বিজ্ঞাপন

‘জঙ্গি নেটওয়ার্ক গুঁড়িয়ে দিয়েছি’

July 1, 2022 | 6:50 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: র‌্যাব মহাপরিচালক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেছেন, ২০১৬ সালের ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজানে হামলার পর গত ছয় বছরে জঙ্গিদের নেটওয়ার্ক গুঁড়িয়ে দিয়েছি। এই মুহুর্তে জঙ্গিদের দেশে কোনো হামলা চালানোর সক্ষমতা নেই। গুলশান হামলার সঙ্গে জড়িতদের বিচারের আওতায় আনা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার (১ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলার ছয় বছর পূর্তিতে নিহতদের স্মরণে ফুল দিতে গিয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন র‍্যাবের ডিজি।

তিনি বলেন, হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলার ঘটনায় তিন বাংলাদেশিসহ ২০ নাগরিক নিহত হন। যারা মারা গেছেন তাদের আত্মার শান্তি কামনা করছি। ওই ঘটনায় দুইজন পুলিশ অফিসার জীবন উৎসর্গ করেছেন। পাশপাশি র‌্যাবের কর্নেল আজাদ সিলেটে জঙ্গি অভিযান চালাতে গিয়ে আত্মহুতি দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

র‌্যাব ডিজি বলেন, হামলার দিন আমরা ১২ ঘণ্টার মধ্যে ওই এলাকার সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিই এবং অভিযান চালানোর মতো পরিবেশে সৃষ্টি করি। ওই হামলার সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জঙ্গি নেটওয়ার্কের লাইভ সম্প্রচার আমরা বন্ধ করি এবং তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা হয়েছে।

হামলার র‍্যাব তিন হাজারের মতো জঙ্গিকে গ্রেফতার করেছে। এর মধ্যে হলি আর্টিজান হামলার পর দেড় হাজার জঙ্গি গ্রেফতার হয়েছে। মূল পরিকল্পনাকারী সরোয়ার জাহান, বিস্ফোরক বিশেষজ্ঞ শরিফুল ইসলাম খালিদ, পরিকল্পনাকারী মামুনুর রশিদকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বাংলাদেশ জঙ্গিবাদ দমনে সফল হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

জঙ্গিবাদবিরোধী অভিযান যেভাবে অন্যান্য দেশের তুলনায় ঈর্ষনীয় সাফল্য দেখিয়েছি তেমনি ধরেও রেখেছি। আমরা দেশি বিদেশি জঙ্গিদের সব নেটওয়ার্ক গুড়িয়ে দিয়েছি। আমরা সবসময় খোঁজ খবর রাখছি। আমরা আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সবাই মিলে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে সোচ্চার রয়েছি।

এরপরও আমরা আত্মতুষ্টিতে ভুগছি না। সব সময় সতর্ক রয়েছি। প্রক্রিয়াটা চলমান রয়েছে, বলেন র‍্যাবের ডিজি।

বিজ্ঞাপন

ডিজি বলেন, ১৬ জঙ্গিকে শান্তির পথে ফিরিয়ে এনেছি। তারা এখন ভালোভাবে জীবন যাপন করছেন। এই প্রক্রিয়া শেষ হয়ে যায়নি। আরও কেউ যদি ফিরে আসতে চায় তাদের পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় আমরা সহযোগিতা করব।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/ইউজে/একেএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন