বিজ্ঞাপন

ভারতের বিপক্ষে নতুন ইংল্যান্ডের রেকর্ড গড়া জয়

July 5, 2022 | 10:59 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

ভারতের বিপক্ষে স্থগিত হওয়া টেস্ট অবশেষে মাঠে গড়াল আর সেই ম্যাচটি নতুন ভঙ্গিতে জয় দিয়েই শেষ করল ইংল্যান্ড। গেল বছর পাঁচ ম্যাচ সিরিজের শেষ টেস্টটি করোনার আক্রমণে স্থগিত হয়ে যায়। এরপর আইপিএল এবং টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হলেও বাকি রয়ে যায় এই টেস্টটি। অবশেষে এজবাস্টনে দুর্দান্ত টেস্টের শেষ হলো ইংলিশদের ৭ উইকেটের জয় মধ্য দিয়ে।

বিজ্ঞাপন

জনি বেয়ারেস্টো এবং জো রুটের রেকর্ড জুটিতে অসাধারণ রান তাড়ায় অনায়াস জয়ে সিরিজ শেষ করল ইংল্যান্ড। এজবাস্টন টেস্ট মঙ্গলবার ইংল্যান্ড জিতল ৭ উইকেটে। পাঁচ ম্যাচের সিরিজ শেষ হলো ২-২ সমতায়।

৭ উইকেট হাতে নিয়ে পঞ্চম দিনে ইংল্যান্ডের দরকার ছিল ১১৯ রান। ৩৭৮ রানের লক্ষ্য স্বাগতিকরা ছুঁয়ে ফেলে প্রথম সেশনেই। টেস্ট ক্রিকেটে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয় এটিই। ২০১৯ সালে হেডিংলিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আগের সর্বোচ্চ ৩৫৯ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ১ উইকেটে জিতেছিল বেন স্টোকসের অসাধারণ সেঞ্চুরির সৌজন্যে।

বিজ্ঞাপন

এর আগে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টানা তিন টেস্টে ২৭৭, ২৯৯, ২৯৬ রান তাড়া করে জিতেছে ইংল্যান্ড। অন্যদিকে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে শেষ দুই টেস্টে ভারত দুই শর সামান্য বেশি (২১২ ও ২৪০) লক্ষ্য দিয়ে সেটা রক্ষা করতে পারেনি। এজবাস্টন টেস্টেও এই ধারা বহাল রইল। আগের তিন টেস্টের মতো এবারও জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে ইংল্যান্ড।

এজবাস্টন টেস্টের প্রথম তিন দিন ম্যাচেই ছিল না ইংল্যান্ড। প্রথম ইনিংসে মাত্র ৮৩ রানে ৫ উইকেট হারানো ইংলিশদের ম্যাচ ধরে রাখেন জনি বেয়ারেস্টো। দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি পান বেয়ারেস্টো। যদিও তা এনে দিতে পারেনি লিড। প্রথম ইনিংসে ১৩২ রানে পিছিয়ে ছিল ইংলিশরা। জয়ের মূল কারিগর অবশ্যই বেয়ারস্টো। প্রথম ইনিংসে তার সেঞ্চুরিই বিপর্যয় থেকে টেনে তুলেছিল দলকে। রান তাড়ায় আরেকটি সেঞ্চুরিতে ম্যাচের সেরা তিনিই। সবশেষ ৫ ইনিংসে তার সেঞ্চুরি হলো ৪টি!

বিজ্ঞাপন

১৪৫ বলে ১৫ চার ও একটি ছক্কায় ১১৪ রানে অপরাজিত থাকেন বেয়ারস্টো। এই সিরিজে চতুর্থ সেঞ্চুরিতে রুট ১৭৩ বলে ১৯ চার ও একটি ছক্কায় করেন অপরাজিত ১৪২ রান।

নিজেদের টেস্ট ইতিহাসে এই নিয়ে মাত্র দ্বিতীয়বার প্রতিপক্ষকে তিনশর বেশি রানের লক্ষ্য দিয়ে হেরে গেল ভারত। ১৯৭৭ সালে পার্থে তাদের দেওয়া ৩৩৯ রানের লক্ষ্য তাড়ায় অস্ট্রেলিয়া জিতেছিল ২ উইকেটে। সেবার নাইটওয়াচম্যান হিসেবে তিন নম্বরে নেমে সেঞ্চুরি করেছিলেন টনি মান।

বিজ্ঞাপন

পঞ্চম দিন সকালে রুট–বেয়ারস্টো যখন ব্যাট করতে নামেন তখন জয়ের জন্য ইংল্যান্ডের প্রয়োজন ছিল ১১৯ রান। ব্রেন্ডন ম্যাককালামের কোচিংয়ে টেস্টে বদলে যাওয়া ইংল্যান্ড এই রান তুলে নিতে বেশি সময় নেয়নি। আর কোনো উইকেট পড়তে না দিয়ে আজ মাত্র ৭৬.৪ ওভার ব্যাটিং করে প্রথম সেশনেই ইংল্যান্ডকে ৭ উইকেটের জয় এনে দেন রুট–বেয়ারস্টে। এতেই সিরিজ ২-২ সমতায় শেষ হয়।

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন