বিজ্ঞাপন

আবার সরকার গড়তে হবে: আ জ ম নাছির

May 17, 2022 | 8:23 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে আবারও শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠনের প্রত্যয় জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (১৭ মে) বিকেলে নগরীর আন্দরকিল্লায় আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘১৯৮১ সালে জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফিরেছিলেন বলেই স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধের লুণ্ঠিত মূল্যবোধ ও চেতনা পুনরুদ্ধার হয়েছে। প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ভাত ও ভোটের অধিকার। জনগণ মুক্তি পেয়েছে সামরিক স্বৈরাচারের দুঃশাসন থেকে। সর্বোপরি বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর যারা দেশকে পাকিস্তানি ভাবধারায় পরিচালিত করেছিল, তাদের হাত থেকে দেশ মুক্তি পেয়েছে।’

বিজ্ঞাপন

বিএনপি-জামায়াতের সমালোচনা করে চট্টগ্রাম সিটির সাবেক এই মেয়র বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত জোট এ দেশের জনগণ এবং স্বাধীনতার সার্বভৌমত্বের প্রতিপক্ষ অপশক্তি। এরাই দেশের অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়নের ভিত্তি তৈরি করে দিয়েছে। এরাই দেশের সম্পদ বিদেশে পাচার করেছে। বেগম জিয়ার সন্তান পলাতক আসামি তারেক রহমান লন্ডনে বসে অভিজাত এলাকায় ফ্ল্যাট কিনে বিলাসবহুল জীবনযাপন করছেন। মেয়েকে ব্যারিস্টার বানিয়েছেন। অথচ যুক্তরাজ্যে তারেক জিয়ার কোনো বৈধ আয়-রুজি নেই। দেশ থেকে পাচার করে বিদেশে বিশাল সম্পদের পাহাড় গড়েছেন বলেই তারেক জিয়া এসব করতে পেরেছেন।’

আবার সরকার গড়তে হবে: আ জ ম নাছির

বিজ্ঞাপন

আগামী সংসদ নির্বাচনেও বিজয়ের প্রত্যয় ব্যক্ত করে আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘আগামী সংসদ নির্বাচনেও আমাদের বিজয়ী হয়ে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠন করতে হবে। এজন্য চট্টগ্রাম মহানগরীর অধীন ছয়টি সংসদীয় আসনে শেখ হাসিনা যাকেই নৌকার প্রতীক দেবেন, তাকেই বিজয়ী করতে দলের সব স্তরের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।’

সমাবেশে নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দীন চৌধুরী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি ও চিহ্নিত যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করেছেন। তাদের অনেকের শাস্তি কার্যকর হয়েছে। কিন্তু এখনো যারা স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তিকে পুনর্বাসিত করেছে, তাদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছে, তাদের বিচারের মুখোমুখি করা যায়নি। সেটা হয়নি বলেই বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব এখনো নিরাপদ নয়।’

বিজ্ঞাপন

নগর কমিটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন সহসভাপতি নঈম উদ্দীন চৌধুরী, চসিকের সাবেক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন, সহসভাপতি আলতাফ হোসেন চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, হাসান মাহমুদ হাসনী, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য হাসান মাহমুদ শমসের, শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, চন্দন ধর, মশিউর রহমান চৌধুরী, নির্বাহী সদস্য বিজয় কিষাণ চৌধুরী, বখতেয়ার উদ্দীন খান, নেছার উদ্দীন আহমদ।

সমাবেশ শেষে আনন্দ র‌্যালি নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে দারুল ফজল মার্কেটে দলীয় কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আরডি/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন