বিজ্ঞাপন

মুন্সীগঞ্জে পুলিশ-বিএনপির সংঘর্ষ, আহত ৩ জন ঢামেকে ভর্তি

September 21, 2022 | 11:08 pm

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

মুন্সীগঞ্জ: মুন্সীগঞ্জের মুক্তারপুরে পুলিশ ও বিএনপির মধ্যে সংঘর্ষে আহত তিনজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আহতরা হলেন জাহাঙ্গীর হোসেন (৪০), তারেক (২০) ও শাওন (২০)। এদের মধ্যে জাহাঙ্গীর ও শাওনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) বিকেল সাড়ে ৫টার পর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত একে একে তাদেরকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসা হয়।

বিজ্ঞাপন

পথচারী আলমগীর হোসেন নামে এক ব্যক্তি জানান, বিকেলে মুক্তারপুর ব্রিজের পাশে আহত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায় জাহাঙ্গীরকে। তার মুখমণ্ডলে গুরুতর জখম হয়েছে। দ্রুত তাকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসা হয়। তার সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যায়নি।

আহত তারেক জানান, তিনি ছাত্রদলকর্মী। বিএনপির পূর্বঘোষিত কর্মসূচিতে অংশ নিতে তিনি গিয়েছিলেন সেখানে। পুলিশ তাতে বাধা দেয়। এর একপর্যায়ে পুলিশ সদস্য আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে তার কপালে আঘাত করে।

বিজ্ঞাপন

আহত শাওনের বন্ধু নাহিদ খান জানান, শাওন মিশুক গাড়িচালক। যাত্রী নিয়ে সমাবেশে গিয়েছিলেন। তখন আহত হয়েছেন। তার বাড়ি মুন্সীগঞ্জের মিরকাদিম পৌরসভার মুরমা গ্রামে। বাবার নাম মো. সোহরাব আলী। শাওনের মাথায় গুরুতর আঘাত রয়েছে।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া জানান, জাহাঙ্গীরকে নাক-কান-গলা বিভাগে, বাকি দুজনকে জরুরি বিভাগে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। জাহাঙ্গীর ও শাওনের অবস্থা গুরুতর।

বিজ্ঞাপন

এদিকে মুন্সীগঞ্জের ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট জানিয়েছেন, ওই সংঘর্ষে পুলিশসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সাড়ে ৩ টার দিকে বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ চলাচলে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

বিজ্ঞাপন

নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দিতে টিয়ার সেল নিক্ষেপ ও ফাঁকা গুলি করে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী পুলিশ ও নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পালটাধাওয়া চলতে থাকে।

আহতরা হলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিনহাজুল ইসলাম, সদর থানার ওসি তাকিজ্জামান, এসআই মাইনউদ্দিন, এসআই সুকান্ত, এসআই আমিনুল, এসআই অজিদ, সমকালের সাংবাদিক কাজী দিপু, দিনকালের সাংবাদিক গোলজার হোসেনসহ অন্যরা।

সারাবাংলা/এসএসআর/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন