বিজ্ঞাপন

গবেষণার উপযুক্ত পরিবেশ গড়ে তুলুন: রাষ্ট্রপতি

November 19, 2022 | 9:35 pm

ঢাবি করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণার উপযুক্ত পরিবেশ গড়ে তোলার পাশাপাশি শিক্ষকসহ যে কোনো নিয়োগের ক্ষেত্রে মেধা ও যোগ্যতাকে প্রাধান্য দেওয়ার জোর তাগিদ দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ। এ ছাড়া বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে সমাজে শিক্ষকদের সম্মানের জায়গা ক্রমেই সংকুচিত হয়ে আসছে জানিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

শনিবার (১৯ নভেম্বর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৩তম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে সভাপতির ভাষণ প্রদান করেন রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য মো. আব্দুল হামিদ।

রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘পড়াশোনা ও গবেষণার উপযুক্ত পরিবেশ গড়ে তুলুন। উপযুক্ত পরিবেশের জন্য যাতে তাদের বিদেশে পাড়ি দিতে না হয়।’

বিজ্ঞাপন

এ সময় করোনা মহামারির কারণে সৃষ্ট সেশনজট কমানোর উদ্যোগ হিসেবে লস রিকভারি প্ল্যান, গবেষণা-প্রকাশনা মেলা আয়োজন এবং স্টুডেন্ট প্রমোশন অ্যান্ড সাপোর্ট ইউনিট চালু করায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান রাষ্ট্রপতি।

এ সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৩তম সমাবর্তনের বক্তা নোবেল বিজয়ী অধ্যাপক ড. জ্যাঁ টিহলকে স্বাগতম জানান রাষ্ট্রপতি।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি, আপনার উপস্থিতি তরুণ গ্র্যাজুয়েটদের, মানবজাতি ও সমাজের কল্যাণে কাজ করতে সমৃদ্ধ ও অনুপ্রাণিত করবে।’

শিক্ষক ও তরুণ গবেষকদের মেধা ও উদ্ভাবনী শক্তিকে কাজে লাগিয়ে দেশের মানুষের কল্যাণে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘উপাচার্যের নেতৃত্বে ও ছাত্র শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতায় প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা ও উচ্চ শিক্ষার প্রাণকেন্দ্রে পরিণত হবে।’

বিজ্ঞাপন

শিক্ষকসহ যেকোনও নিয়োগের ক্ষেত্রে মেধা ও যোগ্যতাকে প্রাধান্য দেওয়ারও জোর তাগিদ দেন তিনি।

সমাজে শিক্ষকদের অবস্থান সংকুচিত হয়ে আসছে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘কিছু সংখ্যক অসাধু লোকের কর্মকান্ডের জন্য গোটা শিক্ষক সমাজের মর্যাদা যেন ক্ষুন্ন না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। কতিপয় শিক্ষক বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকরিকে ঐচ্ছিক দায়িত্ব মনে করেন। বৈকালিক কোর্স বা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস নেয়াকেই তারা অগ্রাধিকার দিয়ে থাকেন।

বিজ্ঞাপন

রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘এই ডিজিটাল যুগেও প্রায়ই অভিযোগ শোনা যায় যে, ভর্তি প্রক্রিয়া থেকে শুরু করে সার্টিফিকেট উত্তোলন পর্যন্ত বিভিন্ন স্তরে ছাত্র-ছাত্রীরা অবহেলা আর হয়রানির মুখোমুখি হন।’

গ্র্যাজুয়েটদের উদ্দেশ্য করে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘সমাবর্তন আর সার্টিফিকেটেই সীমাবদ্ধ না থাকেন সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। দেশ ও জনগণের কল্যাণে সর্বদা নিজেকে নিয়োজিত রাখতে হবে।’

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ এবং উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামালসহ অনেকে বক্তব্য রাখেন।

সারাবাংলা/আরআইআর/একে

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন