বিজ্ঞাপন

সাকিবের ফিফটির পরও বাংলাদেশের হার

July 4, 2022 | 3:11 am

স্পোর্টস ডেস্ক

ওয়েস্ট ইন্ডিজের ছুঁড়ে দেওয়া ১৯৪ রানের পাহাড়সম লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে সাকিব আল হাসানের দুর্দান্ত ফিফটিতে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৫৮ রানে থামে বাংলাদেশ। আর এতেই উইন্ডিজের কাছে ৩৫ রানে হারে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল।

বিজ্ঞাপন

পাহাড়সম রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশের হয়ে একাই লড়েছেন সাকিব আল হাসান। ব্যাট হাতে সাকিব আল হাসানের অপরাজিত ৬৮ রানের দুর্দান্ত ইনিংস কেবল হারের ব্যবধানই কমিয়েছে বাংলাদেশের। এছাড়া সর্বোচ্চ ৩৪ রানের ইনিংস খেলেন আফিফ হোসেন। তবে বাকিদের ব্যাট হাসেনি এদিন। এতেই হারের মুখে পড়তে হয়েছে বাংলাদেশকে।

১৯৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারটা দেখে শুনেই খেলেন দুই ওপেনার লিটন দাস এবং এনামুল হক বিজয়। তবে দ্বিতীয় ওভার এসেই পা হড়কান লিটন। ওবেদ ম্যাককয়ের করা প্রথম বলটি স্কয়ার লেগ দিয়ে হাঁকাতে চেয়েছিলেন লিটন। তবে ডিপ ব্যাকওয়ার্ডে থাকা ব্রুকসের হাতে বল তুলে দিয়েই ফেরেন লিটন। ১.১ ওভারে দলীয় ৮ রানের মাথায় লিটন দাস ফেরেন ৪ বলে ৫ রান করে।

বিজ্ঞাপন

পরের বলটি ফুল লেন্থে করেন ম্যাককয়। ড্রাইভ খেলতে গিয়ে শরীর আর ব্যাটের মাঝে থেকে যায় বিশাল ফাঁকা। আর সেই ফাঁকা গলিয়ে ব্যাটের কিনারায় বল লেগে বোল্ড হন বিজয়। এতেই মাত্র ৪ বলে ৩ রান করে ফেরেন তিনি। বাংলাদেশ ৮ রানে দ্বিতীয় উইকেট হারায়। এরপর ইনিংসের তৃতীয় ওভারের শেষ বলটি ডাউন দ্যা ট্র্যাকে এসে মিড অফের ওপর দিয়ে উঠিয়ে মারতে গিয়ে ম্যাককয়ের হাতে বল তুলে দিয়ে ফেরেন রিয়াদ। সে সময় স্কোরবোর্ডে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩ উইকেট হারিয়ে ২৩ রান।

এরপর উইকেটে আসেন আফিফ হোসেন। আফিফকে সঙ্গে নিয়ে সাকিব আল হাসানের গড়া জুটি বিপর্যয়ের মুখ থেকে ফিরিয়ে এনেছে বাংলাদেশকে। চতুর্থ উইকেটের জুটি পেরিয়েছে অর্ধশত রান। যদিও এর ভেতর আফিফের অবদানই বেশি। ২৭ বলে ৩৪ রান করে আফিফ শেপার্ডের শিকার হয়ে ফিরলে ভাঙে ৪৪ বলে ৫৫ রানের এই জুটি।

বিজ্ঞাপন

১১তম ওভারের দ্বিতীয় বলটি শর্ট ফাইন লেগ দিয়ে খেলতে গিয়ে এজ হয়ে উইকেটের পেছনে পুরানের গ্লাভসবন্দি হন। বাংলাদেশ ৭৮ রানে হারায় চতুর্থ উইকেট। আফিফের পরিবর্তে আসা নুরুল হাসান সোহান টিকতে পারেননি খুব বেশি সময়। ১৩ বলে ৭ রানের ইনিংস খেলে আকিল হোসেনের শিকার হয়ে ফেরেন তিনিও।

ষষ্ঠ উইকেটে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতকে নিয়ে ঝড়ো জুটি গড়েন সাকিব। এই জুটি থেকে মাত্র ২৮ বলে আসে ৫৩ রান। তবে জুটি কেবল হারের ব্যবধানই কমাতে পারে। সাকিব আল হাসান ব্যাট চালালেও বাকিরা শেষ পর্যন্ত কেউই তাকে সঙ্গ দিতে পারেননি। এতেই নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৫৮ রানে থামে বাংলাদেশের ইনিংস। আর উইন্ডিজ জয় পায় ৩৫ রানের।

বিজ্ঞাপন

উইন্ডিজের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন ওবেদ ম্যাককয় এবং রোমারিও শেপার্ড। এছাড়া একটি করে উইকেট নেন আকিল হোসেন, ওডেন স্মিথ।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ব্রেন্ডন কিং এবং রভমান পাওয়ালের ফিফটিতে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৯৩ রানের পাহাড়সম পুঁজি দাঁড় করায় উইন্ডিজ।

বিজ্ঞাপন

এই জয়ে তিন ম্যাচ সিরিজ টি-টোয়েন্টিতে ১-০'তে এগিয়ে গেল স্বাগতিক উইন্ডিজ। সিরিজ নির্ধারণি ম্যাচটিতে আগামী বৃহস্পতিবার (৭ জুলাআই) মুখোমুখি হবে দুই দল।

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন