বিজ্ঞাপন

বাফুফে ভবনে চ্যাম্পিয়নরা

September 21, 2022 | 8:00 pm

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

গোটা ঢাকা শহর ছাদখোলা বাসে ঘুরে অবশেষে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) ভবনে পৌঁছেছে সাফ চ্যাম্পিয়নরা। সেখানে বাফুফে কর্মকর্তারা বরণ করে নেন ফুটবলার ও কোচিং কর্মকর্তাদের।

বিজ্ঞাপন

বাফুফে ভবনের ভেতর কর্মকর্তা ছাড়া কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া না হলেও তাদের পক্ষ থেকে জানানো হয় রাত সাড়ে ৮টার দিকে সংবাদ সম্মেলন করবে বাফুফে।

এর আগে, দক্ষিণ এশিয়ার নারী ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে অংশ নেওয়ার জন্য নেপালের উদ্দেশে অধিনায়ক সাবিনা খাতুনের নেতৃত্বে যখন বাংলাদেশ দল দেশ ছাড়ে তখনও প্রত্যাশার পারদ এত বেশি ছিল না। কিন্তু একে একে পাকিস্তান, ভুটান, ভারত ও ফাইনালে স্বাগতিক নেপালকে হারিয়ে যখন শিরোপা জিতে বাংলাদেশ তখন থেকেই সবার অপেক্ষার প্রহর শুরু হয়। কবে, কখন আসবে শিরোপাজয়ী বাংলাদেশের খেলোয়াড়েরা— এই অপেক্ষায় বুধবার সকাল থেকেই ভক্তদের অপেক্ষার প্রহর গোনা শুরু হয়। অবশেষে বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) দেশে ফিরেছেন দক্ষিণ এশিয়ার সেরা বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল। দেশে ফিরেই সাবিনা-সানজিদারা জানালেন, দক্ষিণ এশিয়ার নারী ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্বের শিরোপা দেশবাসীর উদ্দেশে উৎসর্গ করতে চান তারা।

বিজ্ঞাপন

বাফুফে ভবনে চ্যাম্পিয়নরা

বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টা ৪০ মিনিটে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে সাফ চ্যাম্পিয়নদের বিমান। তবে এর আগে থেকেই বিমানবন্দরে অবস্থান করছিল হাজারো মানুষ। ছিল ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল (এমপি) এবং বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) কর্মকর্তারা। খেলোয়াড়দের বিমানবন্দরের ভেতরেই ফুল দিয়ে বরণ করে নেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী। বিমানবন্দরের ভেতরেই খেলোয়াড়দের নিয়ে কেক কেটে বিজয় উদযাপন করা হয়।

বিজ্ঞাপন

আলো ছড়ানো, আনন্দে জড়ানো এক টুর্নামেন্ট ছিল হিমালয়ের দেশে। কাঠমান্ডুর দশরথ স্টেডিয়ামে সোমবার সাফল্য-স্পর্শে শিহরিত লাল-সবুজের ফুটবলকন্যারা। অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়ে ইতিহাস গড়েছে বাংলাদেশ। সাবিনা-সানজিদাদের অভূতপূর্ব সাফল্যস্নাত সন্ধ্যায় গর্বিত গোটা দেশ।

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) এবং যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় যৌথভাবে মারিয়া-মনিকাদের বরণের উদ্যোগ নেয় আগে থেকেই। মঙ্গলবার যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে বাফুফে সমন্বয়সভা করেছে। সেখানে সিদ্ধান্ত হয়, বিজয়ী মেয়েদের সংবর্ধনা দেবেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএইচএস/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন