বিজ্ঞাপন

রোববারের মধ্যে অবৈধ ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক বন্ধ না হলে ব্যবস্থা

May 28, 2022 | 5:10 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: দেশে অনিবন্ধিত ও নবায়নহীন অবস্থায় পরিচালিত অবৈধ বেসরকারি ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধে ৭২ ঘণ্টার সময় বেঁধে দিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদফতর। বেঁধে দেওয়া সেই সময় অর্থাৎ রোববারের (২৯ মে) মধ্যে যেসব অবৈধ বেসরকারি ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ হবে না, সেসবের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (২৮ মে) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবীর সারাবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘ইতোমধ্যেই বিভিন্ন স্থানে সিভিল সার্জন ও স্বাস্থ্য সেবা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা এ সব বিষয়ে পদক্ষেপ নিচ্ছেন। আশা করছি দ্রুতই ফলাফল জানানো সম্ভব হবে।’

হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের লাইসেন্স বাতিল বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (হাসপাতাল ও ক্লিনিক) ডা. মো. বেলাল হোসেন বলেন, ‘অবৈধ ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধে নিয়মিত আমাদের অভিযান চলছে। ৭২ ঘণ্টা শেষ হলে আমরা বসব। নিবন্ধনের কতটা অগ্রগতি হয়েছে, অবৈধ কতগুলো ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ হয়েছে, আমরা তা দেখব। এরপর সে অনুযায়ী বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ও সিভিল সার্জনসহ সংশ্লিষ্ট যারা আছেন, তাদের সঙ্গে বসে পরবর্তী সিদ্ধান্ত ও ব্যবস্থা নেব।’

বিজ্ঞাপন

এ পর্যন্ত কতগুলো ক্লিনিক বন্ধ হয়েছে?— জানতে চাইলে পরিচালক বলেন, ‘রোববার পর্যন্ত তাদের সময় দেওয়া হয়েছে। সেই সময়ের পর আমরা তথ্য জানিয়ে দেবো।’

ডা. বেলাল হোসেন বলেন, ‘সারা বাংলাদেশে কতগুলো অবৈধ ক্লিনিক ডায়াগনস্টিক সেন্টার আছে, সেই তথ্য আমাদের কাছে নেই। নিবন্ধনের জন্য আবেদন করলে, সেক্ষেত্রে আমরা বলতে পারি যে, এতগুলো আবেদন এসেছে, এতগুলো লাইসেন্স দেওয়া হয়েছে, এতগুলো ওয়েটিংয়ে আছে। তবে যারা আবেদনই করেনি, তাদের তথ্য আমরা জানব কী করে?’

বিজ্ঞাপন

তালিকা ছাড়া অভিযান কোন উপায়ে পরিচালনা করা হচ্ছে?— জানতে চাইলে তিনি আরও বলেন, ‘অবৈধগুলোর নির্দিষ্ট তালিকা না থাকলেও বৈধদের তালিকা জেলা সিভিল সার্জনদের কাছে রয়েছে। ধরুন নরসিংদী জেলায় ৫০টি নিবন্ধিত ক্লিনিক ডায়াগনস্টিক সেন্টার রয়েছে। সেই তালিকটি কিন্তু ওই জেলার সিভিল সার্জনের কাছে রয়েছে। এর বাইরে যেগুলো রয়েছে, সেগুলো সম্পর্কে অবশ্যই সিভিল সার্জন বলতে পারেন। সে অনুযায়ী আমরা অভিযান পরিচালনা করছি। অভিযানের ক্ষেত্রে সিভিল সার্জনের বড় একটি ভূমিকা রয়েছে।’

এদিকে, চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৪৮ ঘণ্টায় পাঁচটি অবৈধ্য ক্লিনিক বন্ধ করা হয়েছে। এই জেলায় শতাধিক ক্লিনিকের মধ্যে মাত্র ৫৪টির লাইসেন্স নবায়ন করা আছে। এছাড়া নাটোরে ১২টি, চট্টগ্রামে ছয়টি বেসরকারি ক্লিনিক ও চারটি ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

উল্লেখ্য, বুধবার (২৫ মে) অবৈধ ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলো নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় দেশের বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলোর মনিটরিং ও সুপারভিশন বৃদ্ধির বিষয়ে আলোচনা হয়।

সারাবাংলা/এসবি/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন