বিজ্ঞাপন

‘ফেসবুকের প্রতিবাদে হবে না, লাখে-লাখে মানুষ রাস্তায় নামুন’

August 6, 2022 | 8:53 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্তকে ‘গণবিরোধী’ আখ্যা দিয়ে দুর্নীতি-লুটপাট, টাকা পাচার এবং চলমান দুঃশাসনের বিরুদ্ধে সাধারণ জনগণকে রাজপথে নামার আহ্বান জানিয়েছেন চট্টগ্রামের সিপিবি নেতারা। তারা বলেছেন, ফেসবুকে প্রতিবাদ করে মানুষের দুঃখ-কষ্ট, হাহাকারের অবসান হবে না, দুঃশাসনের অবসান হবে না। হাজারে-হাজারে লাখে-লাখে মানুষকে রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ করতে হবে।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (৬ আগস্ট) বিকেলে নগরীর সিনেমা প্যালেস চত্বরে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি চট্টগ্রাম জেলা শাখার উদ্যোগে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে নেতারা এসব কথা বলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা সিপিবির সভাপতি অধ্যাপক অশোক সাহা।

অশোক সাহা বলেন, ‘জ্বালানি তেলের দাম হঠাৎ করে ৫০ শতাংশ বাড়িয়ে দিয়েছে সরকার। বাস চালকরা বাস চালানো বন্ধ করে দিয়েছেন। অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে, আমাদের জন্য একটা হাহাকার পরিস্থিতি অপেক্ষা করছে। সরকারকে বলতে চাই, আপনারা ক্ষমতায় আছেন মানুষের দুঃখ-কষ্ট, হাহাকার কমানোর জন্য। মানুষের হাহাকার না কমিয়ে যদি আরও বাড়ান, তাহলে ক্ষমতা থেকে সরে যান। মানুষকে কষ্ট দেয়ার অধিকার আপনাদের নেই।’

বিজ্ঞাপন

‘অনেকে মনে করেন আওয়ামী লীগ চলে গেলে বিএনপি-জামায়াত এলে বোধহয় অবস্থার পরিবর্তন হবে। আমরা সিপিবি সেটা মনে করি না। আমরা লীগ, বিএনপি, জামায়াত, জাতীয় পার্টি সবাইকে দেখেছি- সবার নীতি এক। তারা বাংলাদেশকে লুটেপুটে খেয়েছে, খাচ্ছে। লুটপাটের বেলায় তাদের মধ্যে কোনো বিরোধ নেই। হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করে তারা দ্বিতীয় আবাস বানিয়েছে। যারা ক্ষমতায় ছিল তারাও লুটপাট করেছে, যারা ক্ষমতায় আছে তারাও লুটপাট করছে। জ্বালানি তেলের দাম বাড়লে তো তাদের কোনো ক্ষতি নেই। তাদের লুটপাটের টাকা আছে, জনগণের কী আছে?’

মানুষকে রাজপথে নামার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘রাস্তায় নামতে হবে, প্রতিবাদ করতে হবে। এই সরকার স্বেচ্ছাচারী, কর্তৃত্ববাদী সরকার। ফেসবুকে প্রতিবাদ করে দুঃশাসনের অবসান হবে না। আজ যদি এক লাখ মানুষ রাস্তায় নামে, সরকার হুঁশিয়ার হবে, দাবি মানতে বাধ্য হবে। আমরা হাজারে-হাজারে, লাখে-লাখে মানুষকে রাস্তায় নামার আহ্বান জানাচ্ছি। সিপিবির পতাকাতলে আসুন, লুটেরা-হার্মাদদের হটিয়ে বাম বিকল্প শক্তিকে ক্ষমতায় নিন।’

বিজ্ঞাপন

জেলা সিপিবির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর বলেন, ‘আইএমএফ থেকে ঋণ পাবার জন্য তাদের শর্ত মেনে জ্বালানি খাতে ভর্তুকি প্রত্যাহার করতে দাম বাড়িয়েছে সরকার। এমনভাবে দাম বাড়ানো হয়েছে, মানুষের জান বাঁচার আর কোনো উপায় সরকার রাখেনি। সরকার আইএমএফ, সাম্রাজ্যবাদী গোষ্ঠী এবং দেশীয় লুটেরাদের কাছে আত্মসমর্পণ করেছে। এদেশটাকে গত ৫০ বছর ধরে লুটপুটে খাচ্ছে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জামায়াত, জাতীয় পার্টি। একদল ক্ষমতায় থেকে এখনও লুটপাট করে যাচ্ছে, আরেকদল ক্ষমতায় এসে লুটপাটের জন্য উঁকিঝুঁকি মারছে। আমরা সিপিবির পক্ষ থেকে বলতে চাই, এতে সমস্যার কোনো সমাধান হবে না। সমস্যার সমাধান করতে হলে সিপিবির নেতৃত্বে বাম বিকল্প শক্তির সরকার গড়তে হবে।’

জেলা সিপিবির সহকারী সাধারণ সম্পাদক নূরুচ্ছাফা ভূ্ঁইয়ার সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন- জেলার সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য উত্তম চৌধুরী, নারীনেত্রী রেখা চৌধুরী, দক্ষিণ জেলার সহকারী সাধারণ সম্পাদক সেহাব উদ্দিন সাইফু, জেলা যুব ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক রাশিদুল সামির। সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

বিজ্ঞাপন

এদিকে, জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে মিছিল-সমাবেশ করেছে চট্টগ্রাম জেলা ছাত্র ইউনিয়ন ও যুব ইউনিয়ন। জেলা যুব ইউনিয়নের সভাপতি রিপায়ন বড়ুয়ার সভাপতিত্বে ও সহকারী সাধারণ সম্পাদক জাবেদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন- জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি এ্যানি সেন, দক্ষিণ জেলা যুব ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক অনুপম বড়ুয়া পারু ও চট্টগ্রাম জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক রাশিদুল সামির।

সারাবাংলা/আরডি/পিটিএম

বিজ্ঞাপন

Tags: ,

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন