বিজ্ঞাপন

নওয়াজের সঙ্গে দেখা করতে মন্ত্রীদের নিয়ে লন্ডনে শাহবাজ

May 11, 2022 | 9:59 am

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

অন্তত ছয় মন্ত্রীসহ দলের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে লন্ডন গেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। উদ্দেশ্য, বড় ভাই ও পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) শীর্ষ নেতা এবং দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের সঙ্গে সাক্ষাৎ। বড় ভাইয়ের কাছে থেকে রাজনৈতিক পরামর্শ নেবেন, এমনটিই জানানো হয়েছে সদ্যই পাকিস্তানের সরকার গঠন করা দলটির পক্ষ থেকে।

বিজ্ঞাপন

দ্য ডনের খবরে বলা হয়, পাকিস্তানের নবনির্বাচিত প্রধানমন্ত্রীর এই সফরকে ব্যক্তিগত বলা হলেও তা নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। পাকিস্তান যখন রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে, তখন এই সফরকে অনেকেই অদূরদর্শী হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন। ক'দিন আগেই শাহবাজের কাছে ক্ষমতা হারানো তেহরিক-ই-ইনসাফ দলের (পিটিআই) প্রধান ইমরান খানও কঠোর সমালোচনা করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর এই সফরের।

মঙ্গলবার (১০ মে) মধ্যরাতে পিএমএল-এন দলের কেন্দ্রীয় ৯ নেতাকে নিয়ে লন্ডনের পথে রওনা দেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। বুধবার (১১ মে) নওয়াজ শরিফের সঙ্গে সাক্ষাতের কথা রয়েছে তার। লন্ডনে শাহবাজ দুই-তিন দিন অবস্থান করবেন বলে জানানো হয়েছে দলের পক্ষ থেকে।

বিজ্ঞাপন

শাহবাজ শরিফের সফরসঙ্গী হিসেবে এই দলে অন্যদের মধ্যে রয়েছেন পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী খাজা আসিফ, তথ্যমন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেব, পরিকল্পনামন্ত্রী আহসান ইকবাল, জ্বালানিমন্ত্রী খুররম দস্তগীর, অর্থমন্ত্রী মিফতাহ ইসমাইল এবং রেলমন্ত্রী খাজা সাদ রফিক।

দলের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে শাহবাজ শরিফের এই সফর প্রসঙ্গে পিএমএল-এনের কেন্দ্রীয় নেতা ও পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেব বলেন, কেন্দ্রীয় নেতারা দলের শীর্ষ নেতার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে লন্ডন যাচ্ছেন। কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফও রয়েছেন। বিরোধী দলগুলো বিষয়টি নিয়ে জলঘোলা করার চেষ্টা করছে।

বিজ্ঞাপন

এই সফরের সমালোচনা করে সদ্য প্রধানমন্ত্রিত্ব হারানো ইমরান খান বলেন, জনগণের করের টাকায় গোটা মন্ত্রিসভা লন্ডন সফরে যাচ্ছেন একজন 'দুর্নীতি বাজ ও সাজাপ্রাপ্ত' ব্যক্তির সঙ্গে দেখা করতে। একে প্রহসনের সঙ্গে তুলনা করেন তিনি।

পাকিস্তান যখন সাংবিধানিক ও রাজনৈতিক একটি সংকটকাল পার করছে, তখন এই সফরটি কতটা যৌক্তিক— বিরোধী দলগুলোর এমন সমালোচনা প্রসঙ্গে মরিয়ম বলেন, দলের নেতারা পার্টি প্রধান নওয়াজের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। তার কাছ থেকে পরামর্শ নেবেন। এটি একটি রাজনৈতিক প্রক্রিয়া এবং রাজনৈতিক দলগুলোর জন্য এটি কোনোভাবেই অস্বাভাবিক নয়।

বিজ্ঞাপন

ক্ষমতাসীন দলটির সূত্রগুলো বলছে, নওয়াজ শরিফের সঙ্গে মুখোমুখি সাক্ষাতের মাধ্যমে পরামর্শ নেওয়ার প্রয়োজনীয়তা থেকেই শাহবাজ লন্ডন গেছেন। আগাম নির্বাচন, বিরোধী দল পিটিআইকে মোকাবিলা ও পাকিস্তানের দ্রব্যমূল্য পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের মতো গুরুত্বপূর্ণ সব বিষয়ে এই সফর থেকেই সিদ্ধান্ত আসতে পারে বলেও ইঙ্গিত দিয়েছে সূত্রগুলো।

সারাবাংলা/টিআর/এএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন