বিজ্ঞাপন

পুঁজিবাজারে মূলধন ফিরেছে ৫ হাজার কোটি টাকা

August 20, 2022 | 3:59 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: টানা পতনের পর অবশেষে ঘুরে দাঁড়িয়েছে পুঁজিবাজার। গত সপ্তাহে (১৪-১৭ আগস্ট) লেনদেন হওয়া তিন কার্যদিবসে সব সূচক বেড়েছে। সূচকের সঙ্গে বেড়েছে অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম। বাজার উথান হওয়ায় সপ্তাহ শেষে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বাজার মূলধন বেড়েছে প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা। ডিএসই সূত্র বিষযটি নিশ্চিত করেছে।

বিজ্ঞাপন

ডিএসই সূত্র জানায়, গত সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস লেনদেন শুরুর আগে ডিএসইতে বাজার মূলধন ছিল ৫ লাখ ৩ হাজার ২৬৬ কোটি ৪০ লাখ ৭২ হাজার টাকা। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস লেনদেন শেষে বাজার মূলধন দাঁড়ায় ৫ লাখ ৮ হাজার ১০৯ কোটি ২২ লাখ ৯৮ হাজার টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়েছে চার হাজার ৮৪২ কোটি ৮২ লাখ ২৫ হাজার টাকা। এদিকে গত সপ্তাহে ডিএসইতে দুই হাজার ৮৩৮ কোটি ৭০ লাখ ৮৪ হাজার ১৩৮ টাকার লেনদেন হয়েছে। তার আগের সপ্তাহে (৭ থেকে ১১ আগস্ট) লেনদেন হয়েছিল তিন হাজার ৫৮৪ কোটি ৫ লাখ ২৫ হাজার ৯৯২ টাকার। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে লেনদেনে ৭৪৫ কোটি ৩৪ লাখ ৪১ হাজার টাকা কম হয়েছে।

সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৯২.৬৭ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ২৪১.৪৪ পয়েন্টে। অপর সূচকগুলোর মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ সূচক ২০.৬৭ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩০ সূচক ২৫.৬৬ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে এক হাজার ৩৬৬.৩৮ পয়েন্টে এবং দুই হাজার ২২০.০৫ পয়েন্টে। বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইতে মোট ৩৮৮টি প্রতিষ্ঠান শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশ নিয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দর বেড়েছে ২৫৭টির, কমেছে ৪২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৮৯টির শেয়ার ও ইউনিটের দাম।

বিজ্ঞাপন

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) বিদায়ী সপ্তাহে টাকার পরিমাণে লেনদেন হয়েছে ৫৮ কোটি ৬৩ লাখ ৩৫ হাজার টাকা। গত সপ্তাহের আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ৭৪ কোটি ২২ লাখ ৮৭ হাজার ৬৯৯ টাকার। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে সিএসইতে লেনদেন ১৫ কোটি ৫৯ লাখ ৫২ হাজার টাকা কমেছে। সপ্তাহটিতে সিএসইর সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২৪২.২৪ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ৩৬৯.৯২ পয়েন্টে।

সপ্তাহজুড়ে সিএসইতে ৩২৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশ নিয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ১৮৪টির বা ৫৬.৬২ শতাংশের দর বেড়েছে, ৫৪টির বা ১৬.৬২ শতাংশের কমেছে এবং ৮৭টির বা ২৬.৭৬ শতাংশের দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জিএস/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন