বিজ্ঞাপন

মুসলিম হওয়ায় মন্ত্রিত্ব হারাতে হয়েছিল— অভিযোগ ব্রিটিশ এমপির

January 23, 2022 | 3:51 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মুসলিম হওয়ার কারণে মন্ত্রিত্ব হারাতে হয়েছিল বলে অভিযোগ করেছেন যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্ট সদস্য নুসরাত ঘানি। শনিবার (২২ জানুয়ারি) সানডে টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ অভিযোগ করেন।

বিজ্ঞাপন

সাক্ষাৎকারে নুসরাত ঘানির কাছে ২০২০ সালে তার মন্ত্রিত্ব হারানোর কারণ সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়েছিল। জবাবে ব্রিটিশ কনজারভেটিভ পার্টির সদস্য নুসরাত জানান, সেসময় মন্ত্রিত্ব হারানোর কারণ জানতে চাইলে পার্টির হুইপ তাকে বলেছিলেন, তার মুসলিম হওয়া একটি সমস্যা হিসেবে উত্থাপিত হয়েছিল। মুসলিম নারী হিসেবে তার মন্ত্রিত্ব সহকর্মীদের অস্বস্তিতে ফেলেছিল।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে ৪৯ বছর বয়সী নুসরাতকে পরিবহন মন্ত্রণালয়ের জুনিয়র মন্ত্রী থেকে বরখাস্ত করা হয়। এর কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে চিফ হুইপ তাকে হুঁশিয়ার করে বলেন, মন্ত্রিত্ব হারানো বিষয়ে অস্থির হয়ে উঠলে তাকে বহিষ্কার করা হবে এবং এতে তার ক্যারিয়ার এবং খ্যাতি ধ্বংস হয়ে যাবে। চিফ হুইপের এমন হুঁশিয়ারির পর তিনি সে সময় বিষয়টি নিয়ে আর কোনো কথা বলেননি বলে দাবি করেন নুসরাত।

বিজ্ঞাপন

সাক্ষাৎকারে নুসরাত আরও দাবি করেন, যখন তিনি ব্যাখ্যা চেয়েছিলেন তখন তাকে বলা হয়েছিল তিনি দলের প্রতি অনুগত ছিলেন না, কারণ ইসলামফোবিয়ার অভিযোগের বিরুদ্ধে দলকে রক্ষা করার জন্য তিনি যথেষ্ট কাজ করেননি।

তবে নুসরাত ঘানির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন কনজারভেটিভ পার্টির চিফ হুইপ মার্ক স্পেন্সার। তিনি দাবি করেন, নুসরাত ঘানির অভিযোগগুলো সম্পূর্ণ মিথ্যা। মার্ক স্পেন্সার নুসরাত ঘানির দাবিগুলোকে মানহানিকর বলেও বর্ণনা করেন।

বিজ্ঞাপন

নুসরাতের অভিযোগের ব্যাপারে ব্রিটিশ ক্যাবিনেট মন্ত্রী নাদিম জাহাভি তদন্ত দাবি করেছেন। এদিকে স্কাই নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ব্রিটিশ আইনমন্ত্রী ডমনিক রাব নুসরাত ঘানির অভিযোগকে অত্যন্ত গুরুতর বলে উল্লেখ করেছেন। তবে ব্রিটিশ আইনমন্ত্রী বলেছেন, নুসরাত ঘানি আনুষ্ঠানিক অভিযোগ না করা পর্যন্ত আনুষ্ঠানিক তদন্ত হবে না।

সারাবাংলা/আইই

বিজ্ঞাপন

Tags: ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন