বিজ্ঞাপন

জিপিএ-৫ কম ময়মনসিংহে

February 13, 2022 | 2:47 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

ময়মনসিংহ: এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় সারা দেশে জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা বাড়লেও ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডে তা কমেছে।

বিজ্ঞাপন

কোভিড মহামারীর কারণে বিলম্বিত শিক্ষাবর্ষ শেষে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে হওয়া এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় সারা দেশে পাস করেছে ৯৫ দশমিক ২৬ শতাংশ শিক্ষার্থী; সেখানে ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডে এ হার ৯৫.৭১ শতাংশ।

রোববার (১৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২টায় ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. সামছুল ইসলাম এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, এ বোর্ডের অধীনে এবার জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা সাত হাজার ৬৮৭ জন।

বিজ্ঞাপন

গত বছর এ বোর্ডে জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ১০ হাজার ৪০ জন। অর্থাৎ গত বছরের চেয়ে এবার দুই হাজার ৩৫৩ জন কম জিপিএ-৫ পেয়েছে।

ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আরও জানান, বোর্ডের চার জেলায় ৬৯ হাজার ২১৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছে ৬৬ হাজার ২৫০ জন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞান শাখা থেকে সর্বোচ্চ গ্রেড জিপিএ-৫ পেয়েছেন পাঁচ হাজার ৫৪২ জন, মানবিক শাখা থেকে এক হাজার ৯৮৬ জন ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখার ১৫৯ জন শিক্ষার্থী।
দীর্ঘ অপেক্ষার পর দ্বাদশ শ্রেণির গণ্ডি পেরিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার পর্যায়ে পা রাখতে যাওয়া এই শিক্ষার্থীদের মধ্যে এক লাখ ৮৯ হাজার ১৬৯ জন জিপিএ-৫ পেয়েছে, যা উত্তীর্ণের মোট সংখ্যার ১৩ দশমিক ৭৯ শতাংশ।

বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা বোর্ডে পাসের হার ৯৬ দশমিক ৫২ শতাংশ, যশোর বোর্ডে ৯৮ দশমিক ১১ শতাংশ, সিলেট বোর্ডে ৯৪ দশমিক ৮০ শতাংশ, বরিশাল বোর্ডে ৯৫ দশমিক ৭৬ শতাংশ, কুমিল্লা বোর্ডে ৯৭ দশমিক ৪৯ শতাংশ, দিনাজপুর বোর্ডে ৯২ দশমিক ৪৩ শতাংশ, রাজশাহী ৯৭ দশমিক ২৯ শতাংশ, ময়মনসিংহ বোর্ডে ৯৫ দশমিক ৭১ শতাংশ, চট্টগ্রাম বোর্ডে ৮৯ দশমিক ৩৯ শতাংশ, মাদরাসা বোর্ডে ৯৫ দশমিক ৪৯ ৯২.৮৫ ও কারিগরি বোর্ডে পাসের হার ৯২ দশমিক ৮৫ শতাংশ।

বিজ্ঞাপন

করোনা মহামারির কারণে এবারের এইচএসসি পরীক্ষা অন্যান্য বছরের মতো হয়নি। পরীক্ষা হয় শুধু নৈর্বাচনিক বিষয়ে। আর আবশ্যিক বিষয়ে আগের পাবলিক পরীক্ষার সাবজেক্ট ম্যাপিং করে মূল্যায়নের মাধ্যমে নম্বর দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বাদ দেয়া হয় চতুর্থ বিষয়ের পরীক্ষাও।

এবার ২ হাজার ৬২১টি কেন্দ্রে ৯ হাজার ১৮৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৩ লাখ ৯৯ হাজার ৬৯০ জন পরীক্ষার্থী ছিলেন। এর মধ্যে নয়টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডে পরীক্ষার্থী ছিলেন ১১ লাখ ৩৮ হাজার ১৭ জন। এদের মধ্যে ২ লাখ ৫৪ হাজার ৮৩০ জন বিজ্ঞান, ৬ লাখ ৫৬ হাজার ১৩২ জন মানবিক এবং ২ লাখ ২৭ হাজার ৫৫ জন বাণিজ্য বিভাগের। এ ছাড়া ১ লাখ ১৩ হাজার ১৪৪ জন মাদ্রাসা ও ১ লাখ ৪৮ হাজার ৫০৩ জন কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের শিক্ষার্থী।

বিজ্ঞাপন

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে আয়োজিত এইচএসসির ও সমমানের ফল প্রকাশ অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি এবং শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী (নওফেল)।

সারাবাংলা/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন