বিজ্ঞাপন

দালাল প্লাসের চেয়ারম্যান-সিইওসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

July 5, 2022 | 6:52 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান দালাল প্লাস ডটকমের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাসহ (সিইও) সাত জনের বিরুদ্ধে আড়াই কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) ৮১ জন ভুক্তভোগীর পক্ষে গ্রাহক মো. আল আমিন তামিম বাদী হয়ে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. মোশাররফ হোসেনের আদালতে মামলাটির আবেদন করেন।

এসময় আদালত বাদীর জবানবন্দি রেকর্ড করে অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

বিজ্ঞাপন

মামলার আসামিরা হলেন— প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান সালেহ উদ্দিন মুরাদ, সিইও এস এম রাব্বি আল মামুন, ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আজিজুক হক ওরফে সুমন, পরিচালক আবু জুবায়ের হোসেন রাব্বি, অ্যাকাউন্ট অফিসার হাসনাইন খুরশিদ অভি, প্রধান আইটি কর্মকর্তা নাজমুস শাহাদাত ও প্রধান অপারেশন কর্মকর্তা এস এম বোরহান উদ্দিন রনি।

মামলার এজাহারে বলা হয়, ই-কর্মাস কোম্পানি দালাল প্লাস ডটকম থেকে নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন পণ্য বিক্রি করা হতো। মামলার ৮১ জন গ্রাহককে ২০২১ সালের ১ এপ্রিল থেকে একই বছরের ২১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মোবাইল, ল্যাপটপ, মোটরসাইকেল, ডিএসএলআর ক্যামেরাসহ বিভিন্ন পণ্য আকর্ষণীয় অফারে আকৃষ্ট করে দালাল প্লাস ডটকম। গ্রাহকরা অফার নিয়ে নির্দিষ্ট সময়ে দুই কোটি ৫০ লাখ ৩৮ হাজার ৯৯৮ টাকা পেমেন্ট করেন।

বিজ্ঞাপন

এজাহারে আরও বলা হয়, পেমেন্ট নেওয়ার পর জানানো হয়, পণ্য ডেলিভারির বিষয়ে গ্রাহকদের নির্দিষ্ট সময়ে মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে। অনেক গ্রাহককে ওয়্যারহাউজে গিয়ে পণ্য নিতে এসএমএস দেওয়া হয়। সেখানে গেলে তাদের পণ্য না দিয়েই একটি ভিডিও সাক্ষাৎকার নেয় যে তারা পণ্য পেয়েছে। কিন্তু প্রকৃত ঘটনা হলো, তারা পণ্য না দিয়েই প্রতারণার ফাঁদ পেতে গ্রাহককে ব্ল্যাকমেইল করে তাদের কাছ থেকে অসাধুভাবে অর্থ আত্মসাৎ করে। সাক্ষাৎকার শেষ হওয়ার পর গ্রাহকদের হাতে পণ্য না দিয়ে টোকেন ধরিয়ে দিয়ে বলে, অফিস থেকে বর্তমান বাজারমূল্যে চেক নিয়ে ব্যাংক থেকে টাকা তুলে নিতে পারবেন।

মামলার বাদীদের অভিযোগ, পণ্য কখন দেওয়া হবে— জানতে চাইলে স্থানীয় গুণ্ডাপাণ্ডা এবং ধানমন্ডি ও হাজারীবাগ থানার স্থানীয় ভাড়া করা লোকজন নিয়ে গ্রাহকদের পিটিয়ে হুমকি-ধমকি দিয়ে অফিস থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এআই/টিআর

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন