বিজ্ঞাপন

‘নরসিংদীর ঘটনার পেছনে রাজনৈতিক এজেন্ডা রয়েছে’

May 21, 2022 | 7:21 pm

ঢাবি করেসপন্ডেন্ট

নরসিংদীতে জিন্স ও টপস পরায় তরুণীকে মারধরের ঘটনার পেছনে রাজনৈতিক এজেন্ডা রয়েছে। এই ঘটনা কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। শনিবার (২১ মে) বিকেলে সাড়ে রাজধানীর শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে অনুষ্ঠিত এক প্রতিবাদ সমাবেশে এসব কথা বলেন বক্তারা।

বিজ্ঞাপন

‘নিপীড়নেরের বিরুদ্ধে শাহবাগ’ নামে সংগঠনের আয়োজনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন থেকে হেনস্তাকারী নারী ও তার সহযোগীদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন বক্তারা। পাশাপাশি প্রগতিশীল জাতি তৈরিতে পাড়া-মহল্লায় সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপনের দাবি জানানো হয়।

নরসিংদীর ঘটনাকে সাংস্কৃতিক আগ্রাসনের সমত্যুল্য উল্লেখ করে উন্নয়নকর্মী ও কলামিস্ট মুশফিকা লাইজু সমাবেশে বলেন, ‘বিষয়টি সহজ নয়, এটি একটি সাংস্কৃতিক আগ্রাসনের মতো। ধর্মান্ধগোষ্ঠী নারীদের প্রশিক্ষণ দিয়ে নারীদের বিরুদ্ধে লাগিয়ে বোঝাতে চাইছে যে, শুধু তারা না, নারীরাও নারীদের বিপক্ষে। মনে করা হচ্ছে নারীরা নারীদের বিরুদ্ধে। আসলে নারীরা নারীদের বিরুদ্ধে লাগে না, পুরুষতন্ত্র নারীদের বিরুদ্ধে লাগে। যখন কোনো নারী হিজাব পরে, তখন আমরা বলি এটা তাদের চয়েজ। কিন্তু তারা আমাদের পছন্দ দেখেন না। আমরা রাষ্ট্রকে ও প্রশাসনকে বলব— আপনার এই ধরনের বিষয়গুলোতে শাস্তি নিশ্চিত করুন।’

বিজ্ঞাপন

যুব ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক খান আসাদুজ্জামান মাসুম বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় বাহিনী কর্তৃক নারীরা যখন নির্যাতিত তখন রাষ্ট্রীয় বাহিনীর বাইরে তারা আরও আস্ফালন পায়। তারই ধারাবাহিকতায় নরসিংদীর এই ঘটনা। এটি কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। হিজাব পরিহিত ওই নারীর সঙ্গে ওই কুলাঙ্গার (ঘটনায় জড়িত) পুরুষদের একটি যোগসূত্র আছে। এভাবে দাঁড়াতে আমাদের ইচ্ছে করে না। কারণ আমরা বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছি। প্রতিদিন কোনো না কোনো নারী নিপীড়নের শিকার হচ্ছেন।’

সমাবেশে অ্যাডভোকেট জীবন জয়ন্ত বলেন, ‘বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে এই ধরনের কর্মকাণ্ড করে নারীকে দমিয়ে রাখার কোনো সুযোগ নেই। যে নারীর রক্ত ও সম্ভ্রমের বিনিময়ে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে, যে বাংলাদেশে নারীর রাজনীতি ও অর্থনীতি অগ্রগতিতে নারী অগ্রণী ভুমিকা পালন করছে, সে বাংলাদেশে নারীকে ঘরে আটকে দেওয়ার জন্য যে চেষ্টা চলছে তা কোনোদিনও সফল হবে না।’

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, ‘কোনো ব্যাক্তি বা গোষ্ঠি শালীনতা-অশালীনতা নির্ধারণ করে দিতে পারে না। এমনকি রাষ্ট্রও পারে না। এই ধরনের ঘটনায় নীরব থেকে হয়ত নির্বাচনি বৈতরণী পার হওয়া যেতে পারে, কিন্তু বাংলাদেশের অর্থনীতি ও সাংস্কৃতিক, সামাজিক মুক্তির জন্য যে কার্যক্রম পরিচালনা করা দরকার, সেটি অন্তত করা যাবে না।’

সমাবেশে অন্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন নারী আন্দোলনের নেত্রী শাশ্বতী বিপ্লব, ডা. মুজাহিদুল ইসলাম রিপনসহ অনেকে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/আরআইআর/এসএসএ

বিজ্ঞাপন

Tags:

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন