বিজ্ঞাপন

সাংবাদিক রুবেল হত্যা: লাশ উদ্ধারের ৭ দিনেও গ্রেফতার হয়নি আসামি

July 12, 2022 | 3:35 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: লাশ উদ্ধারের ৭ দিন পরেও সাংবাদিক হাসিবুর রহমান রুবেল হত্যাকারীদের কেউ এখন পর্যন্ত গ্রেফতার হয়নি। পুলিশ বলছে অগ্রগতি আছে। আর সাংবাদিক নেতারা বলেন, পুলিশ ব্যর্থ ‘জজ মিয়া’ নাটক তৈরি করছে।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, কুষ্টিয়ার শহরের বাবর আলী গেট এলাকায় নিজ পত্রিকা অফিসে গত ৩ জুলাই কাজ করছিলেন সাংবাদিক হাসিবুর রহমান রুবেল। একটি ফোন কলে তিনি অফিস থেকে বের হয়ে যান। তারপর আর ফিরে আসেননি। অফিসের পিয়ন মিন্টু বলেন, সাংবাদিক রুবেলের পায়ের সেন্ডেল অফিস গেট থেকে অন্য কেউ পড়ে বের হয়েছিল। তিনি তড়িঘড়ি করে রাত ৯ টার দিকে আমার সেন্ডেল পড়ে বের হয়ে যান। এদিকে রুবেলকে অপহরণ করা হয়েছিল বলে দাবি পরিবারের।

ঘটনার পরের দিন কুষ্টিয়া মডেল থানায় জিডি করেন রুবেলের ছোট ভাই মাহাবুব। রুবেল দৈনিক আমাদের নতুন সময় পত্রিকার কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি ও কুষ্টিয়ার খবর পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ছিলেন। পুলিশ জীবিত রুবেলকে উদ্ধার করতে পারেনি। গত ৭ জুলাই দুপুরে কুমারখালীর গড়াই নদীর ওপর নির্মাণাধীন যদুবয়রা সেতুর নীচ থেকে রুবেলের লাশ উদ্ধার করে নৌ পুলিশের উপপরির্দশক আব্দুর রাজ্জাক।

বিজ্ঞাপন

পরদিন গত ৮ জুলাই কুষ্টিয়ার পৌর গোরস্তানে দাফন করা হয় রুবেলকে। দাফনের পর উত্তেজিত সংবাদকর্মীরা কুষ্টিয়া শহরে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। কুষ্টিয়া প্রেসক্লারেব (কেপিসি) সভাপতি রাশেদুল ইসলাম বিপ্লবের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা সঞ্চালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ইন্ডিপেন্ডন্ট টিভির কুষ্টিয়া প্রতিনিধি মিলন উল্লাহ, প্রথম আলো কুষ্টিয়া প্রতিনিধি তৌহিদী হাসান, চ্যানেল ২৪’র কুষ্টিয়া প্রতিনিধি শরীফ বিশ্বাসসহ আরও অনেক সাংবাদিক নেতা।

মামলার মোটিভ উদ্ধার ও আসামিদের গ্রেফতারের দাবিতে সাংবাদিকরা ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেন। এ সময় সাংবাদিকরা মজমপুর গেট অবরোধ করে রাখেন। ফলে দক্ষিণবঙ্গের সঙ্গে উত্তরবঙ্গের যোগাযোগের পথ দুই ঘণ্টা বন্ধ থাকে। এছাড়া বিক্ষোভ মিছিল, কলম বিরতি, স্বারকলিপি পেশের মতো কর্মসূচী পালন করা হয়েছে। কুষ্টিয়ার সব কয়টি উপজেলা প্রেসক্লাব এবং স্থানীয় সাংবাদিকরা মিছিল বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত পুলিশ কারোকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আতিকুর রহমান এসে সাংবাদিকদের আশ্বস্ত করে বলেন, অগ্রগতি হয়েছে, সকল এজেন্সি এই নিয়ে কাজ করছে। দ্রুতই আসামিরা গ্রেফতার হয়ে যাবে। কিন্তু লাশ উদ্ধারের সাতদিন পরেও একজন আসামিকেও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব কেপিসির সভাপতি রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব বলেন, ‘আসামি গ্রেফতার হবে হবে করে এক সপ্তাহ পার হয়ে গেল। এখন পর্যন্ত পুলিশ কোনো আসামিকে গ্রেফতার করতে পারেনি। আগামী দুই দিনের মধ্যে আসামিদের গ্রেফতার করতে না পারলে কাফনের কাপড় পড়ে মিছিল ও জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনশন ধর্মঘট পালনের সিধান্ত নিয়েছি আমরা।’

বিজ্ঞাপন

সাংবাদিক নেতা মজিবুল শেখ বলেন, ‘এটা আমাদের পেশাদারীত্বের প্রশ্ন। সাংবাদিক খুন হবে আর আসামি গ্রেফতার হবে না, এটা মেনে নেওয়া যাবে না। আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চত করতে কুষ্টিয়ার সকল সংবাদমাধ্যম কর্মী আজ এক কাতারে ‘

এ বিষয়ে কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার খায়রুল আলম বলেন, সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে এ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত কাজ করা হচ্ছে। সব বিষয়গুলো মাথায় নিয়ে তদন্ত হচ্ছে। অচিরেই প্রকৃত অপরাধী আইনের আওতায় আসবে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন