বিজ্ঞাপন

চাকরিপ্রার্থীদের বিনামূল্যে কম্পিউটার শেখাচ্ছে ইশিখন

June 29, 2022 | 7:53 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: দেশের জনসংখ্যাকে জনসম্পদে রূপান্তরিত করতে কম্পিউটার শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই। অথচ আমাদের দেশের অধিকাংশ উচ্চশিক্ষিত তরুণরা কম্পিউটার সম্পর্কে জ্ঞান না থাকায় চাকরি পেতে সমস্যা হচ্ছে। বর্তমানে সরকারি ও বেসরকারি প্রতিটি চাকরির ক্ষেত্রে কম্পিউটার জানা বাধ্যতামূলক। আর এর জন্য চাকরিপ্রার্থীদের পাশে দাঁড়িয়েছে ইশিখন। কম্পিউটার না থাকায় কিংবা বেসিক না জানার কারণে যাদের চাকরি হচ্ছে না, তাদের বিনামূল্যে কম্পিউটার বেসিক জানার সুযোগ দিচ্ছে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (২৯ জুন) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এতে জানানো হয়েছে, ১ হাজার শিক্ষার্থীকে এই সুযোগ দিচ্ছে ইশিখন।

বেসিক কোর্সটিতে অংশগ্রহণ করতে সর্বনিম্ন শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকতে হবে এইচএসসি পাস। এই কোর্সে সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার কাজে ব্যবহৃত ইন্টারনেট, ওয়েবসাইট, সফটওয়্যার, ইমেইল, ফেসবুকে পেজ, মাইক্রোসফট ওয়ার্ড, এক্সেল ইত্যাদি বেসিকগুলো শেখানো হবে।

বিজ্ঞাপন

ইশিখনের সিইও ইব্রাহিম আকবর বলেন, শুধুমাত্র কম্পিউটারের মৌলিক জ্ঞান না থাকায় প্রতি বছর চাহিদা থাকা সত্ত্বেও লাখো তরুণের চাকরি অ্যাপ্লিকেশনে বাদ পড়ে যায়। অন্যদিকে কেবল কম্পিউটারের মৌলিক জ্ঞান ভালো জানায় অনেকের সহজেই চাকরি হয়ে যায় এবং চাকরি ক্ষেত্রে তারা অন্যদের থেকে এগিয়ে থাকে। তাই বেকার সমস্যা দূর করতে এবং দক্ষ জনশক্তি তৈরিতে আবারও ইশিখন এ ধরনের উদ্যোগ নিয়েছে।

আগ্রহীরা ইশিখন পান্থপথ অফিসে এসে কিংবা অনলাইনে নিবন্ধনের মাধ্যমে এই সুযোগটি নিতে পারবেন। অনলাইন নিবন্ধনের জন্য ফর্ম পূরণ করতে হবে ttps://forms.gle/mVo7jv58gbKET6P66 লিংক থেকে।

বিজ্ঞাপন

২০১২ সালে দেশে সর্বপ্রথম অনলাইনে আইটি ও ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ক লাইভ কোর্স প্রশিক্ষণ শুরু করে ইশিখন। অনলাইন প্রশিক্ষণে নিয়োজিত এই প্রতিষ্ঠান থেকে গত ১০ বছরে ৩২ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী অনলাইনে বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ নিয়েছে। এর মধ্যে প্রায় ২০ হাজার শিক্ষার্থীকে বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ দেয় ইশিখন। বাকিদের স্বল্প মূল্যে কোর্স করা সুযোগ দেয় তারা।

করোনা পরবর্তী ২০২২ সালে এসে অনলাইনে পাশাপাশি অফলাইন প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমেও প্রশিক্ষণ প্রদানের উদ্যোগ নেয় ইশিখন। অফলাইনেও প্রতিটি কোর্সে দিচ্ছে ৫০ শতাংশ ছাড় এবং আর্থিকভাবে অস্বচ্ছলদের জন্য রয়েছে বৃত্তির ব্যবস্থা।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/ইএইচটি/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন