বিজ্ঞাপন

মেয়ের সংসার বাঁচাতে মরিয়া রজনীকান্ত

January 27, 2022 | 1:32 pm

এন্টারটেইনমেন্ট ডেস্ক

১৮ বছরের দাম্পত্য সম্পর্কে ইতি টানবার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দক্ষিণী সুপারস্টার ধানুশ তার স্ত্রী ঐশ্বরিয়া। গত ১৭ জানুয়ারি রাতে সবাইকে চমকে দিয়ে বিচ্ছেদের এই ঘোষণা দিয়েছিলেন তারা। উল্লেখ্য, দক্ষিণী ও বলিউড মহাতারকা রজনীকান্তের কন্যা ঐশ্বরিয়ার সাথে ২০০৪ সালে বিয়ে হয় ধানুশের। যাত্রা আর লিঙ্গ নামে তাদের দুই ছেলেও আছে।

বিজ্ঞাপন

জানা যায়, সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের আলাদা হওয়ার সিদ্ধান্তের খবর শেয়ার করার সময় বাড়ি থেকে বেশ দূরে ছিলেন এই তারকা জুটি। হায়দরাবাদে একটা শ্যুট চলছিল। এর আগে ধানুশের বাবা ‘পারিবারিক ঝগড়া’ বলে উড়িয়ে দিয়েছিলেন ডিভোর্সের খবর। এবার শোনা যাচ্ছে মেয়ে-জামাইকে এক করতে হাল ধরেছেন দক্ষিণের সুপারস্টার রজনীকান্ত স্বয়ং।

বিজ্ঞাপন
মেয়ের সংসার বাঁচাতে মরিয়া রজনীকান্ত
ঐশ্বরিয়া-ধানুশ

শোনা যাচ্ছে, মেয়ে-জামাইয়ের বিচ্ছেদের খবর গভীরভাবে প্রভাব ফেলেছে রজনীকান্তের উপর। তাই তিনি দুইজনের সঙ্গেই কথা বলছেন, যাতে তারা বিষয়টি মিটমাট করে নেয়। ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমে রজনীকান্ত ঘনিষ্ঠ এক সূত্র জানিয়েছেন, ‘মেয়ের ঘর ভেঙে যাওয়া রজনীকান্তের উপর মারাত্মক প্রভাব ফেলেছে। তিনি জোর দিচ্ছেন যাতে এই আলাদা হয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত সাময়িক হয়। মেয়েকে বারবার অনুরোধ করছেন মিটিয়ে নিয়ে বিয়ে ঠিক করার।’ তবে জনসম্মুখে বিচ্ছেদ ঘোষণার পর আদৌ এক হবেন কি না ধানুশ আর ঐশ্বরিয়া সেটা দেখার বিষয় বটে।

বিজ্ঞাপন
মেয়ের সংসার বাঁচাতে মরিয়া রজনীকান্ত
ঐশ্বরিয়া-ধানুশ
বিজ্ঞাপন

এদিকে বিচ্ছেদ ঘোষণার পরেও কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন দু'জনেই। এমনকী, হায়দরাবাদের এক হোটেলেও রয়েছেন। বিভিন্ন সুত্রে জানা গেছে, বিচ্ছেদের কারণ নাকি ধানুশ। কাজের জন্য তিনি এতটাই ব্যস্ত থাকেন যে পরিবারকে সময় দিয়ে উঠতে পারেন না। দুই ছেলে মায়ের কাছেই মানুষ হচ্ছে। রজনীকান্তের মেয়ে ঐশ্বরিয়াও একজন সফল পরিচালক। এখন দেখার পারিবারিক চাপে পরে আবার একসাথে পথ চলা শুরু করেন কি না এই তারকা দম্পতি।

সারাবাংলা/এএসজি

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন