বিজ্ঞাপন

রোমাঞ্চকর ম্যাচে হ্যাজার্ডের গোলে কোপা দেল রে’র কোয়ার্টারে রিয়াল

January 21, 2022 | 2:48 am

স্পোর্টস ডেস্ক

নির্ধারিত ৯০ মিনিটে ফলাফল না আসায় খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। এরপর ম্যাচের ১০২ মিনিটের মাথায় লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন মার্সেলো। পরের মিনিটেই ফ্রিকিক থেকে দুর্দান্ত এক গোল করে লিড নেয় এলচে। এতেই শঙ্কা জাগে ১০ জনের রিয়াল এই ম্যাচে আর ফিরতে পারবে তো? এর ঠিক পাঁচ মিনিট পরে ড্যানিয়েল সেবায়োসের অ্যাসিস্ট থেকে ইস্কো গোল করে লস সমতায় ফেরায় রিয়ালকে। আর ১১৫তম মিনিটে ডেভিড আলাবার পাস থেকে গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করেন এডেন হ্যাজার্ড।

বিজ্ঞাপন

রিয়ালের হয়ে শেষবার এডেন হ্যাজার্ড গোলের দেখা পেয়েছিলেন ২০২১ সালের মে মাসে সেভিয়ার বিপক্ষে। এরপর দীর্ঘ ৮ মাস পর আবারও লস ব্ল্যাঙ্কোসদের জার্সিতে গোল করলেন এডেন হ্যাজার্ড। এবারে কোপা দেল রে'র শেষ ষোলর লড়াইয়ে এলচের বিপক্ষে গোল করে দলকে নিয়ে গেলেন কোয়ার্টার ফাইনালে।

রোমাঞ্চকর ম্যাচে হ্যাজার্ডের গোলে কোপা দেল রে’র কোয়ার্টারে রিয়াল

বিজ্ঞাপন

খাতা-কলমে এলচের চেয়ে বেশ এগিয়ে রিয়াল। তবে সদ্য স্প্যানিশ সুপার কাপজয়ী রিয়ালের পচা শামুকে পা কাটার অভ্যাসটা নতুন নয়। এলচের বিপক্ষে নিয়মিত একাদশের সাত খেলোয়াড়কে বাইরে রেখে একাদশ সাজান কার্লো আনচেলোত্তি। যার মাশুল প্রায় গুনতে হয়েছিল এই ইতালিয়ানকে।

থিবো কোর্তোয়া, ফারল্যান্ড মেন্ডি, মিলিতাও, দানি কার্ভাহাল, লুকা মদ্রিচ, ক্যাসেমিরো এবং করিম বেনজেমাকে ছাড়া সাজানো একাদশ প্রথম থেকেই ছন্ন ছাড়া ফুটবল খেলতে থাকে। টানা ম্যাচ খেলার ধকল যে ভালোভাবেই গ্রাস করেছে ভিনিসিয়াস জুনিয়রকে তা বেশ স্পষ্টত তার খেলাতেই।

বিজ্ঞাপন

এলচেকে কোণঠাসা করা তো দূরের কথা উল্টো ম্যাচের ১২ মিনিটেই গোল হজম করতে বসেছিল রিয়াল। মার্সেলোর ভুলে রিয়ালের ডি বক্সের সামনে বল পেয়ে যায় এলচে। লুকাস পেরেজ বল পেয়ে ক্যারিললোকে পাস করেন কিন্তু ফাঁকা গোলমুখে বল পেয়েও তা গোলবারে লাগান ক্যারিললো।

রোমাঞ্চকর ম্যাচে হ্যাজার্ডের গোলে কোপা দেল রে’র কোয়ার্টারে রিয়াল

বিজ্ঞাপন

প্রথমার্ধে রিয়াল বেশ কিছু সুযোগ তৈরি করলেও গোলের দেখা পাওয়া হয়নি। প্রথমার্ধের মতো দ্বিতীয়ার্ধেও রিয়াল গোলের সুযোগ তৈরি করলেও গোলের দেখা পায়নি। দুই দলের কেউই জালের দেখা খুঁজে না পাওয়ায় ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। আর খেলার রোমাঞ্চ শুরু হয় ওই অতিরিক্ত সময়েই।

অতিরিক্ত সময়ের ছয় মিনিটের মাথায় এলচের দারুণ ফ্রিকিক ঝাপয়ে পড়ে ঠেকান রিয়াল গোলরক্ষক লুনিন। এর দুই মিনিট পরে দারুণ এক প্রতি-আক্রমণে ভিনিসিয়াসকে বল বাড়ান ইস্কো। ভিনিসিয়াস বল নিয়ে এগিয়ে গিয়ে তা বাড়িয়ে দেন ক্যাসেমিরোর উদ্দেশে কিন্তু ১৫ গজ দূর থেকে দুর্বল এক শটে বল বাইরে পাঠিয়ে দেন এই ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার।

বিজ্ঞাপন

এরপর ম্যাচের ১০২ মিনিটের মাথায় ডি বক্সের সামনে এলচের মোরেন্তেকে ফাউল করেন মার্সেলো। আর তাতেই সরাসরি লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন রিয়াল অধিনায়ক। মার্সেলোর ফাউল থেকে পাওয়া ফ্রিকিক থেকে দুর্দান্ত এক গোল করেন গঞ্জালো ভারদু। ভারদুর ফ্রিকিক যদিও ক্যাসেমিরোর পায়ে লেগে দিক পাল্টে জড়ায় জালে। ম্যাচের তখনও বাকি আরু প্রায় ১৭ মিনিট। আর অতিরিক্ত সময়ের প্রথমার্ধ ১-০ গোলের লিড নিয়ে শেষ করে এলচে।

রোমাঞ্চকর ম্যাচে হ্যাজার্ডের গোলে কোপা দেল রে’র কোয়ার্টারে রিয়াল

অতিরিক্ত সময়ের দ্বিতীয়ার্ধ থেকে অলআউট অ্যাটাকে যায় রিয়াল। ইস্কো, ভিনিসিয়াস, এডেন হ্যাজার্ড এবং লুকা মদ্রিচরা বাকি সময়ের পুরোটাই কাটিয়েছে এলচের ডি বক্সের ঠিক আশেপাশেই। আর এমন আক্রমণাত্মক খেলার ফল আসে ১০৮ মিনিটের মাথায়। ১০ জনের রিয়াল আক্রমণে ওঠে ক্যাসেমিরোর বাই লাইন ধরে বল নিয়ে যাওয়ার মাধ্যমে। এলচের ডি বক্সের বাঁ দিক থেকে মাঝ বরাবর সেবায়োসের দিকে দুর্দান্ত এক পাস দেন ক্যাসেমিরো। বল পেয়ে সজোরে শট নেন সেবায়োস। তার শট ডি বক্সের ভেতর থাকা ইস্কোর পায়ে লেগে দিক পাল্টে জড়ায় জালে। আর তাতেই রিয়াল ফেরে ম্যাচে।

ম্যাচ জিততে মরিয়া রিয়াল আরও বেশি আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে। ১১৫তম মিনিটে এবার প্রতি আক্রমণে বাঁ দিক থেকে ডেভিড আলাবা হ্যাজার্ডকে দেখতে পেয়ে দারুণ এক বল বাড়ান। আলাবার বাড়ানো বল পেয়ে দারুণ ক্ষীপ্রতার সঙ্গে এলচের ডি বক্সে ঢুকে পড়েন হ্যাজার্ড। এরপর এলচের গোলরক্ষককে কাটিয়ে ঠান্ডা মাথায় বল জালে পাঠিয়ে দলকে ২-১ গোলের জয় এনে দেন বেলজিয়ান এই তারকা ফরোয়ার্ড।

শেষ পর্যন্ত এডেন হ্যাজার্ডের গোলেই জয় নিয়ে কোপা দেল রে'র কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করে লস ব্ল্যাঙ্কোসরা।

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন