বিজ্ঞাপন

আগস্টের ১৬ দিনে রেমিট্যান্স ১১ হাজার ১২৫ কোটি টাকা

August 18, 2022 | 1:27 pm

গোলাম সামদানী, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ডলার সংকটের উদ্বেগের মধ্যে প্রশান্তির সুবাতাস নিয়ে আসছে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স। জুলাইয়ের পর চলতি আগস্টেও প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স বৃদ্ধির ধারা অব্যাহত রয়েছে। যা দেশের অর্থনীতিতে সৃষ্ট ডলার সংকট কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করছে। চলতি মাসের প্রথম ১৬ দিনে প্রবাসীরা দেশে ১১৭ কোটি ১০ লাখ ডলার পাঠিয়েছেন। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ১১ হাজার ১২৪ কোটি ৫০ লাখ টাকা (প্রতি ডলার ৯৫ টাকা)। প্রতিদিন গড়ে ৭ কোটি ৩১ লাখ ডলার বা ৬৯৫ কোটি ২৮ লাখ টাকা রেমিট্যান্স আসছে।

বিজ্ঞাপন

এদিকে ২০২১ আগস্টের প্রথম ১৬ দিনে দেশে ১০০ কোটি ৭০ লাখ ডলার রেমিট্যান্স আসে। ফলে চলতি বছরের আগস্টে ১৬ দিনে গত বছরের একই সময়ের তুলনায় রেমিট্যান্স প্রবাহ বেড়েছে ১৬ দশমিক ৩০ শতাংশ। রেমিট্যান্স প্রবাহের এই ধারা অব্যাহত থাকলে মাস শেষে তা আড়াই বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে ধারণা করছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত মো. সিরাজুল ইসলাম সারাবাংলাকে বলেন, গত জুলাইয়ের ন্যায় চলতি আগস্টেও রেমিট্যান্স বৃদ্ধির ধারা অব্যাহত রয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে রেমিট্যান্স বৃদ্ধির জন্য আমরা ব্যাংকগুলোকে নানা ধরনের উৎসাহ দিচ্ছি। যাতে করে ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে বৈধপথে দেশে আরও বেশি রেমিট্যান্স আনা যায়।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, বর্তমানে সময়ে রেমিট্যান্স প্রবাহ বৃদ্ধির খুবই দরকার ছিল। বাংলাদেশ ব্যাংক ও সরকারের নানা পদক্ষেপের কারণে জুলাইয়ের আগের ১৪ মাসের তুলনায় সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স এসেছে। আশা করছি আগস্টে রেমিট্যান্স জুলাইয়ের তুলনায় বাড়বে। এভাবে রেমিট্যান্স বৃদ্ধির ধারা অব্যাহত থাকলে দেশের অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে।

জানা গেছে, ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে প্রবাসীরা ২০৯ কোটি ৬৯ লাখ ১০ হাজার (২.১ বিলিয়ন) ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। যা ছিল আগের ১৪ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ। প্রতি ডলার ৯৫ টাকা হিসাবে টাকার অংকে ওই অর্থের পরিমাণ প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকা। আর আগস্টের প্রথম ১৬ দিনে দেশে এসেছে ১১৭ কোটি ১০ লাখ ডলার বা ১১ হাজার ১২৫ কোটি টাকা।

বিজ্ঞাপন

উল্লেখ্য, বর্তমানে দেশে রফতানি আয়, মাথাপিছু আয় বাড়লেও সদ্য বিদায়ী ২০২১-২২ অর্থবছরে (জুলাই-২১ থেকে জুন-২২) রেমিট্যান্স এসেছে ২১ .০৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। এটি ২০২০-২১ অর্থবছরের চেয়ে ১৫ শতাংশ বা ৩ দশমিক ৭৪ বিলিয়ন ডলার কম। ২০২০-২১ অর্থবছরে রেমিট্যান্স এসেছিল ২ হাজার ৪৭৭ কোটি ডলার। তবে চলতি অর্থবছরের শুরুতে রেমিট্যান্স প্রবাহ বাড়ছে।

অর্থ বছর ভিত্তিক রেমিট্যান্স: কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, ২০২১-২০২২ অর্থবছরে প্রবাসীরা ২১.০৩ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। এর আগে ২০২০-২১ অর্থবছরে প্রবাসীরা রেকর্ড পরিমাণ ২৪.৭৭ বিলিয়ন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। এর আগে ২০১৯-২০ অর্থবছরে ১ হাজার ৮২০ কোটি ৩০ লাখ মার্কিন ডলার, ২০১৮-১৯ অর্থবছরের ১ হাজার ৬৩১ কোটি ডলার, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ১ হাজার ৪৯৮ কোটি ডলার, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ১ হাজার ২৭৬ কোটি ৯৪ লাখ ডলার, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ১ হাজার ৪৯৩ কোটি ডলার এবং ২০১৪-১৫ অর্থবছরে রেমিট্যান্স আসে ১ হাজার ৫৩১ কোটি ৬৯ লাখ ডলার।

বিজ্ঞাপন

পঞ্জিকা বছর হিসাবে রেমিট্যান্স: বিদায়ী ২০২১ সালে প্রবাসীরা রেকর্ড পরিমাণ ২২.০৭ বিলিয়নর ডলার বা ২ হাজার ২০৭ কোটি ৮৫ লাখ মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। এর আগে ২০২০ সালে ২১.৭৪ বিলিয়ন বা ২ হাজার ১৭৪ কোটি ১৮ লাখ ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। ২০১৯ সালে ১ হাজার ৮৩৩ কোটি মাকির্ন ডলার, ২০১৮ সালে ১ হাজার ৫৫৩ কোটি ৭৮ লাখ ডলার, ২০১৭ সালে ১ হাজার ৩৫৩ কোটি ডলার, ২০১৬ সালে ১ হাজার ৩৬১ কোটি ডলার এবং ২০১৫ সালে ১ হাজার ৫৩১ কোটি মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স আসে।

সারাবাংলা/জিএস/এনএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন