বিজ্ঞাপন

সিলেট সিটি করপোরেশনে ১০৪০ কোটি টাকার বাজেট

September 19, 2022 | 5:33 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

সিলেট : সিটি করপোরেশনের ২০২২-২০২৩ অর্থবছরের ১০৪০ কোটি ২০ লাখ ৪৩ হাজার টাকা বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নগরের আমানউল্লাহ কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বাজেট ঘোষণা করেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। এবারও সিটি করপোরেশনে আয় ও সমপরিমাণ টাকা ব্যয় ধরে বাজেট প্রণয়ন করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

মেয়র আরিফ জানান, ২০২০-২০২১ অর্থবছরে দেশের সকল সিটির মধ্যে প্রথম হওয়ার পাশাপাশি মন্ত্রণালয়ের ২০টি দফতর ও সংস্থার মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে সিলেট সিটি করপোরেশন। এই অর্জন সিলেট মহানগরের সম্মানিত নাগরিকদের উৎসর্গ করেন তিনি।

মেয়র বলেন, 'সাম্প্রতি আকস্মিক বন্যার কারণে এ বিভাগের লাখ লাখ মানুষ অবর্ণনীয় দুর্ভোগের শিকার হয়েছেন। মহানগরবাসীও এই অসহনীয় কষ্ট ও দুর্দশা থেকে পরিত্রাণ পাননি। এই দুর্ভোগ মহানগরবাসীর কাছে অসহনীয় হয়ে উঠেছে। যা থেকে পরিত্রাণের পথ আমাদের জরুরি ভিত্তিতে খুঁজতে হবে। এক্ষেত্রে বাস্তবতাকে স্বীকার করেই আমাদেরকে সমাধানের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।'

বিজ্ঞাপন

মেয়র বলেন, 'সিলেট মহানগরীতে বিদ্যুতের খুঁটিতে ঝুঁকিপূর্ণ তারের জঞ্জাল সরানো এবং নিরাপদ বিদ্যুতায়নের লক্ষ্যে এই পর্যন্ত সিটি এলাকায় সাড়ে ১৪ কিলোমিটার আন্ডারগ্রাউন্ড ক্যাবল নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। আমরা সিলেট মহানগরীর আরো ১১টি সড়কে আন্ডারগ্রাউন্ড ক্যাবল নির্মাণের জন্য প্রস্তাবনা দিয়েছি। সেই প্রস্তাবনার আলোকে পিডিবি এই প্রকল্প বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করেছে এবং একনেকে এই প্রকল্পটি ইতোমধ্যে পাস হয়েছে। বর্ষার কারণে এই কাজ এখনো শুরু হয়নি। আশা করছি খুব শিগগিরই এই প্রকল্পের কাজ শুরু হবে।'

তিনি বলেন, 'সিলেট সিটির সীমানা সম্প্রসারণ করা হয়েছে। ২৬.৫০ বর্গ কিলোমিটারের সিলেট সিটির নতুন আকার হচ্ছে ৫৯.৫০ বর্গ কিলোমিটার, ২৭টি ওয়ার্ড বৃদ্ধি পেয়ে ৪২টি হয়েছে। নিঃসন্দেহে সিলেট সিটির জন্য এটি একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। কিন্তু এই পদক্ষেপ স্বার্থক হবে তখনই যখন বর্ধিত এলাকার জনগণ সিটি করপোরেশনে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার প্রকৃত সুফল পাবেন। বর্ধিত এলাকার জনগণের উন্নয়ন কাজের জন্য গত ৭ ফেব্রুয়ারি তারিখে ৪ হাজার একশ ৮৯ কোটি টাকার একটি প্রকল্পের ডিপিপি প্রণয়ন করে ইতোমধ্যে আমরা মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছি।'

বিজ্ঞাপন

২০২২-২০২৩ অর্থবছরের বাজেট তৈরীতে সিসিকের অর্থ ও সংস্থাপন কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর রেজওয়ান আহমদ, কমিটির সদস্য কাউন্সিলর আব্দুর রকিব তুহিন, কাউন্সিলর আযম খান, কাউন্সিলর শাহানারা বেগম, কাউন্সিলর আব্দুল মুহিত জাবেদ এবং সদস্য সচিব প্রধান হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা আ.ন.ম. মনছুফ।

মেয়র জানান, সিলেট নগরীর সম্মানিত নাগরিকবৃন্দকে অধিকতর সুযোগ সুবিধা ও সেবা প্রদান নিশ্চিত করার লক্ষ্যকে সামনে রেখে এবার সর্বমোট ১০৪০ কোটি ২০ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আয় ও সমপরিমাণ টাকা ব্যয় ধরে বাজেট প্রণয়ন করা হয়েছে। বাজেটে উল্লেখযোগ্য আয়ের খাত গুলো হলো- হোল্ডিং টেক্স ৪৫ কোটি দুই লাখ ২৮ হাজার টাকা, স্থাবর সম্পত্তি হস্থান্তরের উপর কর ১৬ কোটি টাকা, ইমারত নির্মাণ ও পুনঃ নির্মাণের উপর কর দুই দুই কোটি টাকা, পেশা ব্যবসার উপর কর আট কোটি ৫০ পঞ্চাশ লাখ টাকা।

বিজ্ঞাপন

এছাড়া ব্যায়ের খাত তুলে ধরে মেয়র বলেন, 'বাজেটে রাজস্ব খাতে সর্বমোট ৯০ কোটি ৪২ লাখ ৭৫ হাজার টাকা ব্যয় বরাদ্দ ধরা হয়েছে। এর মধ্যে সাধারণ সংস্থাপন খাতে ৩৪ কোটি ৮৮ লাখ টাকা, শিক্ষা ব্যয় খাতে ছয় কোটি ৫০ লাখ টাকা, সামাজিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে অনুদান খাতে তিন কোটি ২০ লাখ টাকা, স্বাস্থ্য ও প্রয়ঃপ্রণালী খাতে ব্যয় বাবদ ১৬ কোটি ৮২ লাখ ২৫ হাজার টাকা, ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ খাতে ব্যয় ৫০ লাখ টাকা, বৃক্ষ রোপণ ও রক্ষণাবেক্ষণ ব্যয় খাতে ৪৫ লাখ টাকা, মোকদ্দমা ফি ও পরিচালনা ব্যয় বাবদ ৫০ লাখ টাকা, জাতীয় দিবস উদযাপন ব্যয় খাতে ৭০ লাখ টাকা।'

সারাবাংলা/ইআ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন