বিজ্ঞাপন

বইমেলা চলবে ১৭ মার্চ পর্যন্ত

February 27, 2022 | 1:44 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ফেব্রুয়ারির শেষ দুই সপ্তাহের জন্য চালু হয়েছিল বইমেলা। তবে ইঙ্গিত ছিল, বাড়ানো হবে মেলার মেয়াদ। সেই ঘোষণাই দিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। জানালেন, আগামী ১৭ মার্চ পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে বইমেলার সময়।

বিজ্ঞাপন

রোববার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে সচিবালয়ে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের নিজ দফতরে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। জানান, প্রকাশকসহ বইমেলা সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ আমলে নিয়ে মেলার সময় বাড়ানো হয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেন, মেলা উদ্বোধনের পর জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতি, বিক্রেতা এবং বইমেলার সঙ্গে সম্পৃক্তরা সময় বাড়ানোর দাবি তুলেছিলেন। মেলার সময় বাড়ানো যায় কি না— সে বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন করেন। আমরা তখনই বলেছিলাম, সংক্রমণ কমতে থাকলে বইমেলার সময় বাড়ানোর বিষয়টি বিবেচনা করব।

বিজ্ঞাপন

গত কয়েকদিনে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ আগের চেয়ে অনেকটাই কমে এসেছে। মেলা শুরুর দিন ১৫ ফেব্রুয়ারি স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য বলছিল, আগের ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণ নিয়ে মৃত্যু হয়েছিল ৩৪ জনের। ওই সময়ে নতুন সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছিল ৪ হাজার ৭৪৬ জনের শরীরে। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে সংক্রমণের হার ছিল ১৩ দশমিক ৭৭ শতাংশ। অন্যদিকে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সবশেষ শনিবারের বিজ্ঞপ্তি বলছে, আগের দিন করোনা সংক্রমণ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে ৮ জনের। এই সময়ে নতুন সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে ৭৫৯ জনের শরীরে। সংক্রমণ শনাক্তের হার ৪ দশমিক ১৫ শতাংশ।

এ পরিস্থিতিতে মেলা বাড়ানোর সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী বইমেলার উদ্বোধনী বক্তৃতায় বলেছিলেন— ১৭ মার্চ পর্যন্ত মেলা বাড়ানো যেতে পারে। তবে সেটি নির্ভর করছে কোভিড-১৯ পরিস্থিতির ওপর। আজকের সুসংবাদ হলো— সকালে প্রধানমন্ত্রী মেলার সময় বাড়ানোর অনুমোদন দিয়েছেন। তার অনুমোদনক্রমে ১৭ মার্চ পর্যন্ত বইমেলার সময় বাড়ানো হয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন ১৭ মার্চ। ওই দিন পর্যন্ত বইমেলা চলবে।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, গত বছরের মতোই এ বছরও করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে বইমেলা নিয়ে শঙ্কা দেখা দেয়। শেষ পর্যন্ত গত ১৫ ফেব্রুয়ারি উন্মোচন হয় বইমেলার দ্বার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে মেলা উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনের সময় ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বইমেলা চালু রাখার কথা বলা হয়েছিল। তবে প্রকাশকদের দাবি ছিল, মেলা যেন এক মাস চালানো হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নিজেও এক মাস মেলা চালিয়ে নেওয়ার পক্ষেই মত দিয়েছিলেন। তাতে সবাই ধরে নিয়েছিলেন মেলা বাড়ছে। তারই চূড়ান্ত ঘোষণা আজ দিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/ইএইচটি/এনএস/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন