বিজ্ঞাপন

‘নারীরা বিচার বিভাগে যোগ্যতার স্বাক্ষর রেখে চলেছেন’

April 2, 2022 | 9:04 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বিচার বিভাগের নারীদের সংখ্যাই শুধু বাড়েনি। তারা সেখানে মেধা ও যোগ্যতার স্বাক্ষর রেখে চলেছেন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (২ এপ্রিল) রাজধানীর বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে ‘বাংলাদেশ মহিলা জজ অ্যাসোসিয়েশন’ আয়োজিত প্রধান বিচারপতিকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের ২৩তম প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন আইনমন্ত্রী আসিনুল হক।

অনুষ্ঠানে হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী বলেন, আমি প্রধান বিচারপতি হয়ে খোঁজখবর নিয়ে জেনেছি, আমাদের দেশে অধিকাংশ জুডিশিয়াল কর্মকর্তাই সৎ। যদিও মাত্র হাতে গোনা কয়েকজন অসৎ কর্মকর্তার জন্য জুডিশিয়ারি ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তাহলে তাদের শনাক্ত করব। আর তাদের ক্ষেত্রে আমাদের কোনো আপস থাকবে না।

বিজ্ঞাপন

প্রধান বিচারপতি বলেন, ইতোমধ্যে আমি একটি কমিটি করে দিয়েছি। যারা ভালো করবে তাদের প্রত্যেক বছর ‘প্রধান বিচারপতি’ পদক দেওয়া হবে। এজন্য একটা নীতিমালা করা হয়েছে।

বিচারকদের বদলি এবং পদায়ন প্রসঙ্গে প্রধান বিচারপতি বলেন, বিচারকদের পোস্টিংয়ের জন্য সিনিয়রিটি এবং যোগ্যতা দেখে পোস্টিং দেব। এ ক্ষেত্রে আমরা কোনো কমপ্রোমাইজ করব না। জুডিশিয়ারি সঠিক পথে চলছে এবং চলবে।

তিনি আরও বলেন, একইভাবে পদায়নের জন্য কোনো সিনিয়রিটি ব্রেক করব না। সিনিয়র কোনো বিচারকের বিরুদ্ধে কোনো দুর্নীতির অভিযোগ বা অসততা না থাকে তাহলে আমরা সিরিয়াল ব্রেক করব না। অন্ততপক্ষে আমি যে কয়দিন আছি, এটা মেনে চলার চেষ্টা করব।

বিজ্ঞাপন

হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী বলেন, জনগণের ট্যাক্সের টাকায় আমাদের বেতন হয়। জজদের লক্ষ্য হবে জনগণের আস্থা অর্জন করা। বিচারপ্রার্থী মানুষকে যাতে দিনের পর দিন আদালতের বারান্দায় ঘুরতে না হয়।

প্রধান বিচারপতি বলেন, অধিকাংশ বিচারপ্রার্থী হয় জমি বন্দক রেখে, না হয় হালের গরু বিক্রি করে অথবা গোলার ধান বিক্রি করে আইনজীবীকে টাকা দেন। এখন এসব বিচারপ্রার্থী জনগণ যদি দিনে পর দিন আদালতে ঘুরতে থাকেন তাহলে তারা নিঃস্ব হয়ে যাবেন। এদের যত দ্রুত মুক্তি দেওয়া যায় ততই ভালো, তাদের জন্য এবং জাতির জন্য।

মামলার জট প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যদি প্রচণ্ড ইচ্ছাশক্তি থাকে তাহলে আমরা মামলার জট থেকে উত্তোরণ করতে পারব ইনশাআল্লাহ।

বাংলাদেশ মহিলা জজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শ্রম আপিল ট্রাইব্যুনালের সদস্য বিচারক হোসনে আরা বেগমের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, আপিল বিভাগের বর্তমান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান, বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম, আইন সচিব গোলাম সারোয়ার ও সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল বজলুর রহমান।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/কেআইএফ/এসএসএ

Tags:

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন