বিজ্ঞাপন

৯ জেব্রার মৃত্যুর কারণ খুঁজতে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি

January 27, 2022 | 12:29 am

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: গাজীপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে ২২ দিনে ৯টি জেব্রার মৃত্যুর কারণ খুঁজতে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু বিষয়ক মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সঞ্জয় কুমার ভৌমিককে আহ্বায়ক করে গঠন করা এই কমিটিকে ১০ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (২৬ জানুয়ারি) পরিবেশ, বন ও জলবায়ু বিষয়ক মন্ত্রণালয় এক আদেশে এ কমিটি গঠন করে। কমিটির সদস্য সচিব করা হয়েছে মন্ত্রণালয়ের উপসচিব (পরিবেশ-২) মোহাম্মদ আব্দুল ওয়াদুদ চৌধুরীকে। বাকি সদস্যরা হলেন— জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের প্রধান ড. মোহাম্মদ মনিরুল হাসান খান, বন্যপ্রাণী ও বন সংরক্ষক অঞ্চল আগারগাঁওয়ের বন সংরক্ষক এবং কেন্দ্রীয় পশু হাসপাতালের সাবেক চিফ ভেটেরিনারি অফিসার ডা. এ বি এম শহীদুল্লাহ।

কমিটি গঠনের উদ্দেশ্য প্রসঙ্গে বলা হয়, কমিটি জেব্রাগুলো মৃত্যুর প্রকৃত কারণ উদঘাটন করবে। এ ঘটনায় সাফারি পার্কের দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের কোনো গাফলতি রয়েছে কি না— তা চিহ্নিত করবে। এ ধরনের ঘটনা যেন ভবিষ্যতে না ঘটে, সেজন্য সুপারিশও দিতে বলা হয়েছে কমিটিকে।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন- ‘ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণ-মারামারিতে ৯ জেব্রার মৃত্যু’

তদন্ত স্বার্থে প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে জ্ঞানসম্পন্ন যেকেনো ব্যক্তিকে কো-অপ্ট করার সুযোগও দেওয়া হয়েছে কমিটিকে। আর তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দিতে কমিটিকে ১০ কার্যদিবস সময় দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, গত ২ জানুয়ারি থেকে ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত সময়ে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে ৯ জেব্রার মৃত্যু হয়। নেতিবাচক পরিস্থিতির কথা ভেবে পার্ক কর্তৃপক্ষ এ খবর প্রকাশ করেনি। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে তুমুল সমালোচনা হয়। মঙ্গলবারই (২৫ জানুয়ারি) পরিবেশ ও বনমন্ত্রী জানান, এ ঘটনা তদন্তে কমিটি করা হবে।

আরও পড়ুন- সাফারি পার্কে ৯ জেব্রার মৃত্যুর ঘটনা তদন্ত করবে বন মন্ত্রণালয়

বিজ্ঞাপন

এর মধ্যেই মঙ্গলবার বিকেলে সাফারি পার্কের ঐরাবতি বিশ্রামাগারে মৃত্যুর কারণ উদঘাটনে প্রাণী বিশেষজ্ঞ এবং গবেষক দলের এক বৈঠকের পর সংবাদ সম্মেলন করা হয়। সেখানে বলা হয়, ৯ জেব্রার মধ্যে পাঁচটির মৃত্যু হয়েছে ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণে। বাকি চারটি জেব্রা মারা গেছে নিজেদের মধ্যে মারামারি করে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, জেব্রাগুলোর মৃত্যুর পর জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার উপস্থিতিতে ময়নাতদন্ত করা হয়। তাদের বিভিন্ন অঙ্গপ্রত্যঙ্গের নমুনা ঢাকার মান নিয়ন্ত্রণ গবেষণাগার ও ময়মনসিংহের কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণাগারে পাঠানো হয়েছিল। তার প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করেই গবেষকরা সংবাদ সম্মেলনে এগুলোর মৃত্যুর কারণ তুলে ধরেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেআর/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন