বিজ্ঞাপন

লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে জিতব: তৈমুর

January 16, 2022 | 9:01 am

গোলাম সামদানী, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

নারায়ণগঞ্জ থেকে: চলমান নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে জয় পাবেন বলে আশাবাদ জানিয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈমুর আলম খন্দকার। তিনি বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু হলে লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করব। আমি নির্বাচনে জয়ের বিষয়ে আশাবাদী।

বিজ্ঞাপন

রোববার (১৬ জানুযারি) সকাল ৮টা ২৫ মিনিটে ভোট দিয়ে বের হয়ে কেন্দ্রের বাইরে অপেক্ষমাণ সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। এদিন সকাল ৮টায় নাসিক নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জের এই সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে সাত জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে তৈমুর আলম খন্দকার ভোটে স্বতন্ত্র প্রার্থী। তবে তিনি বিএনপি নেতা। দলটি এই নির্বাচনে অংশ না নেওয়ায় তিনি স্বতন্ত্র হিসেবে ভোট করছেন। এ কারণে দলের সব পদ থেকেই তাকে অব্যাহতি দেওয়া হচ্ছে। ভোটে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী তিনি।

বিজ্ঞাপন

লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে জিতব: তৈমুর

রোববার সকালে ভোট শুরুর পরপরই নিজের ভোটটি দিয়ে দেন তৈমুর আলম খন্দকার। ভোট কেমন হচ্ছে— এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, অল্প কিছুক্ষণ হলো ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। ফলে নির্বাচন কেমন হচ্ছে, এই মুহূর্তে এ বিষয়ে মন্তব্য করা যাচ্ছে না। ভোট দেওয়ার সময় এনআইডি কার্ডের মূলকপি রাখা বাধ্যতামূলক নয় বলে আমাকে পুলিশ জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এসময় একটি কেন্দ্রে এজেন্ট ঢুকতে না দেওয়ার অভিযোগ করে তৈমুর বলেন, সিদ্ধিরগঞ্জের পাওয়ার হাউজ কেন্দ্রের ৬ নম্বর ভোটকক্ষে প্রিজাইডিং অফিসার আমার এক এজেন্ট হেলালকে ঢুকতে দেয়নি। কর্মীরা আমাকে বিষয়টি জানিয়েছে। খবর খবর জানার পর আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করেছি। তারা বিষয়টি দেখছেন বলে জানিয়েছেন।

এর আগে সকাল ৮টায় নারায়ণগঞ্জ আদর্শ স্কুল পরিদর্শন করেন তৈমুর আলম খন্দকার। কেন্দ্রটি পরিদর্শন শেষে তার পাশের কেন্দ্র নারায়ণগঞ্জ ইসলামিয়া কামিল মাদরাসায় সকাল ৮টা ২৫ মিনিটে ভোট দেন স্বতন্ত্র প্রার্থী অডভোকেট তৈমুল আলম খন্দকার। তার ভোটার নম্বর ১৭৬৪। তিনি এই কেন্দ্রের ৬ নম্বর কক্ষে ভোট দেন। কেন্দ্রটিতে মোট ভোটার ৩ হাজার ২৮৭ জন।

বিজ্ঞাপন

এক প্রশ্নের জবাবে তৈমুর বলেন, নির্বাচনি এলাকায় এনআইডি কার্ড ছাড়া চলাফেরা করতে দেওয়া হবে না— প্রশাসনের এমন বক্তব্যে ভোটাররা বিভ্রান্ত হয়েছেন। তবে আমি বিভিন্ন ভোটকেন্দ্রে দায়িত্বরত পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা আমাকে জানিয়েছেন, এটি বাধ্যতামূলক নয়। এটি নিয়ে ভুল বোঝাবুঝি তৈরি হয়েছিল। তাই শুধু ভোটার নম্বর সম্বলিত কাগজ আনলেই ভোটাররা ভোট দিতে পারবেন।

একই কথা বললেন নারায়ণগঞ্জ আদর্শ স্কুল ভোটকেন্দ্রে দায়িত্বরত পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেন। তিনি সারাবাংলাকে বলেন, ভোট দিতে হলে এনআইডি কার্ডের প্রয়োজন নেই। কেবল এনআইডি নম্বর থাকলেই ভোট দেওয়া যাবে। এক্ষেত্রে পুলিশ সব ধরনের সহযোগিতা করছে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জিএস/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন