বিজ্ঞাপন

‘শিশুবক্তা’ মাদানীর বিচার শুরু

January 26, 2022 | 1:39 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: আলোচিত ‘শিশুবক্তা’ রফিকুল ইসলাম মাদানী বিরুদ্ধে গাজীপুরের গাছা থানায় র‍্যাবের দায়ের করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় চার্জগঠন করেছেন আদালত। চার্জগঠনের মধ্যে দিয়ে মামলাটির বিচার আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হলো।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (২৬ জানুয়ারি) দুপুরে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আসসামছ জগলুল হোসেনের আসামির অব্যাহতির আবেদন না মঞ্জুর করে চার্জগঠনের আদেশ দেন। একইসঙ্গে আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি সাক্ষ্য গ্রহণের তারিখ ধার্য করেন।

জানা যায়, মাদানীকে গত ৭ এপ্রিল নেত্রকোনায় তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে র‍্যাব। এ সময় তার কাছ থেকে চারটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। এসব মোবাইল ফোনে বেশ কিছু বিদেশি পর্নভিডিও পাওয়া যায়। পরদিন তাকে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের গাছা থানায় হস্তান্তর করে র‍্যাব। পরে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। র‍্যাব-১ মামলাটির তদন্ত করে।

বিজ্ঞাপন

মামলার এজাহারে বলা হয়, রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রাষ্ট্রবিরোধী উস্কানিমূলক ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। তিনি আদালতে এসব অভিযোগ স্বীকার করেছেন।

গাজীপুর মহানগরীর বোর্ডবাজারের কলমেশ্বর এলাকায় একটি কারখানা চত্বরে গত ১০ ফেব্রুয়ারি এক ওয়াজ মাহফিলে সরকারকে কটাক্ষ করে বক্তব্য দিয়েছিলেন রফিকুল ইসলাম মাদানী। ওই ঘটনায় ৭ এপ্রিল দিবাগত রাত গাছা থানায় র‍্যাব-১-এর ডিএডি আবদুল খালেক বাদী হয়ে মামলা করেন। ওই মামলায় রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৫, ২৮ ও ৩১ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে। যেখানে ধর্মীয় মূল্যবোধ ও অনুভূতিতে আঘাত করে আক্রমণাত্মক ও মিথ্যা ভীতি প্রদর্শন, তথ্য-উপাত্ত ইলেকট্রনিকস বিন্যাসে প্রকাশ ও সম্প্রচার করে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি ঘটানোর অপরাধের কথা বলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরুদ্ধে গত ২৫ মার্চ বিক্ষোভকালে ঢাকার মতিঝিল এলাকা থেকে রফিকুল ইসলাম মাদানীকে আটক করেছিল পুলিশ। পরে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। ওই ঘটনার মামলায় তাকে আসামি করা হয়নি।

সারাবাংলা/এআই/এএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন