বিজ্ঞাপন

চবি ক্যাম্পাসে নিরাপত্তার দাবিতে বিক্ষোভ

July 21, 2022 | 8:00 am

চবি করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ক্যাম্পাসে নিরাপত্তার দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন ছাত্রীরা। একইসঙ্গে চার দফা দাবি নিয়ে স্মারকলিপি জমা দিয়েছেন তারা।

বিজ্ঞাপন

গতকাল বুধবার (২০ জুলাই) রাত সাড়ে ১০টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবনের মূল ফটকের সামনে এই বিক্ষোভ করেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের আশ্বাসে বিক্ষোভ প্রত্যাহার করে চলে যান তারা।

চার দফা দাবির মধ্যে আছে- ক্যাম্পাসে ২৪ ঘণ্টা নিরাপত্তা বিধান, হল থেকে বের হওয়া বা প্রবেশের এবং মেডিকেল যাওয়ার সময়সীমা তুলে নির্দেশনা দিতে হবে, যৌন নিপীড়ন সেল ভেঙে নতুন কার্যকরী যৌন নিপীড়ন সেল গঠন করতে হবে, সেলে বিচারের ব্যবস্থা করার জন্য সর্বোচ্চ সময়সীমা বাঁধা থাকবে ১মাস এবং সেটা না হলে সেল স্বয়ং শাস্তির বিধান গঠন থাকবে, যৌন নিপীড়ন সেলে চলমান মামলাগুলোর আগামী চার কার্যদিবসের মধ্যে বিচার করতে হবে এবং চার কার্যদিবসের মধ্যে বিচার না হলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টরিয়াল বডি স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করবেন।

বিজ্ঞাপন

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আশরাফী নিতু বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়ন সেলে যে তিনটি অভিযোগ জমা রয়েছে সেগুলোর ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে রেজিস্ট্রার এস এম মনিরুল হাসান জানিয়েছেন। এছাড়াও এই সেল ভেঙে নতুন আরেকটি কার্যকর সেল গঠন করার কথা জানানো হয়েছে। ক্যাম্পাসে ২৪ ঘণ্টা নিরাপত্তা নিশ্চিতসহ সব দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। সেকারণে আমরা আপাতত অবস্থান ত্যাগ করছি।

এর আগে, গত রোববার (১৭ জুলাই) রাত সাড়ে ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রীতিলতা হল এলাকায় এক ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের পর আপত্তিকর ভিডিও ধারণের অভিযোগ ওঠে। ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী পরদিন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের কার্যালয়ে এই বিষয়ে অভিযোগ দিতে গেলে চবি ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল বাধা দেন বলেও অভিযোগ এসেছে।

বিজ্ঞাপন

ওই ঘটনায় গত মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) রাতে চবি ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেলকে কেন্দ্র থেকে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দেয় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য।

এদিকে প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়াকে আহ্বায়ক করে তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। কমিটির অন্য সদস্যরন হলেন- বেগম খালেদা জিয়া হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম, শামসুন্নাহার হলের প্রভোস্ট ড. লায়লা খালেদা ও সহকারী প্রক্টর অরূপ বড়ুয়াকে সদস্য ও সহকারী প্রক্টর ড. শহীদুল ইসলামকে সদস্য সচিব করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী ৭ কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

ভুক্তভোগী ছাত্রী যৌন হয়রানি করার অভিযোগে নারী ও শিশু আইনে অজ্ঞাত কয়েকজনের নামে হাটহাজারী মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

সারাবাংলা/সিসি/এনএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন