বিজ্ঞাপন

‘মাশরাফি সকলের জন্য অনুপ্রেরণা’

January 25, 2022 | 7:59 pm

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

ক্রিকেটের বাইরে ছিলেন এক বছরেরও বেশি সময় ধরে। এদিকে বয়স ৩৮ পেরিয়েছে। ফিটনেসও আগের মতো ছিল না। এতোকিছু মোকাবিলা করে প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে পারফরর্ম করা চাট্টিখানি কথা নয়। তবে মাশরাফি বিন মুর্তজা তো কঠিন চ্যালেঞ্জ জেতেন বরাবরই, এবারও তাই হলো।

বিজ্ঞাপন

২০২০ সালে জাতীয় দল থেকে ছিটকে যান। সেবছরেরই ডিসেম্বরে খেলেছিলেন সর্বশেষ প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট। বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে। তারপর কোভিড, চোট এবং বিভিন্ন ব্যস্ততা নিয়ে ক্রিকেট আর খেলা হয়নি মাশরাফির। অবসর না নিলেও মাশরাফি যে আবারও ক্রিকেটে ফিরবেন সেটাই হয়তো মানতে পারছিলেন না অনেকে। কিন্তু কথা মতো ঠিকই ফিরে এসেছেন।

এবারের বিপিএলকে করেছিলেন পাখির চোখ। বিপিএলের কারণে ওজন কমিয়েছিলেন পাক্কা ১২ কেজি। অনুশীলনে ঘাম ঝরিয়ে নিজেকে তৈরি করেছেন। কিন্তু বিপিএলের আগ মুহূর্তে ঘটে বিপত্তি। নতুন করে চোটে পড়েন সাবেক সফল অধিনায়ক। মাংসপেশির সেই চোটে বিপিএলে নিজেদের প্রথম তিন ম্যাচ খেলতে পারেননি অবশ্য কিন্তু মাশরফি ফিরে এসেছেন ঠিকই।

বিজ্ঞাপন

আজ মিনিস্টার ঢাকার হয়ে খেলতে নেমে ৪ ওভার বোলিং করে ২১ রান খরচায় ২ উইকেট নিয়েছেন। সিলেট সানরাইজার্সের বিপক্ষে দলের হারের দিনে ঢাকার সেরা পারফরমার মাশরাফি। বোলিংয়ে সেই চেনা মাশরাফিকেই দেখা গেল আজ। আঁটসাঁট লাইন লেংথ, নতুন বলে সুইং, পুরনো বলে কাটার- সবই করে দেখালেন মাশরাফি। মনে করিয়ে দিচ্ছিলেন নিজের চেনা রূপকেই।

ম্যাচ শেষে মিনিস্টার ঢাকার অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ বলছিলেন, এভাবে মাশরাফির ফিরে আসাটা সকলের জন্যই অনুপ্রেরণার। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি এটা আমাদের জন্য অনেক বড় প্রেরণা। মাঠে ফিরতে নিজের ফিটনেস এবং বোলিং স্কিল নিয়ে তিনি কঠোর পরিশ্রম করছিলেন। এক বছরের বেশি সময় পর মাঠে ফিরেছেন। দুটি উইকেট পেয়েছেন।’

বিজ্ঞাপন

মাশরাফিকে নিয়ে খুশি থাকলেও দলকে নিয়ে অবশ্য অখুশি মাহমুদউল্লাহ। হওয়ারও কথা। চতুর্থ ম্যাচে আজ তৃতীয় হার দেখল ঢাকা। প্রথমে ব্যাটিং করে আজ মাত্র ১০০ রান তুলতে পেরেছেন ঢাকার শক্ত ব্যাটিং লাইনআপ। মাহমুদউল্লাহ বলছিলেন, ‘দলগত পারফরম্যান্সে আমি খুবই হতাশ আজ। আমরা এই ম্যাচটা জিতে পয়েন্ট টেবিলে সমতা আনতে চেয়েছিলাম। কিন্তু পারিনি। এ জন্য আমাদের প্রত্যেককে আবারও এক হতে হবে। উন্নতির জায়গাগুলো খুঁজতে হবে। বিশেষ করে ব্যাটসম্যানদের দায়িত্ব নিতে হবে। কঠোর পরিশ্রম করতে হবে।’

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন