বিজ্ঞাপন

নেত্রকোনায় রোগীর সঙ্গে বাজে আচরণ, নার্সের বিরুদ্ধে অভিযোগ

June 9, 2022 | 10:10 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

নেত্রকোনা: মদনে সেবা না দিয়ে অসদাচরণের লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে মুক্তা নামের এক নার্সের বিরুদ্ধে। সাকের খান নামের এক ভুক্তভোগী রোগী মদন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কাছে বৃহস্পতিবার (৯ জুন) এই লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

বিজ্ঞাপন

অভিযুক্ত মুক্তা নেত্রকোনার মদন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সিনিয়র স্টাফ নার্স হিসাবে কর্মরত রয়েছেন।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ভুক্তভোগী সাকের খান উপজেলার তিয়শ্রী গ্রামের বাসিন্দা। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় হঠাৎ তার শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে নেবুলাইজার নিতে হাসপাতালে যান তিনি। হাসপাতালের জরুরি বিভাগে মারপিটের রোগী থাকার কারণে লোকজনের ভিড় থাকে। পরে তিনি হাসপাতালের আবাসিকের দায়িত্বে থাকা সিনিয়র স্টাফ নার্স মুক্তার কাছে নেবুলাইজার নিতে যান।

বিজ্ঞাপন

পরে ভর্তির কাগজ না থাকায় ভুক্তভোগী রোগরকে সেবা না দিয়ে অসদাচরণ করেন। শ্বাসকষ্ট আরও বেড়ে যাওয়া তাৎক্ষণিক হাসপাতালের স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে ফোন করা হয়। স্বাস্থ্য কর্মকর্তা সঙ্গে সঙ্গেই সেবা দেওয়ার জন্য নার্স মুক্তাকে মুঠোফোনে নির্দেশ দেন। নির্দেশ দেওয়ার আধা ঘণ্টা পরও সেবা না পেয়ে হতাশ অবস্থায় হাসপাতাল ত্যাগ করেন রোগী।

ভুক্তভোগী রোগী সাকের খান বলেন, ‘আমার শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় নেবুলাইজার দিতে হাসপাতালে যাই। জরুরি বিভাগে রোগীর ভিড় থাকায় সেবা নিতে নার্স মুক্তার কাছে যাই। তখন তিনি জানান ভর্তি হতে হবে। আমি তখন তাকে বলি আমার সহকর্মী জরুরি বিভাগ থেকে চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র নিয়ে আসতেছে। একথা বলার পর তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে আমার সাথে খারাপ আচরণ করেন।’

বিজ্ঞাপন

তিনি আরও বলেন, ‘আমি তখন কোন উপায় না দেখে স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে ফোন করি। সেবা দেওয়ার জন্য স্বাস্থ্য কর্মকর্তা তাৎক্ষণিক নার্সকে নির্দেশ দেন। এ সময় আমার সহকর্মীও জরুরী বিভাগ থেকে চিকিৎসা পত্র নিয়ে আসেন। পরে আধা ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকার পরেও সেবা দেননি নার্স মুক্তা।’

জানতে চাইলে অভিযুক্ত নার্স মুক্তা বলেন, ‘এ বিষয়ে আমি কিছু বলতে চাই না। উনি নিজেই চলে গেলেন। আমার কি দোষ?’

বিজ্ঞাপন

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. হুমায়ূন কবীর জানান, রোগীর ফোন পেয়ে আমি তাৎক্ষণিক সেবা দেওয়ার জন্য নার্সকে নির্দেশ দিয়েছি। নির্দেশ পেয়ে নার্স মুক্তা সেবা না দিয়ে রোগীর সাথে অসদাচরণ করেছে বলে একটি লিখিত অভিযোগ ও পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে তার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সারাবাংলা/এমও

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন