বিজ্ঞাপন

নিয়মিত ওষুধ খেলে কোভিড পরবর্তী উপসর্গে আক্রান্তের আশঙ্কা কমে

January 27, 2022 | 11:32 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমিতদের মধ্যে যাদের অন্য রোগে আক্রান্ত হওয়ার ইতিহাস আছে তারা যদি নিয়মিত ওষুধ সেবন করে থাকেন তবে তাদের পরবর্তী উপসর্গে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কম থাকে। কোমর্বিডিটি যুক্ত করোনা রোগীদের মাঝে যারা ওষুধ সেবন করে না তাদের মাঝে পরবর্তী উপসর্গে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি ৯ গুণ বেশি থাকে।

বিজ্ঞাপন

সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) গবেষণায় এমন তথ্য পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) সংস্থাটির ওয়েবসাইটে এ গবেষণাটি প্রকাশ করা হয়।

বাংলাদেশে কোভিড-১৯ বিশ্ব মহামারির শুরু থেকে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় আইইডিসিআর বিভিন্ন রোগতাত্ত্বিক বিশ্লেষণ, মহামারি তদন্ত ও গবেষণা পরিচালনা করে আসছে বলে জানানো হয় গবেষণা ফলাফল প্রকাশনায়।

বিজ্ঞাপন

গবেষণার ফলাফল হিসেবে জানানো হয়, নিয়মিত ওষুধ সেবনকারীদের কোভিড-১৯ পরবর্তী উপসর্গে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা, যারা নিয়মিত ওষুধ সেবন করেন না তাদের তুলনায় প্রায় ৯ ভাগ পর্যন্ত কমে যায়।

গবেষণায় দেখা যায়, ডায়াবেটিস রোগীদের মধ্যে নিয়মিত ওষুধ সেবনকারীদের কোভিড-১৯ পরবর্তী উপসর্গে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা যারা নিয়মিত ওষুধ সেবন করেন না তাদের তুলনায় প্রায় ৭ ভাগ পর্যন্ত কমে যায়।

বিজ্ঞাপন

গবেষণায় জানানো হয়, উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিস রোগীদের কোভিড-১৯ পরবর্তী উপসর্গে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কমাতে রেজিস্ট্রার্ড চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন মেনে নিয়মিত ওষুধ সেবন করা জরুরি। চলমান গবেষণার মাধ্যমে ভবিষ্যতে কোভিড-১৯ পরবর্তী উপসর্গের ব্যাপারে আরও হালনাগাদ তথ্য পাওয়া যাবে।

দেশে কোভিড-১৯ থেকে সুস্থ হওয়ার এক বছর পরও এ রোগের উপসর্গ পাওয়া যাচ্ছে আক্রান্তদের শরীরে। সেরে ওঠার এক বছর পর ৪৫ শতাংশ মানুষের শরীরে কোভিড-পরবর্তী উপসর্গ দেখা গেছে বলেও উল্লেখ করা হয় গবেষণায়।

বিজ্ঞাপন

গবেষণায় বলা হয়, উপসর্গসহ আক্রান্ত কোভিড-১৯ রোগীদের সুস্থ হওয়ার তিন মাস পর ৭৮ শতাংশের শরীরে, ছয় মাস পর ৭০ শতাংশের, নয় মাস পর ৬৮ শতাংশের ও এক বছর পর ৪৫ শতাংশ মানুষের শরীরে কোভিড-পরবর্তী উপসর্গ দেখা গেছে। উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিসসহ অসংক্রামক রোগে আক্রান্তদের শরীরে কোভিড-পরবর্তী উপসর্গ প্রকাশ পাওয়ার আশঙ্কা দু-তিন গুণ বেশি।

কোভিড-১৯ বিশ্বমারি প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার পাশাপাশি সবাইকে পূর্ণ ডোজ কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন গ্রহণের জন্য আহ্বান জানায় আইইডিসিআর।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসবি/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন