বিজ্ঞাপন

মাহাথিরকে নিয়ে গুজব না ছড়াতে যোগাযোগ মন্ত্রীর অনুরোধ

January 25, 2022 | 9:37 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী ডা. মাহাথির মোহাম্মদের স্বাস্থ্যগত অবস্থা সম্পর্কে কোনো গুজব না ছড়ানোর অনুরোধ জানিয়েছেন সেদেশের যোগাযোগ ও মাল্টিমিডিয়া মন্ত্রী  তান শ্রী আনুয়ার।

বিজ্ঞাপন

জনসাধারণের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে টুইটারে এক পোস্টে মন্ত্রী বলেছেন, ‘শুধুমাত্র সরকার, চিকিৎসক ও মাহাথির মোহাম্মদের পরিবারের কোনো সদস্যের দেওয়া তথ্য ছাড়া অন্য সকল অনির্ভরযোগ্য সূত্রের খবর পরিহার করুন। দয়া করে মাহাথির মোহাম্মদের পরিবারের বর্তমান অবস্থাকে সম্মান করুন।’

উল্লেখ্য যে, গত ৭ জানুয়ারি অসুস্থ হয়ে পড়ায় প্রথম দফায় হাসপাতালে নেওয়া হয় মাহাথির মোহাম্মদকে। ১৩ জানুয়ারি তিনি সেখান থেকে বাড়ি ফেরেন। পরে ২২ জানুয়ারি অসুস্থ হওয়ায় আবারও তাকে ন্যাশনাল হার্ট ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। তাকে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) রাখা হয়েছে। মাহাথিরের এর আগে ১৯৮৯ ও ২০০৭ সালে দুই দফা বাইপাস সার্জারি হয়েছিল।

বিজ্ঞাপন

গত ২২ জানুয়ারি থেকে মাহাথিরের স্বাস্থ্য সম্পর্কে সামাজিক মাধ্যমে একের পর এক ভুয়া খবর ছড়িয়ে পড়েছে। অনেকেই মাহাথির মোহাম্মদের মৃত্যু হয়েছে বলে প্রচার করছেন। এসব খবরে মালয়েশিয়ার জাতীয় হার্ট ইনস্টিটিউটের সামনে জড়ো হয়েছেন বর্ষীয়ান এ রাজনীতিবিদের বহু ভক্ত-সমর্থক।

এদিকে মাহাথির মোহাম্মদের মেয়ে ল্যাংকাউই আসনের এমপি দাতিন পাদুকা মেরিনা সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, তার বাবার অবস্থা স্থিতিশীল। জাতীয় হার্ট ইনস্টিটিউটে ফলোআপ চিকিৎসায় তিনি ভালো সাড়া দিচ্ছেন।

বিজ্ঞাপন

ড. মাহাথির মোহাম্মদের জন্ম ১৯২৫ সালের ১০ জুলাই। দীর্ঘ রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে তিনি ১৯৮১ সালে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণ করেন। তার নেতৃত্বে ক্ষমতাসীন দল পর পর পাঁচবার সংসদ নির্বাচনে জয়ী হয়ে সরকার গঠন করে। তিনি এশিয়ার সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ধরে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। ২০০৩ সালের ৩০ অক্টোবর তিনি স্বেচ্ছায় প্রধানমন্ত্রীর পদ ছেড়ে দেন। অবসর গ্রহণের দীর্ঘ পনের বছর পর ৯২ বছর বয়েসে প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের ব্যাপক দুর্নীতি সংশ্লিষ্টতার কারণে মাহাথির মোহাম্মদ আবারও আসেন রাজনীতিতে। ২০১৮ সালের ৯ মে অনুষ্ঠেয় সাধারণ নির্বাচনে জয়ের পরদিন ১০ মে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন তিনি। তবে ২০২০ সালে ক্ষমতা ছাড়েন তিনি। বর্তমানে তার বয়স ৯৬ বছর।

আরও পড়ুন- মাহাথিরের শেষ লড়াই— এর পরে কী?

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আইই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন