বিজ্ঞাপন

এলো ‘কাইজার’- এর ট্রেলার

June 29, 2022 | 6:54 pm

এন্টারটেইনমেন্ট করেসপন্ডেন্ট

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে প্রকাশ করা হল হইচই অরিজিনাল সিরিজ ‘কাইজার’ এর ট্রেলার। বুধবার (২৯ জুন) রাজধানী ঢাকায় একটি প্রেস ইভেন্টে ট্রেলারটি রিলিজ করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সিরিজটির কলাকুশলী, ভক্ত এবং বাংলাদেশের শীর্ষ গণমাধ্যমের সাংবাদিকবৃন্দ। হইচই এ সিরিজটি দেখা যাবে আগামী ৮ জুলাই থেকে। সিরিজটি পরিচালনা করেছেন তানিম নূর।

বিজ্ঞাপন

কাইজার সিরিজে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন আফরান নিশো। অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন রিকিতা নন্দিনী শিমু, মোস্তাফিজুর নূর ইমরান, শঙ্খ জামান, শতাব্দী ওয়াদুদ, সুমন আনোয়ার, ইমতিয়াজ বর্ষণ, সৌম্য জ্যোতি ও শিশুশিল্পী ঋদ্ধি।

এডিসি কাইজার চৌধুরী একজন হোমিসাইড ডিটেকটিভ। সে ভিডিও গেম অ্যাডিক্ট। হোমিসাইড ডিটেকটিভ হলেও সে রক্ত ভয় পায়। অনিয়ন্ত্রিত জীবন-যাপন এবং ভিডিও গেম আসক্তির জন্য তাঁর ব্যক্তিগত জীবন বিপর্যস্ত। ডিপার্টমেন্টেও তাঁর খুব সুনাম নেই। কিন্তু ডিটেকটিভ হিসেবে সে প্রথম শ্রেণীর। তাঁর বুদ্ধিদীপ্ততার জন্যই সে এখনো চাকরিতে বহাল রয়েছে। কাইজারের ছোটবেলার বন্ধু অম্লান (মোস্তাফিজুর নূর ইমরান) এবং তন্ময় (শঙ্খ জামান)। কাইজারের অনিয়ন্ত্রিত জীবনে অভ্যস্ত হতে না পেরে তার স্ত্রী শিরিন (শিমু) কাইজারকে ডিভোর্স দিয়ে অম্লানকে বিয়ে করে। এ ব্যাপারটি কাইজার এখনও মেনে নিতে পারেনি। কাইজারের মেয়ে নিকিতা (ঋদ্ধি) কাইজারকে ‘বাবা’ এবং অম্লানকে ‘আব্বু’ বলে ডাকে যা কাইজারের মেনে নিতে কষ্ট হয়। গেমিং পার্টনার অনন্ত (সৌম্য জ্যোতি) কাইজারের সার্বক্ষনিক সঙ্গী। কাইজারের অসংখ্য দোষ রয়েছে কিন্তু জীবনের গভীরে উঁকি দিলে দেখা যায় সেও একজন সংবেদনশীল মানুষ। গুলশানে একটি ফ্ল্যাটে প্রভাবশালী পরিবারের দুই তরুনীকে নৃশংসভাবে খুন করা হয়। এই জোড়াখুনের রহস্য সমাধানের দায়িত্ব এসে পড়ে এডিসি কাইজারের উপর। এরকম একটি গল্প নিয়েই কাইজার সিরিজটি আবর্তিত হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

কাইজারের ট্রেলার প্রসঙ্গে আফরান নিশো বলেন, “খুব ভাল লাগছে। ফার্স্ট লুক রিভিলের পর দর্শকেরা তা সাদরে গ্রহণ করেছে। ট্রেইলারটা, সর্বোপরি সিরিজটাও দর্শকদের কাছে সমাদৃত হবে বলে আমার বিশ্বাস। কাইজার আমার জন্য বেশ নতুন ধরণের চরিত্র। কাজটা আমি আনন্দের সাথে বেশ আগ্রহ নিয়ে করেছি।”

সিরিজটির পরিচালক তানিম নূর বলেন, “ছোটবেলা থেকে বিভিন্ন গোয়েন্দা গল্প পড়ে বড় হওয়ায় সব সময় আমার ইচ্ছা ছিল বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে একটি গোয়েন্দা চরিত্র তৈরি করার। যেহেতু কাইজার আমার ছোটবেলার অনুপ্রেরণা থেকে নির্মাণ করা একটা সিরিজ, এটা আমার জন্য বেশ বড় একটা চ্যালেঞ্জ ছিল। চ্যালেঞ্জে কতটা সফল হয়েছি সেটা এখন দর্শকেরা ভাল বলতে পারবেন।”

বিজ্ঞাপন

কাইজার সিরিজটি প্রযোজনা করেছে ফিল্ম সিন্ডিকেট।

সারাবাংলা/এজেডএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন