বিজ্ঞাপন

জাপার অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতেই সম্মেলন ডেকেছি

September 8, 2022 | 8:42 pm

রওশন এরশাদ। বাংলাদেশের একজন প্রবীণ রাজনীতিবিদ। বর্তমানে তিনি জাতীয় সংসদে বিরোধীদলীয় নেতার দায়িত্ব পালন করেছেন। রওশন এরশাদ সংসদের প্রধান বিরোধীদল জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রধান পৃষ্ঠপোষক এবং বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রপতি ও সাবেক সেনাপ্রধান প্রয়াত হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের স্ত্রী, যার সঙ্গে তিনি ১৯৫৬ সালে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।

বিজ্ঞাপন

হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ রাষ্ট্রপতি থাকাকালীন রওশন এরশাদ সমাজ কল্যাণ, নারী ও শিশুর অধিকার প্রতিষ্ঠায় সচেষ্ট ছিলেন। ‘বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা সংস্থা’র প্রধান পৃষ্ঠপোষকও ছিলেন তিনি। ১৯৭৫ সালে ‘সেনা পরিবার কল্যাণ সমিতি’র প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট নিযুক্ত হন। ১৯৮৫ সালে মাদকের অপব্যবহার সংক্রান্ত জাতিসংঘের বিশেষ কনভেনশনে অংশ নেন তিনি।

রওশন এরশাদ এই মুহূর্তে ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এদিকে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের প্রয়াত বড় ভাইয়ের স্ত্রী দলের প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন এরশাদকে বিরোধীদলীয় নেতার পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার জন্য জাতীয় সংসদের স্পিকারকে চিঠি দিয়েছিলেন। কিন্তু চিঠিতে কিছু ত্রুটি থাকায় তার জবাব পাননি তিনি।

বিজ্ঞাপন

এ সব বিষয় নিয়ে ওভার টেলিফোনে রওশন এরশাদের সঙ্গে কথা বলেন সারাবাংলার স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট আজমল হক হেলাল। সংক্ষিপ্ত টেলি সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘প্রায়ত রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের গড়া জাতীয় পার্টির (জাপা) অস্তিত্ব আজ বিলীন হওয়ার পথে। এমতাবস্থায় জাপার অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার জন্য জাতীয় সম্মেলন আহ্বান করেছি।’ বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৪টি ২০ মিনিটে নেওয়া টেলি সাক্ষাৎকারের চুম্বক অংশ সারাবাংলার পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।

সারাবাংলা: কেমন আছেন?

বিজ্ঞাপন

রওশন এরশাদ: আমি এখন সুস্থ। আগের মত হাঁটাচলা করতে পারি। কথা বলতে পারি। আল্লাহ আমাকে অনেক সুস্থ রেখেছে। প্রিয় দেশ, আমাদের মাতৃভূমি বাংলাদেশের মানুষ কেমন আছে? নিশ্চয়ই বাংলার মানুষ ভালো আছে।

সারাবাংলা: জাতীয় পার্টি জাতীয় সংসদে প্রধান বিরোধীদলের ভূমিকায় রয়েছে। দলটির জাতীয় কাউন্সিলের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই হঠাৎ করে আপনি জাতীয় কাউন্সিলের আহ্বান করেছেন কেন?

বিজ্ঞাপন

রওশন এরশাদ: জাতীয় পার্টি আগের অবস্থানে নেই। পল্লিবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের গড়া জাতীয় পার্টি আজ অস্তিত্ব হারাতে বসেছে। দলের ত্যাগী নেতাকর্মীদের অবমূল্যায়ন করা হচ্ছে। জাতীয় পার্টিকে সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী করার উদ্যোগ না নিয়ে বরং আরও দুর্বল করে ফেলা হচ্ছে। এভাবে জাতীয় পার্টি চললে পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের গড়া জাতীয় পার্টির অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যাবে।

সারাবাংলা: জাতীয় কাউন্সিল করলেই কি জাতীয় পার্টি সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী হবে?

বিজ্ঞাপন

রওশন এরশাদ: জাতীয় কাউন্সিলের মাধ্যমে সারাদেশর দলীয় নেতাকর্মীদের চাঙ্গা করে তোলা হবে। জাতীয় পার্টির গঠনতন্ত্রে সংশোধনী আনা হবে। বর্তমানে তো গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করে ফেলেছে। এরশাদের গড়া জাতীয় পার্টির গঠনতন্ত্র নেই। গঠনতন্ত্র অনেক পরিবর্তন করা হয়েছে। জাতীয় সম্মেলনে গঠনতন্ত্রের সংশোধনী আনা হবে। দলছুট নেতাদের জাতীয় পার্টিতে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেওয়া হবে। ত্যাগী নেতাকর্মীদের পার্টির মধ্যে অগ্রাধিকার বৃত্তিতে মূল্যায়ন করা হবে। তাদের পরামর্শ নিয়ে জাতীয় পার্টিকে শক্তিশালী করার পদক্ষেপ নিতে হবে।

সারাবাংলা: এখন কি জাতীয় পার্টিতে ত্যাগী নেতা-কর্মীদের মূল্যায়ন করা হচ্ছে না?

রওশন এরশাদ: না মূল্যায়ন করা হচ্ছে না। পল্লিবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ জেলা ও উপজেলা এবং কেন্দ্রীয় নেতাকর্মীসহ থানা ওয়ার্ডের নেতাকর্মীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতেন, কথা বলতেন। আবার নিজে ফোন করে তাদের বাসায় ডাকতেন। বর্তমানে দলের মধ্যে এসব অনুপস্থিত।

সারাবাংলা: শুনেছি দেশে ফিরে আপনি সংসদীয় দলের বৈঠক ডাকবেন। বৈঠকে কোন পদে পরিবর্তন আনা হবে?

রওশন এরশাদ: আমি চাই সবাইকে সঙ্গে নিয়ে জাতীয় পার্টিকে সামনে এগিয়ে নিতে। তারপরও যদি প্রশ্ন ওঠে তা সংসদীয় দলের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হবে।

সারাবাংলা: জাতীয় পার্টির বর্তমান চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেছেন আপনার কাউন্সিল ডাকার এখতিয়ার নেই।

রওশন এরশাদ: আমিও জাতীয় পার্টির সংসদীয় দলের নেতা (বিরোধীদলীয় নেতা), দলের প্রধান পৃষ্ঠপোষক। দলের যেকোনো সিদ্ধান্ত প্রধান উপদেষ্টার সঙ্গে আলোচনা করে নিতে হবে। এমনকি দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য, চেয়ারম্যান ও মহাসচিব পদে পরিবর্তন, পরিবর্ধন ও সংযোজন করতে হবে। প্রধান উপদেষ্টা যদি দেখেন দল চলে না, তখন সে বাধ্য হয়ে নেতাকর্মীদের মতামত নিতে পারবেন। এ ক্ষমতা গঠনতন্ত্রে দলের প্রধান পৃষ্ঠপোষককে দেওয়া হয়েছে।

সারাবাংলা: জিএম কাদের বলেছেন, অশুভ শক্তির পরামর্শে আপনি কাউন্সিল ডেকেছেন। আসলে কি তাই?

রওশন এরশাদ: অশুভ শক্তি কী তা আমার জানা নেই।

সারাবাংলা: আগামী নির্বাচনে জাতীয় পার্টি কি এককভাবে নির্বাচন করবে, নাকি জোটগতভাবে?

রওশন এরশাদ: এককভাবে নির্বাচন করার লক্ষ্য-উদ্দেশ্য রয়েছে। তবে পরিস্থিতি ওপর নির্ভর করে জাতীয় পার্টি সিদ্ধান্ত নেবে।

সারাবাংলা: কাউন্সিলের পরে আপনার সাংগঠনিক কর্মসূচি কি জানাবেন?

রওশন এরশাদ: দলকে শক্তিশালী করার জন্য পল্লিবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মতো সারাদেশে সাংগঠনিক সফরে বের হব।

সারাবাংলা: অসুস্থ শরীরে সাক্ষাৎকার দেওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

রওশন এরশাদ: সারাবাংলাকেও ধন্যবাদ। আপনাদের মাধ্যমে ২৬ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় জাপার জাতীয় কাউন্সিল সফল করতে সারাদেশের নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

সারাবাংলা/এএইচএইচ/এজেড/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন