বিজ্ঞাপন

সেমিকন্ডাক্টর চিপ উৎপাদন বাড়াতে যুক্তরাষ্ট্রে আইন

August 10, 2022 | 11:32 am

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ঢাকা: মঙ্গলবার (৯ আগস্ট)   ‘চিপ অ্যান্ড সাইন্স’ নামক একটি বিলে স্বাক্ষর করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। গত মাসে মার্কিন সিনেট ও হাউজ অফ রিপ্রেজেন্টেটিভস দেশীয় সেমিকন্ডাক্টর চিপ শিল্পকে এগিয়ে নিতে বিলটি পাস করে। বাইডেনের স্বাক্ষরের মাধ্যমে বিলটি আইনে পরিণত হলো।

বিজ্ঞাপন

নতুন এ আইনে যুক্তরাষ্ট্রে চিপ শিল্পে ২০০ বিলিয়নের বেশি বিনিয়োগ আসবে। বর্তমানে চিপ ও সেমিকন্ডাক্টরের জন্য বিশ্বের অন্যান্য উৎপাদকদের উপর নির্ভরশীল যুক্তরাষ্ট্র। অন্যান্য দেশের উপর নির্ভরশীলতা কমাতে এ উদ্যোগ বাইডেন প্রশাসনের।

এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিদ্বন্দ্বী চীন চিপ শিল্পে বিশাল বিনিয়োগের মাধ্যমে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। গোটা বিশ্বের প্রযুক্তিশিল্পের আস্তে আস্তে সেমিকন্ডাক্টর চিপের জন্য চীনের উপর নির্ভরশীলতা বাড়ছে। এই আশঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্র নিজেদের চিপ শিল্পকে জাগিয়ে তুলতে বড় বিনিয়োগের পথে হাঁটছে। এ লক্ষে নতুন এ আইনটি তৈরি হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

গত মাসে চিপ সংক্রান্ত বিলটি ডেমোক্রেট ও রিপাবলিকান উভয় দলের সমর্থনে সিনেট ও হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভে পাস হয়। এর আগে কয়েক মাস দুই কক্ষে বিলটি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা এবং সমঝোতা হয়। ডেমোক্রেটদের প্রস্তাবিত বিলটি শুরু থেকেই বাইডেন প্রশাসনের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পেয়ে আসছিল।

দুই কক্ষের পাসকৃত বিলটিতে মঙ্গলবার স্বাক্ষরের সময় জো বাইডেন বলেন, আমরা জানি এমন কিছু লোক আছে যারা ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করার চেয়ে ক্ষমতা সুদৃঢ় করার দিকে বেশি মনোযোগ দিয়ে থাকেন, যারা শক্তি ও ঐক্যের পরিবর্তে বিভাজন চায়, যারা গড়ে উঠার পরিবর্তে ভেঙে পড়ে। আজ এমন একটি দিন যে দিনটিতে কিছু গড়ে উঠছে।

বিজ্ঞাপন

আরও পড়ুন 

এসময় জো বাইডেন জানান, বিশ্বের মোট চাহিদার মাত্র ১০ শতাংশেরও কম সেমিকন্ডাক্টর উৎপাদন করে যুক্তরাষ্ট্র। গত ৩০ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রের উৎপাদন ক্রমাগত কমছে। অথচ চীনের মতো দেশে উৎপাদন বাড়ছে। বাইডেন বলেন, মার্কিন উৎপাদন ক্ষমতা আমাদের অর্থনীতির মেরুদণ্ড, কিন্তু এই মেরুদণ্ডটি ফাঁপা হয়ে গেছে।

বিজ্ঞাপন

চিপ অ্যান্ড সাইন্স অ্যাক্ট নামে পরিচিত এই আইনের আওতায় কম্পিউটার চিপ উৎপাদনকারী মার্কিন কোম্পানিগুলোকে ৫২ বিলিয়ন ডলারের বেশি ভর্তুকি দেওয়া হবে। সেইসঙ্গে সেমিকন্ডাক্টর উৎপাদনে বিনিয়োগ উৎসাহিত করার জন্য প্রায় ২৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের ট্যাক্স কর্তন করা হবে। এছাড়া বৈজ্ঞানিক গবেষণা ও উন্নয়ন এবং অন্যান্য মার্কিন প্রযুক্তির উদ্ভাবনকে উৎসাহিত করতে কয়েক বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করা হবে।

স্মার্টফোন, গেমিং ডিভাইস থেকে শুরু করে গাড়ি— সেমিকন্ডাক্টর চিপ ছাড়া চলে না। গত দুই বছর করোনা মহামারিতে এ খাত সংকটে পড়ে। বিশ্বের প্রধান চিপ উৎপাদকরা চাহিদার তুলনায় যোগান দিতে পারেনি। ফলে গাড়ি এবং অন্যান্য প্রযুক্তিপণ্যের উৎপাদন ব্যাপক মাত্রায় ব্যাহত হয়। প্রযুক্তি পণ্যের সংকটে বিশ্ব অর্থনীতিতেও বিরূপ প্রভাব পড়েছে।

বিজ্ঞাপন

বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি চিপ উৎপাদন করে এশিয়ার কয়েকটি দেশ। চীন, তাইওয়ান, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান, ফিলিপাইন, মালয়েশিয়া ও সিঙ্গাপুর বিশ্বের মোট সেমিকন্ডাক্টর চিপের ৮০ ভাগের বেশি সরবরাহ করে থাকে।

সারাবাংলা/আইই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন