বিজ্ঞাপন

ইদের ১০ দিন রাত ১০টা পর্যন্ত দোকান খোলা রাখতে চায় মালিক সমিতি

June 19, 2022 | 7:17 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয় করতে রাত ৮টার পর সারাদেশের সব দোকানপাট ও শপিং মল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ব্যবসায়ী বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিদের উপস্থিতি শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত এক বৈঠক থেকে এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। সরকারের সিদ্ধান্তের সঙ্গে ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোও দ্বিমত পোষণ করেনি। তবে ইদুল আজহা সামনে রেখে ১০ দিনের জন্য দোকানপাট ও শপিং মল রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা রাখার অনুরোধ জানিয়েছে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি।

বিজ্ঞাপন

রোববার (১৯ জুন) শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ানের উপস্থিতিতে ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর নেতাদের নিয়ে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়। তাতে সিদ্ধান্ত হয়, আগামীকাল সোমবার (২০ জুন) থেকে সারাদেশে রাত ৮টার পর দোকানপাট ও শপিং মল বন্ধ রাখা হবে।

ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মো. হেলাল উদ্দিন। জানতে চাইলে তিনি সারাবাংলাকে বলেন, জ্বালানি সাশ্রয়ের জন্য উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার। প্রধানমন্ত্রী নিজে জ্বালানি সাশ্রয়ের কথা বলেছেন। জ্বালানির জন্য প্রতিদিন ১০০ কোটি টাকা ভর্তুকি দিতে হচ্ছে। যেহেতু সরকার চেয়েছে, বৈঠকের শুরুতেই আমি বলেছি— দোকানপাট বন্ধ রাখতে আমাদের আপত্তি নেই।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন-

ইদের ১০ দিন রাত ১০টা পর্যন্ত দোকান খোলা রাখতে চায় মালিক সমিতি

বিজ্ঞাপন

হেলাল উদ্দিন আরও বলেন, সবার সম্মতিক্রমেই রাত ৮টার পর থেকে দোকানপাট, শপিং মল ও বাজার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত এসেছে। বৈঠকে প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান উপস্থিত ছিলেন। অন্যান্য ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর নেতারাও উপস্থিত ছিলেন।

তবে সামনেই ইদুল আজহা। এ পরিস্থিতিতে ১ জুলাই থেকে ১০ দিনের জন্য রাত ৮টার বিধান কিছুটা শিথিল চান হেলাল উদ্দিন। তিনি বলেন, ইদুল আজহা সামনে রেখে ইদের আগের ১০টি দিন আমরা রাত ৮টার পরিবর্তে রাত ১০টা পর্যন্ত দোকানপাট ও শপিং মল খোলা রাখার দাবি জানিয়েছি। ব্যবসায়ীদের কথা বিবেচনা করে সরকার এই দাবি মেনে নিলে আমরা উপকৃত হব।

বিজ্ঞাপন

দোকান মালিক সমিতির এমন দাবির বিষয়ে জানতে চাইলে শ্রম মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আকতারুল ইসলাম সারাবাংলাকে বলেন, ইদ উপলক্ষ্যে ১ জুলাই থেকে ১০ জুলাই রাত ১০টা পর্যন্ত দোকানপাট খোলা রাখার জন্য ব্যবসায়ীরা যে দাবি করেছেন, মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে তা প্রধানমন্ত্রীর কাছে উপস্থাপন করা হবে।

একই কথা বলেছেন শ্রম প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ানও। তিনি বলেন, উনারা (ব্যবসায়ী প্রতিনিধি) একটি দাবির কথা বলেছেন। আগামী ১০ জুলাই ইদুল আজহা। এ জন্য ১ জুলাই থেকে ১০ জুলাই রাত ১০টা পর্যন্ত দোকানপাট খোলা রাখার দাবি জানিয়েছেন। এই প্রস্তাব আমরা সারসংক্ষেপ আকারে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠিয়ে দেবো।

বিজ্ঞাপন

শ্রম মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যুগ্ম সচিব, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব, শিল্প মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের সচিব (যুগ্ম সচিব), স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের উপসচিবসহ সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া এফবিসিসিআই, বিজিএমইএ, বিকেএমইএ, দোকান মালিক সমিতিসহ বিভিন্ন বাণিজ্য সংগঠনের নেতারাও উপস্থিত ছিলেন।

সারাবাংলা/ইএইচটি/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন