-ফটোশুট ভিন্নমাত্রা এনে দেয় গোটা নিউজরুমে।

৫-এ পা সারাবাংলার— আমাদের আনন্দের দিন

সারাবাংলার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ অভিনন্দন বার্তা দিয়েছেন। তাদের শুভকামনাকে পুঁজি করে সারাবাংলার সংবাদকর্মীরাও ‘সারাবাংলা সারাক্ষণ’ স্লোগান ধারণ করে এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় জানান।

সারাবাংলা/একে/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন