বিজ্ঞাপন

মিরাজ-চট্টগ্রাম কাণ্ড: দুই পক্ষেরই দোষ দেখছে বিপিএল কমিটি

January 31, 2022 | 7:26 pm

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

গতকাল দিনভর চলল নাটক। হঠাৎ অধিনায়কত্ব কেড়ে নেওয়ার অভিমানে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের হয়ে আর বিপিএল না খেলার ঘোষণা দিয়েছিলেন মেহেদি হাসান মিরাজ। টিম হোটেল থেকে বেরিয়েও এসেছিন। কথা বলেছেন সাংবাদিকদের সঙ্গে। পরে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের পক্ষ থেকে মিরাজকে বুঝিয়ে হোটেলে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। খানিক বাদে দলের মালিকের সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলন করে ঢাকায় না ফিরে দলের সঙ্গে থেকে যাওয়ার কথা জানান মিরাজ। কাল দিনভর নাটকের পর আজ চট্টগ্রামের হয়ে খেলতেও নেমেছিলেন মিরাজ। বিপিএলের গভর্নিং কাউন্সিল মনে করছে, এই বিষয় নিয়ে এতোটা জলঘোলা নাও হতে পারত। দুই পক্ষেরই দোষ দেখছে বিপিএল কর্তৃপক্ষ।

বিজ্ঞাপন

গত পরশু সিলেট সানরাইজার্সের সঙ্গে নিজেদের পঞ্চম ম্যাচ খেলেছে চট্টগ্রাম। টুর্নামেন্টের শুরু থেকে অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করতে থাকা মিরাজের বদলে ম্যাচে টস করতে নামেন অভিজ্ঞ নাইম ইসলাম। জানানো হয়, অধিনায়কত্ব করতে চান না মিরাজ।

এদিকে, চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের পক্ষ থেকে আবার জানানো হয়, বিদায়ী প্রধান কোচ পল নিক্সন চলে যাওয়ার আগে অধিনায়কত্ব পাল্টানোর পরামর্শ দিয়ে গেছেন। সেই পরামর্শ অনুযায়ীই মিরাজের বদলে নাইমকে অধিনায়কত্ব দেওয়া হয়েছে। সিলেট ম্যাচের ঘণ্টা তিনেক আগে মিরাজকে অধিনায়কত্ব থেকে ছেটে ফেলার বিষয়টি জানানো হয়। মিরাজ মেনে নিতে পারেননি বিষয়টি।

বিজ্ঞাপন

পরে জানা যায়, নিক্সন অধিনায়কত্ব পরিবর্তন করতে বলেছেন বলে যে দাবি করা হয়েছে সেটা আসলে মিথ্যা। তবে দু’পক্ষের দ্বন্দ্বে যে পরিস্থিতিটি তৈরি হয়েছে সেটা মানতে পারছে না বিপিএল কর্তৃপক্ষ। বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান শেখে সোহেল বলেছেন, কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না।

সোমবার (৩১ জানুয়ারি) মিরপুরে সাংবাদিকদের শেখ সোহেল বলেন, ‘মিরাজেরও এখানে দোষ আছে, ম্যানেজমেন্টেরও দোষ আছে। দুই পক্ষই কিন্তু দোষী সাব্যস্ত হয়। মিরাজও যে কাজটা করেছে এত বড় মাপের খেলোয়াড় হয়ে জাতীয় দলের খেলোয়াড় হয়ে এই টুর্নামেন্টের ভেতরে তার এই ভূমিকাটা রাখা ঠিক ছিল না। তার অপেক্ষা করা উচিত ছিল। যেহেতু আমরা ডিসিপ্লিনারি কমিটি ছিলাম একটু অপেক্ষা করতে পারত। ফ্র্যাঞ্চাইজিরও এখানে সমস্যা আছে। ফ্র্যাঞ্চাইজিকেও ছাড় দেব না। হেয়ারিং হবে কিছুদিনের মধ্যে। দুই পক্ষকে নিয়ে আমরা হেয়ারিং করব। এখানে ফ্র্যাঞ্চাইজিরও ধৈর্য ধরা উচিত ছিল নিজেরা আলাপ করে দুই পক্ষই বোঝাপড়া করে একটা কিছু করতে পারত। এটা এত বড় পর্যায়ে যাওয়ার জিনিস ছিল না।’

বিজ্ঞাপন

বিষয়টি কোনো ভাবেই কাম্য নয় বলেছেন বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক। তিনি বলেন, ‘মিরাজ অধিনায়ক হিসেবে প্রতিটি ম্যাচের আগেই বলছিল ও ওপেন করতে চায়। প্রত্যেকটা ফ্র্যাঞ্চাইজিতো জেতার জন্য দল করে। তাদের একটা নির্দিষ্ট পরিকল্পনা আছে। অবশ্যই এটা পেশাদার ভাবে হ্যান্ডেল করা উচিত ছিল। ও ওপেনিং কেন চাচ্ছে, ওর মতামত কি। কোচ কী বলে, সহকারী কোচ, কম্পিউটার অ্যানালিস্ট, বোলিং কোচ আছে, দলের ম্যানেজার আছে। সবাই মিলে একটা সিদ্ধান্ত নিতে পারতো। কিন্তু জিনিসটা এভাবে হওয়াটা কোন ভাবেই কাম্য নয়। ফ্র্যাইঞ্চাজিও যেভাবে অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দিয়েছে, মিরাজও যেভাবে জৈব সুরক্ষা বলয় ব্রেক করে বাইরে এসে বিবৃতি দিয়েছে ঠিক কোন ভাবেই এটা কাঙ্ক্ষিত নয়। গভর্নিং কাউন্সিল থেকে আমরা যা করতে পারি, আমরাতো টিম ম্যানেজমেন্টের ভেতর ঢুকতে পারি না।’

টুর্নামেন্টের ভাবমূর্তীর কথা চিন্তা করে ভবিষ্যতে এমন কার্মকাণ্ডে ফ্র্যাঞ্চাইজি, খেলোয়াড় কোনো পক্ষকেই ছাড় দেওয়া হবে না বলেছেন মল্লিক, ‘অবশ্যই প্রত্যেককে দায়িত্বশীল আচরণ করতে হবে। যদি সেটা কেউ না করে ভবিষ্যতে সে খেলোয়াড় হোক অথবা ফ্র্যাঞ্চাইজি, আমরা তাকে বিপিএলে রাখবো না। এটাই আমরা করতে পারি। নয়তো আমরা কোনো শাস্তি দিতে পারি। কিন্তু এটাতো কোন সমাধান নয়। আপনাকে এটা দেখতে হবে বড় করে। টুর্নামেন্টের ইমেজের জন্য এটা কিন্তু হ্যাম্পার হয়। আমরা দুই গ্রুপকেই হেয়ারিংয়ের জন্য ডেকেছি। দুইজনের কথাই শুনবো। কালকে কিন্তু আমরা বলাতেই দুই পক্ষ আলোচনা করে এটা সলভ করেছে।'

বিজ্ঞাপন

বিসিবিকে দেওয়া মিরাজের তথ্যের ফারাক ছিল বলেছেন তিনি, ‘আমাদের মিরাজ শুরুতে যে কথা বলেছিল, পরে যে কথা বলেছে সেটার মধ্যে ফারাক ছিলো। পরশুদিন রাতে মিরাজ আমার সাথে যেটা বলেছে, সেখানে সে বলেছে আম্মা অসুস্থ। ও যদি আমাদের ক্লিয়ার করতো, তাহলে আমরা আরও আগেই ইন্টারফেয়ার করতে পারতাম। তাহলে এই মনমানিল্য কিংবা ভুল বোঝাবুঝি আগেই নিরসন করা যেত। এগুলো নিয়েই আমরা ডেকেছি। গত কালকেও আমরা দুই পক্ষকে বলেছি বসে এগুলো সমাধান করতে। সমাধান হয়েছে।'

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের আয়োজনে অনুষ্ঠিত ২০২২ বিপিএলের সবকটি ম্যাচ সরাসরি সম্প্রচার করবে দেশের জনপ্রিয় স্যাটেলাইট চ্যানেল জিটিভি। এছাড়াও বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় অনলাইন প্ল্যাটফর্ম র‍্যাবিটহোলের ওয়েবসাইটে দেখা যাবে বিপিএলের খেলা। অনলাইনে র‍্যাবিটহোলে খেলা দেখতে ব্রাউজ করুন https://www.rabbitholebd.com/

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন