বিজ্ঞাপন

আমার কাছে জি এম কাদেরের অপকর্মের ডকুমেন্ট আছে: রাঙ্গাঁ

September 14, 2022 | 8:31 pm

আজমল হক হেলাল, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: জাতীয় পার্টির সব ধরনের পদ থেকে অব্যহতি দেওয়া হয়েছে জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ মশিউর রহমান রাঙ্গাঁকে। এ বিষয়ে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি সারাবাংলাকে বলেন, ‘জি এম কাদের স্বৈরতান্ত্রিকভাবে আমাকে দল থেকে বহিষ্কার করেছেন। তিনি ইচ্ছামতো দল চালাচ্ছেন। তার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য দেশবাসীর সামনে উন্মোচন করে দেব। আমার কাছে জি এম কাদেরের অপকর্মের সব ডকুমেন্ট আছে।’

বিজ্ঞাপন

মশিউর রহমান রাঙ্গাঁ মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) জি এম কাদেরের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বলেন, ‘আমিও জি এম কাদেরকে রাজনৈতিকভাবে দেখে নেব। এরশাদের জীবনদশায় জি এম কাদের তাকে সুস্থ থাকতে দেননি। এ জন্য দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে তাকে তিনবার বহিষ্কার করা হয়েছিল।’

দল থেকে বহিষ্কারের কারণে আপনার সংসদ সদস্যপদ কি বাতিল হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সংসদ সদস্য পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া এত সহজ নয়। বিষয়টি যখন সংসদে যাবে তখন দেখা যাবে।’

বিজ্ঞাপন

কী কারণে আপনাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে জানেন কি? জবাবে তিনি বলেন, ‘না কিছু জানি না। তবে ধারণা করছি, জি এম কাদেরের আশেপাশে কিছু চামচা রয়েছে। তারা এখন বিএনপির সঙ্গে চামচামি শুরু করেছে। দলের নিজস্ব লক্ষ্য উদ্দেশ্য বিসর্জন দিয়ে জি এম কাদের বিএনপির চামচামি করছে। অথচ হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদকে জেল খাটিয়েছে বিএনপি। অপমান করেছেন। এরশাদকে কখনও কাঁদতে দেখেনি, বিএনপির অপমান সহ্য করতে না পেরে তিনি কেঁদেছিলেন।’

মশিউর রহমান রাঙ্গাঁ আরও বলেন, ‘জাতীয় পার্টিতে আমি ২২ বছর ধরে আছি। দলটির ক্রান্তিকালে এরশাদের পাশে থেকেছি। দল থেকে এভাবে বহিষ্কার করবে কেন? দল থেকে বহিষ্কার করতে হলে একটি নিয়মতান্ত্রিক পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে। প্রথমে আমাকে শোকজ করতে হবে। তারপর দরকার হলে আমাকে বহিষ্কার করবে। কিন্তু এ সব তো করা হয়নি।’

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, ‘বেগম রওশন এরশাদকে বিরোধীদলের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার জন্য জিএম কাদের যে সংসদীয় দলের বৈঠক ডেকেছে তা রুলস অব প্রসিডিউর মোতাবেক হয়নি। মিটিংয়ের পর স্পীকারের কাছে যে চিঠি দেওয়া হয়েছে সেখানে তিনি স্বাক্ষর দেননি। আমাকে ধমকিয়ে স্বাক্ষর নিয়েছেন। শুধু আমাকে নয় অনেক এমপিকে তিনি ধমক দিয়েছেন। এমপিরা বেগম রওশন এরশাদকে বিরোধীদলীয় নেতার পদ থেকে সরিয়ে দিতে রাজি হননি।’

রাঙ্গাঁ বলেন, ‘আমার কাছে যে ডকুমেন্ট রয়েছে তা দলের সব এমপিকে দেওয়া হলে তারাই জি এম কাদেরের বিরুদ্ধে অনাস্থা আনবে। সবচেয়ে বড় ডকুমেন্ট হলো তার চারিত্রিক বিষয় ও দলীয় সম্ভাব্য প্রার্থীদের কাছ থেকে টাকা নেওয়ার বিষয়।’

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এএইচএইচ/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন