বিজ্ঞাপন

মিরপুরে দ্যুতি ছড়ালেন সাকিব

May 26, 2022 | 7:30 pm

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম টেস্টের দুই ইনিংসেই বল হাতে শ্রীলংকানদের ভীতি ছড়িয়েছেন সাকিব আল হাসান। ঢাকা টেস্টে সাকিবের প্রভাবটা আর বেশি। নিয়মিত দুর্দান্ত বোলিংয়ে ঢাকা টেস্টের প্রথম ইনিংসে পাঁচ উইকেট ‍তুলে নিয়েছেন। ৬০ টেস্টের ক্যারিয়ারে বাংলাদেশের বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের এটা ইনিংসে ১৯তম পাঁচ উইকেট।

বিজ্ঞাপন

সাকিব আল হাসাানকে পাচ্ছে তো বাংলাদেশ, চলতি শ্রীলংকা সিরিজের আগে এমন শঙ্কাই জাগছিল বেশি করে। পরিবারের সঙ্গে ইদের ছুটি কাটিয়ে সাকিব যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরেছিলেন সিরিজ শুরুর কয়েক দিন আগে। দেশে ফিরে করোনা পরীক্ষায় হলেন পজিটিভ। বাংলাদেশ-শ্রীলংকা সিরিজের মেডিক্যাল প্রটকল বলছে, কোনও ক্রিকেটার করোনায় আক্রান্ত হলে তাকে অন্তত পাঁচ দিন আইসোলেশনে থাকতে হবে।

সাকিব করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর পঞ্চম দিন ছিল চট্টগ্রাম টেস্ট শুরু হওয়ার দিন। সে হিসেবে চট্টগ্রাম টেস্টে খেলার সম্ভবনা দেখা হচ্ছিল শূন্য। করোনায় আক্রান্ত হলে শারীরিকভাবে দুর্বল হয়ে যাওয়া বাস্তবতাটা ভেবে শঙ্কা জাগছিল ঢাকা টেস্টেও সাকিব খেলতে পারবেন কিনা।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু প্রত্যাশার চেয়ে দ্রুত সেরে উঠে মাত্র ৪০ মিনিটের অনুশীলনে চট্টগ্রাম টেস্ট খেলতে নেমে বাজিমাত করেছিলেন সাকিব। দুই ইনিংস মিলিয়ে তুলে নিয়েছিলেন ৪ উইকেট। ঢাকায় ফিরে আরও ভয়ঙ্কর বাংলাদেশের বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। মিরপুর টেস্টে গতকাল দিমুথ করুনারত্নে অসাধারণ এক ডেলিভারিতে সরাসরি বোল্ড করেছেন। বলাবলি হচ্ছে, সাকিবের ওই ডেলিভারিটি প্রয়াত অজি কিংদন্তি শেন ওয়ার্নকে মনে করিয়ে দিয়েছে।

সব মিলিয়ে ৪১.১ ওভার বোলিং করে ১১ মেডেনে ৮৬ রান করে পাঁচ উইকেট নিয়েছেন। অথচ  ২০২১ সালের ডিসেম্বরে পাকিস্তান টেস্টের পর থেকে লাল বল বলতে গেলে হাতেই নেননি। সাদা বলের ক্রিকেটও নিয়মিত খেলেননি। করোনার ধকল কাটানো শরীরে এই সিরিজ খেলতে হচ্ছে অল্প অনুশীলনে।

বিজ্ঞাপন

দিন শেষে সংবাদ সম্মেলনে সাকিব যা বললেন তার অর্থ বোলিংয়ে অতো বেশি অনুশীলন তার দরকারও পরে না! এতো অল্প অনুশীলনে এমন ভালো বোলিং সম্পর্কে সাকিবের মন্তব্য, ‘বোলিং একটা জিনিস যেটাতে আমার আত্মবিশ্বাস লেভেল সব সময়ই ভাল থাকে। আর আমি তো সিরিজের আগে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে চারটা ম্যাচ খেলেছি, সেটা সাহায্য করেছে। আর এতদিন একটা ক্রিকেটার খেলার পরে ১০-১৫ দিনের ক্যাম্প বা লম্বা ট্রেনিং সেশন আসলে লাগে না। এরকম সময়ে একটা ক্রিকেটারের জন্য তিন-পাঁচটা সেশনই যথেষ্ট।’

অনেকদিন পর ইনিংসে পাঁচ উইকেটের দেখা মিলল সাকিবের। সর্বশেষ ২০১৮ সালের জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে পাঁচ উইকেট পেয়েছিলেন। ইনিংসের হিসেবে পাঁচ উইকেট পেলেন ১২ ইনিংস পরে। সেটা স্মরণ করিয়ে দিলে উত্তর দিলেন, সময় লম্বা হলেও এই সময়ে তিনি টেস্ট খেলেছেন কয়টি!

বিজ্ঞাপন

‘হ্যাঁ, অনেকদিন পর পাঁচ উইকেট পেলাম। কিন্তু দেখেন এই সময়ে টেস্ট খেলেছিই কয়টা, খুব বেশি টেস্ট খেলা হয়নি।’ পরিসংখ্যান বলছে ২০১৮ সালের জুলাইয়ের পর থেকে মাত্র ছয়টি টেস্ট খেলেছেন সাকিব।

আজ ক্যারিয়ারে ১৯ পাঁচ উইকেট নিয়ে টেস্ট ক্রিকেটে সর্বোচ্চ পাঁচ উইকেট নেওয়া স্পিনারদের তালিকায় সেরা দশে উঠে এলেন সাকিব। বাংলাদেশি বোলারদের মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১০ বার পাঁচ উইকেট নিয়েছেন তাইজুল ইসলাম। মেহেদি হাসান মিরাজ নিয়েছেন ৭ বার।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন