বিজ্ঞাপন

শিল্প এলাকায় ভিন্ন ভিন্ন দিন সাপ্তাহিক ছুটি, প্রজ্ঞাপন জারি

August 11, 2022 | 7:32 pm

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে দেশের শিল্প এলাকায় ভিন্ন ভিন্ন দিনে সাপ্তাহিক ছুটি নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) বিকেলে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতর।

বিজ্ঞাপন

কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক মো. নাসির উদ্দিন আহমেদ স্বাক্ষরিত এ প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে- বাংলাদেশ শ্রম আইন, ২০০৬ এর ১১৪ (২) ধারার ক্ষমতাবলে সারা দেশের শিল্প প্রতিষ্ঠানের জন্য (প্রজ্ঞাপনের) ২নং কলামে বর্ণিত বারে জনস্বার্থে সাপ্তাহিক বন্ধের দিন ধার্য করা হলো। পুনরাদেশ না দেওয়া পর্যন্ত জনস্বার্থে সাপ্তাহিক বন্ধের দিন ধার্য করা হয় বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে।

তালিকা দেখতে ক্লিক করুন

বিজ্ঞাপন

প্রজ্ঞাপনে সারা দেশে শিল্প প্রতিষ্ঠানের সাপ্তাহিক বন্ধের দিন, বৈদ্যুতিক এলাকা এবং এলাকার নাম উল্লেখ করে দেওয়া হয়েছে।

৭ আগস্ট বিদ্যুৎ ভবনে শিল্পকারখানার মালিক ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে এক সভা শেষে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, এখন শিল্পাঞ্চলে শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটি কার্যকর আছে। একদিনে সব এলাকায় ছুটি না দিয়ে, যদি রেশনিংয়ের মাধ্যমে সাপ্তাহিক ছুটি কার্যকর চালু করা যায় তাহলে বিদ্যুতের সাশ্রয় হবে।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, লোডশেডিং কমাতে দেশের পোশাক কারখানাসহ শিল্পাঞ্চলগুলোতে আলাদা দিনে সাপ্তাহিক ছুটি দেওয়ার কথা জানায় সরকার। আর সরকারের এই পরিকল্পনার সঙ্গে একমত প্রকাশ করেন ব্যবসায়ী। গত ৭ আগস্ট বিদ্যুৎ ভবনে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই, বিজিএমইএ, বিটিএমএ ও বিকেএমইএর প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেন বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। বৈঠকে বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ী নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘এখন শিল্পাঞ্চলে শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটি আছে। এক দিনে সব এলাকায় ছুটি না দিয়ে, যদি রেশনিংয়ের মাধ্যমে একেক দিন একেক এলাকায় ছুটি চালু করা যায়, তাহলে বিদ্যুতের কিছুটা সাশ্রয় হবে, লোড শেডিং কিছুটা কমে আসবে। শিল্প মালিকরা এ বিষয়ে আমাদের সঙ্গে একমত হয়েছেন।’

বিজ্ঞাপন

এফবিসিসিআইয়ের সহ-সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বলেন, ‘বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এই পদ্ধতি অবলম্বন করলে দিনে ৪৯০ মেগাওয়াটের মতো বিদ্যুৎ সাশ্রয় হবে। আমরা বলেছি, কেবল ঢাকায় নয়, সারা দেশেই যেন এরকম ছুটি কার্যকর করা হয়।

শুক্রবার বন্ধ থাকবে বাবিউবোর চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, সিলেট ও কুমিল্লার কিছু এলাকা। একই দিন বন্ধ থাকবে বাপবিবো অঞ্চলের ঢাকা ১ এর মৌচাক, ভান্নারা, শফিপুর, ফুলবাড়িয়া, সাভার, ঢাকা-৩, ঢাকা-৪, গাজীপুর-১, গাজীপুর-২, মুন্সিগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, নায়ারণগঞ্জ-১, নারায়ণগঞ্জ-২, নরসিংদী-১, নরসিংদী-২, ময়মনসিংহ-১ ময়মনসিংহ-২, টাঙ্গাইল, কুমিল্লা-২সহ আরও বেশ কিছু এলাকা। একইভাবে ভিন্ন ভিন্ন দিনের ছুটির তালিকা প্রকাশ করে প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/ইএইচটি/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন