বিজ্ঞাপন

অনেক পক্ষ মিলেমিশে গেছে, তবু জয় সুনিশ্চিত: আইভী

January 14, 2022 | 5:12 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে অনেক পক্ষ মিলে তাকে হারানোর চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, আমাকে হারানোর জন্য এখানে অনেক পক্ষ এক হয়ে গেছে। এরা ঘরেরও হতে পারে, বাইরেরও হতে পারে। কীভাবে আমাকে হারানো যায়, সেটি সবাই মিলেমিশেই চেষ্টা করে যাচ্ছে। তারপরও আমি মনে করি, আমার জয় সুনিশ্চিত।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) সকালে নারায়ণগঞ্জের দেওভোগ এলাকায় নির্বাচনি প্রচারণার শেষ দিনে নিজ বাসভবনে এক ব্রিফিংয়ে আইভী এসব কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

২০০৩ সালে নারায়ণগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। পৌরসভা বিলুপ্ত হওয়ার আগ পর্যন্ত তিনিই মেয়র পদে ছিলেন। পরে ২০১১ সালে নারায়ণগঞ্জকে সিটি করপোরেশনে উন্নীত করার পর প্রথম ভোট হয়। দলীয় প্রতীক ছাড়াই অনুষ্ঠিত সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সমর্থন ছাড়াই জয় পান ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। পরে ২০১৬ সালে প্রথম দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হয় নাসিকে। সেই নির্বাচনেও বিএনপি প্রার্থীকে হারিয়ে জয় পান তিনি। এবার টানা তৃতীয়বারের মতো নারায়ণগঞ্জের নগরপিতা হওয়ার লড়াইয়ে রয়েছেন তিনি।

নির্বাচনে অনেক পক্ষ বিরুদ্ধে কাজ করলেও জয় সুনিশ্চিত জানিয়ে আইভী বলেন, কিছু লোক সহিংসতা করার চেষ্টা করছে। তারা ঘর-বাহির বোঝে না। তাদের একটাই চেষ্টা, কীভাবে নির্বাচন ঘিরে বিশৃঙ্খলা তৈরি করা যায়। তবে এসব করে লাভ নেই। কারণ আমার বিজয় সুনিশ্চিত।

বিজ্ঞাপন

নারী ও তরুণ ভোটারদের রায় তার পক্ষেই আসবে জানিয়ে আইভী বলেন, আমি বারবারই বলে আসছি— ভোটের দিন উৎসবমুখর থাকতে হবে। কারণ আমার নারী ভোটাররা যেন আসতে পারে। আমার তরুণ (ইয়াং) ভোটাররা যেন আসতে পারে। কারণ আমি ভালো করেই জানি, এই ভোটগুলো আমার। আমি নির্বাচনে জিতবই ইনশাল্লাহ।

জনগণকেই নিজের মূল শক্তি বলে মনে করেন সেলিনা হায়াৎ আইভী। আর জনসম্পৃক্ততার কারণেই আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা তাকে নৌকার প্রার্থী করেছেন বলে মন্তব্য করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

আইভী বলেন, কেন্দ্রীয় নেতারা নারায়ণগঞ্জ নির্বাচনে দায়িত্ব পালন করছেন। তাদের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে বলছি, আইভী কীভাবে রাজনীতি করে, আইভী কীভাবে ভোটারদের কাছে যায়— এগুলো উনারা না জানলে প্রধানমন্ত্রী আমাকে নৌকা দিতেন না। আইভী মানুষের কাছে যায়, ঘরে ঘরে যায়— এটা জানেন বলেই প্রধানমন্ত্রী আমাকে নৌকার প্রার্থী করেছেন। প্রধানমন্ত্রীও জানেন, জনগণই আমার শক্তির উৎস। তাই আমি জনগণের কাছেই বারবার ফিরে যাই।

প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ করেননি জানিয়ে আইভী বলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা এবং মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারা আছেন। তারা কী করছেন, তা জানার জন্য কেন্দ্রীয় নেতারা আসতে পারেন। বিশেষ করে আমরা ঢাকার একদম সঙ্গে বলেই হয়তো তারা আসছেন এবং পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন। তবে আমার প্রতিপক্ষ প্রার্থীর পক্ষেও কিন্তু বিভিন্ন জেলা-উপজেলা থেকে অনেকেই আসছেন। আমি তাদের নামে কোনো অভিযোগ করিনি। তারা তাদের মতো কাজ করুক, আমি আমার মতো কাজ করে যাব।

বিজ্ঞাপন

এবারের নির্বাচনকে আগের দুইবারের নির্বাচনের চেয়েও বেশি চ্যালেঞ্জিং বলে অভিহিত করলেন নাসিকে নৌকা প্রতীকের এই মেয়র প্রার্থী। তা সত্ত্বেও জয়ের বিষয়ে তিনি শতভাগ আশাবাদী। আর জয় পেলে আগের দুই মেয়াদের মতোই জনগণের চাহিদা অনুযায়ীই কাজ করবেন বলে জানান তিনি।

সারাবাংলা/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন