বিজ্ঞাপন

এডিবির কাছ থেকে ২ বিলিয়ন ডলার প্রতিশ্রুতি আদায়ের লক্ষ্য

September 15, 2022 | 10:19 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: চলতি অর্থবছরে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) কাছ থেকে ২ বিলিয়ন ডলার প্রতিশ্রুতি আদায়ের লক্ষ্য রয়েছে বাংলাদেশের।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তজাতিক সম্মেলন কক্ষে ত্রিপক্ষীয় পোর্টফোলিও পর্যালোচনা সভায় (টিপিআরএম) বিষয়টি জানানো হয়। এডিবির ঢাকা কার্যালয় থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

বৈঠকে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব শরিফা খান এবং এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর এডিমন গিনটিং যৌথভাবে সভায় সভাপতিত্ব করেন।

বিজ্ঞাপন

সভায় ৩৪টি নির্বাচিত প্রকল্পের ৮৯টি বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। এ সময় জানানো হয় বাংলাদেশের সংস্থাটির পোর্টফোলিও দিন দিন বাড়ছে। এক্ষেত্রে ২০২২ সালের আগস্ট পর্যন্ত ১১ দশমিক ৩ বিলিয়ন ডলার হয়েছে। যা ২০১৫ সালে ছিল ৬ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার। এছাড়া ২০২১ সালে ২ বিলিয়ন ডলারের প্রতিশ্রুতি ছিল। ছাড় হয়েছে ২৫৬ কোটি ৯০ লাখ ডলার। যেটি ছিল উন্নয়নশীল সদস্য দেশগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ। ২০২২-এ প্রতিশ্রুতির লক্ষ্যমাত্রা প্রায় ২ বিলিয়ন ডলার। বাাংলাদেশে এখন পর্যন্ত এডিবির ক্রমবর্ধমান ঋণ, অনুদান ও সহায়তার পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪৮ বিলিয়ন ডলারের বেশি।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রকল্পের গতি বাড়াতে সম্মত বাংলাদেশ সরকার ও এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। এক্ষেত্রে সামাজিক-সুরক্ষা ত্বরান্বিত করার জন্য এডিবি-সহায়ক প্রকল্পগুলোর বাস্তবায়নকে আরও উন্নত করার পদক্ষেপ নেওয়া হবে। অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার ত্বরান্বিত করতে ধীর গতির প্রকল্পগুলোর গতি বাড়ানো হবে।

বিজ্ঞাপন

উদ্বোধনী বক্তব্যে এডিবির দক্ষিণ এশিয়া বিভাগের মহাপরিচালক কেনিচি ইয়োকোয়ামা বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী অনিশ্চয়তা বৃদ্ধি সত্ত্বেও করোনভাইরাস মহামারির পরে শক্তিশালী অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার বজায় রাখেছে বাংলাদেশ। সরকারের প্রচেষ্টা প্রশংসাযোগ্য। জাতীয়ভাবে নির্ধারিত অবদান, উন্নয়ন পরিকল্পনা এবং জাতীয় অভিযোজন পরিকল্পনার মাধ্যমে জলবায়ু চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বাংলাদেশের নেতৃত্ব গুরুত্বপূর্ণ।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশ রেলওয়ের টেকসই আর্থিক অগ্রগতির জন্য সংস্কার প্রয়োজন। এছাড়া বেসরকারি খাতসহ আরও বিনিয়োগ আকর্ষণের জন্য ব্যবসায়িক প্রতিযোগিতা বাড়াতে হবে। প্রকল্পের প্রস্তুতি ও অর্থ সংগ্রহের সময় উল্লেখযোগ্য হারে কমাতে হবে। এছাড়া সময়মতো প্রকল্প সমাপ্তির দিকে নজর দিতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

সভায় ২০০ জনেরও বেশি সরকারি কর্মকর্তা, প্রকল্প পরিচালক এবং এডিবির কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। ২০২০ সালের প্রথম দিকে কোভিড-১৯ মহামারি শুরু হওয়ার পর এটিই প্রথম সরাসরি রিভিউ বৈঠক। এতে জানানো হয় এডিবি গত সাত বছরে তার পোর্টফোলিও প্রায় দ্বিগুণ করেছে।

সারাবাংলা/জেজে/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন