বিজ্ঞাপন

ঘর বানানোর টাকা জোগাড়ে ‘অন্যের ঘরে’ চুরি

January 14, 2022 | 7:31 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রাম নগরীতে এক প্রবাসীর বাসায় চুরির ঘটনায় দম্পতিসহ চার জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারের পর তাদের তথ্যে চুরি যাওয়া সোনার অলংকার, সৌদি মুদ্রাসহ বিভিন্ন মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে। গ্রেফতার দম্পতি পুলিশকে জানিয়েছে, চুরি করা সোনার অলংকার বিক্রির টাকায় তারা গ্রামে একটি ঘর তৈরির পরিকল্পনা করেছিলেন।

বিজ্ঞাপন

দুই সপ্তাহ আগে নগরীর বায়েজিদ বোস্তামি থানার তুলাতলী এলাকায় এ চুরির ঘটনা ঘটে। এরপর ১০ জানুয়ারি সাইফুল ইসলাম (২২) নামে একজনকে গ্রেফতার করে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ।

তার দেওয়া তথ্যে বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) রাতে গ্রেফতার করা হয় আরও তিন জনকে। এরা হলেন— মো. সাইফুদ্দিন (৩২) ও তার স্ত্রী রুমা আক্তার (৩৮) এবং মো. আলম (২৪)।

বিজ্ঞাপন

বায়েজিদ বোস্তামি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুজ্জামান সারাবাংলাকে জানান, গত ২৫ থেকে ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে তুলাতলী এলাকায় এক সৌদিপ্রবাসীর তালাবদ্ধ বাসায় চুরির ঘটনা ঘটে। ১৯ ভরি সোনার অলংকার চুরির অভিযোগে তার ছেলের দায়ের করা মামলা তদন্তে নেমে শনাক্ত করা হয় সাইফুলকে। গত ১০ জানুয়ারি রৌফাবাদ থেকে সাইফুলকে গ্রেফতারের পর রিমান্ডে নেওয়া হয়। জিজ্ঞাসাবাদে সাইফুল আরও তিন জনের জড়িত থাকার তথ্য দেয়।

বৃহস্পতিবার রাতে নোয়াখালীর চরজব্বার থেকে সাইফুদ্দিন ও রুমাকে আটক করা হয়। এরপর তাদের রিমান্ডে থাকা আসামি সাইফুলের মুখোমুখি করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তিন জনের অভিন্ন তথ্যে রৌফাবাদে সাইফুল ও আলমের বাসা এবং নোয়াখালীর চরজব্বারে সাইফুদ্দিনের বাড়ি থেকে মোট ১৩ ভরি সোনার অলংকার, দুই হাজার সৌদি রিয়াল ও ইমিটিশনের আরও কিছু গহনা উদ্ধার করা হয়।

বিজ্ঞাপন

ওসি কামরুজ্জামান বলেন, ‘গ্রেফতার চার জনই পেশাদার চোর। গৃহকর্মীর বেশে ঘুরে ‍ঘুরে রুমা চুরির জন্য বাসা টার্গেট করে। এরপর তার স্বামী ও সাইফুল মিলে চুরি করে। আর চুরি করা জিনিস বিক্রি করে আলম। সাইফুদ্দিন ও রুমা জানিয়েছে, সর্বশেষ সৌদিপ্রবাসীর বাসা থেকে চুরি করা সোনার অলংকার বিক্রি করে তারা গ্রামে একটি ঘর নির্মাণের পরিকল্পনা নিয়েছিল। প্রতিবার তারা চুরির পর পালিয়ে নোয়াখালী চলে যায়।’

সারাবাংলা/আরডি/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন