বিজ্ঞাপন

রাজাকারদের তালিকা প্রকাশ ও অমুক্তিযোদ্ধাদের গেজেট বাতিলের দাবি

April 3, 2022 | 7:56 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: দ্রুত রাজাকাদের তালিকা প্রকাশ এবং অমুক্তিযোদ্ধাদের গেজেট বাতিলের দাবি জানিয়েছে মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চ। রোববার (৩ এপ্রিল) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে এ দাবি জানায় সংগঠনটির নেতারা।

বিজ্ঞাপন

দ্রুত যাচাই-বাছাইপূর্বক অমুক্তিযোদ্ধাদের গেজেট বাতিল করে একটি চূড়ান্ত স্বচ্ছ তালিকা প্রণয়ন, জামুকায় প্রকৃত বীর মুক্তিযোদ্ধাদেরকে বিভিন্ন অজুহাতে হয়রানি বন্ধ, মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহাল ও রাজাকারদের তালিকা দ্রুত প্রকাশের দাবিতে এ মানবন্ধন আয়োজন করা হয়। মানববন্ধন শেষে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি প্রদান করে তারা।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী বরাবর লেখা ওই স্মারকলিপিতে বলা হয়, স্বাধীনতার ৫০ বছর পেরিয়ে গেলেও আজ পর্যন্ত প্রকৃত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের একটি স্বচ্ছ চূড়ান্ত তালিকা প্রণয়ন করা হয়নি। বিএনপি-জামাতের শাসনামলে গঠিত জামুকায় যাচাই-বাছাইয়ের নামে প্রতিনিয়ত অনেক প্রকৃত বীর মুক্তিযোদ্ধাকে হয়রানি করা হচ্ছে, যা কখনোই কাম্য নয়। জামুকার কতিপয় দুর্নীতিবাজ ও অসাধু কর্মচারী-কর্মকর্তাদের দুর্নীতির কারণে অনেক অমুক্তিযোদ্ধাদেরকে মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে, যা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থী।

স্মারক লিপিতে আরও বলা হয়, বিএনপি-জামাতের শাসনামলে হাজার হাজার অমুক্তিযোদ্ধাকে মুক্তিযোদ্ধা গেজেট তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল। তাদের নাম আজ পর্যন্ত বাদ দেওয়া হয়নি। আবার নতুন করে যাচাই-বাছাইয়ের কারণে অনেক অমুক্তিযোদ্ধার নাম মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে, যা সমাজে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করছে।

বিজ্ঞাপন

সম্প্রতি হঠাৎ করে ১৭ হাজার মুক্তিযোদ্ধার সম্মানী ভাতা বন্ধ হওয়ায় আরেকটি বিতর্কের জন্ম দিয়েছে। এছাড়াও বারবার দাবি করার পরেও রাজাকারদের তালিকা প্রকাশ করা হয়নি, যা মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তির কাছে কখনোই কাম্য নয়। অত্যন্ত দুঃখের বিষয়, মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তির শাসনামলে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিল হয়েছে।

স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তির দোসরদের আন্দোলনের কাছে নতি স্বীকার করে সরকার মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিল করেছে, যা প্রশাসনকে দিন দিন জামাতিকরণের দিকে ধাবিত করার প্লাটফর্ম হিসেবে কাজ করবে। সুতরাং অবিলম্বে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহাল করে পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নের দাবি করা হয় মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের স্মারকলিপিতে।

স্মারকলিপিতে পাঁচ দফা দাবি তুলে ধরে মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চ। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- দ্রুত যাচাই-বাছাইপূর্বক অমুক্তিযোদ্ধাদের গেজেট বাতিল করে একটি স্বচ্ছ চূড়ান্ত তালিকা প্রণয়ন; বিএনপি-জামাতের শাসনামলে গঠিত জামুকার কতিপয় দুর্নীতিবাজ ও অসাধু কর্মকর্তা কর্মচারীদেরকে অপসারণ; ১ম ও ২য় শ্রেণির চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহাল; রাজাকারদের তালিকা দ্রুত প্রকাশ করে এদের সকল সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত ও নাগরিকত্ব বাতিল করা এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবারের ওপর হামলা, মামলা, হত্যা ও নির্যাতন বন্ধ করার জন্য অবিলম্বে বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবার সুরক্ষা আইন প্রণয়ন করা।

বিজ্ঞাপন

মানববন্ধনে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চের কেন্দ্রীয় নেতা মৌফিশ ইসলাম ও আমিনুল ইসলাম বুলবুলসহ কয়েকশ’ নেতাকর্মী অংশ নেন। তাদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে মানববন্ধনে অংশ নেন বেশ কয়েকজন বীর মুক্তিযোদ্ধাও।

সারাবাংলা/এজেড/পিটিএম

Tags: , ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন