বিজ্ঞাপন

ভুয়া পরোয়ানায় কারাবাস: ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে রুল

January 31, 2022 | 10:15 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ভুয়া গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে সাভারের গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের কৃষি বিভাগের প্রোগ্রাম অফিসার আওলাদ হোসেনকে ৬৮ দিন কারাগারে আটক রাখায় ঘটনায় ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

বিজ্ঞাপন

আদালতের নির্দেশে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) প্রতিবেদনে উঠে আসা ভুয়া গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি ও নথি তৈরির সঙ্গে জড়িত ১০ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

সোমবার (৩১ জানুয়ারি) আওলাদ হোসেনের স্ত্রীর দায়ের করা এক রিটের শুনানি নিয়ে বিচারপতি জাফর আহমেদ ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের সমন্বরয় গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

বিজ্ঞাপন

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী জয়নুল আবেদীন। তার সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী এমাদুল হক বশির। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নওরোজ মো. রাসেল চৌধুরী।

পরে আদেশের বিষয়টি সারাবাংলাকে নিশ্চিত করে আইনজীবী এমাদুল হক বশির বলেন, ‘আওলাদ হোসেন একের পর এক পরোয়ানা মাথায় নিয়ে প্রথমে কক্সবাজার পরে রাজশাহী তারপর বাগেরহাট, শেরপুরের কারাগারে ৬৮ দিন বন্দি ছিলেন। পরে হাইকোর্টের আদেশে তিনি মুক্তি পান।’

বিজ্ঞাপন

একইসঙ্গে এ বিষয়ে সিআইডিকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। পরে সিআইডি তদন্ত করে ভুয়া গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি এবং নথি তৈরিতে আট ব্যক্তির সংশ্লিষ্টতা পায়। তাদের বিরুদ্ধে ভুক্তভোগী বিচারিক আদালতে মামলা দায়ের করলে আসামিদের অনেকেই স্বীকারোক্তিমূলক জবাববন্দি দেন। এরপর মামলার শুনানি শেষে ২০২০ সালের ১৪ অক্টোবর ভুয়া গ্রেফতারি পরোয়ানা প্রতিরোধে সাত দফা নির্দেশনা দিয়ে রায় দেন হাইকোর্ট। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সনম্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

আইনজীবী এমাদুল হক বশির বলেন, ‘সিআইডির প্রতিবেদনে ভুয়া গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি ও তৈরির সঙ্গে জড়িতদের নাম উঠে আসার পর ভুক্তভোগী আওলাদ হোসেনের স্ত্রী শাহনাজ পারভীন ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন। আজ ওই রিটের শুনানি নিয়ে আদালত ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে রুল জারি করেছেন। সিআইডির প্রতিবেদনে উঠে আসা ভুয়া পরোয়ানা জারি ও নথি তৈরির সঙ্গে জড়িত ১০ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।’

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/কেআইএফ/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন