বিজ্ঞাপন

পদ্মা সেতুতে দুর্ঘটনায় নিহত ২ জনের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর

June 27, 2022 | 5:35 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত আলমগীর হোসেন (২৫) ও ফজলু মিয়া (২৫) নামের দুজনের মৃতদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়া পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (২৭ জুন) দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে শাহবাগ থানা পুলিশ মৃতদেহ দুটি হস্তান্তর করেন।

শাহবাগ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) দীপক বালা বলেন, ‘গতকাল পদ্মা সেতুতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত দুজনের মৃতদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। দুজনের পরিবারের আবেদনের পরিপ্রক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়া মৃতদেহ হস্তান্তর করা হয়।’

বিজ্ঞাপন

এদিকে, হাসপাতালে মৃত ফজলু মিয়ার মামাতো ভাই আলী হোসেন জানান, তাদের বাড়ি ঢাকা নবাবগঞ্জের হরিশকুল গ্রামে। বাবা আবু মিয়া অনেক আগেই মাররা গেছেন। মা ফজিলা বেগমকে নিয়ে থাকতেন অবিবাহিত ফজলু। ফজলুর আর কোনো ভাই বোন ছিল না। বেশ কিছুদিন যাবৎ ইরাকে ছিল ফজলু। চার মাস আগে দেশে আসেন তিনি।

আলী হোসেন আরও জানান, গতকাল বিকেলে তার নিজের মোটরসাইকেল নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। কোথায় যাবে তা কাউকে বলে যায়নি। পরিবারের লোকজন রাতে সংবাদ পায়, বন্ধুদের সঙ্গে পদ্মা সেতু দেখতে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছে। পরে ঢাকা মেডিকেলে এসে ফজলুর মৃতদেহ দেখতে পায় তার পরিবার।

বিজ্ঞাপন

মৃত আলমগীরের বড় ভাই রমজান মিয়া জানান, তাদের বাড়ি নবাবগঞ্জেরর শামসাবাদ এলাকায়। তার বাবার নাম চিনু মিয়া। আলমগীর নবাবগঞ্জে মোটর মেকানিকের কাজ করতো। রোববার (২৬ জুন) বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে কাউকে কিছু না বলে বাসা থেকে বের হয়। পরে রাতেই দুর্ঘটনার সংবাদ পান।

এর আগে, রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে পদ্মা সেতুর উপরে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহত হয় ফজলু ও আলমগীর। পরে তাদের একটি পিকআপে করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে এলে রাত সাড়ে ১০টার দিকে চিকিৎসক দু’জনকেই মৃত ঘোষণা করেন।

বিজ্ঞাপন

তাদের দু’জনকে হাসপাতালে নিয়ে আসা বন্ধু জয়দেব রায় জানান, তারা সবাই ঢাকার নবাবগঞ্জ থাকেন। মোটরসাইকেল মেকানিক আলমগীর নবাবগঞ্জের সমসাবাদ এলাকায় থাকেন আর বিদেশ ফেরত ফজলু থাকেন হরিশকুল এলাকায়।

তিনি জানান, পদ্মা সেতু খুলে দেওয়ায় তারা তিনটি মোটরসাইকেলে ছয় বন্ধু ঘুরতে যান। তারা দুটি মোটরসাইকেল নিয়ে আগে চলে যান। আর তাদের পিছনের দিকের মোটরসাইকেলে ছিলেন ওই দু’জন। কিছুক্ষণ পর তাদের মোবাইল ফোনে পেছনের মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার খবর আসে। পরে তারা সেখানে গিয়ে আহত দু’জনকে একটি পিকআপ ভ্যানে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসেন। কিন্তু রাত সাড়ে ১০টার দিকে চিকিৎসক দু’জনকেই মৃত ঘোষণা করেন।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএসআর/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন